Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৭ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

৫৪নং ওয়ার্ডবাসীর নানা অভিযোগ শুনলেন মেয়র সাঈদ খোকন

প্রকাশের সময় : ৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৪নং ওয়ার্ডবাসীর অভিযোগ শুনলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। এ সময় তিনি সব সমস্যার দ্রæত সমাধানের আশ্বাসও দিয়েছেন। গতকাল রোববার দুপুরে রাজধানীর পোস্তগোলার ওয়াপদা রোডে ‘জনপ্রতিনিধি জনতার মুখোমুখি’ অনুষ্ঠানের এক বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত সভায় মেয়র অভিযোগগুলো সরাসরি জনগণের মুখ থেকে শোনেন।
সভায় নগরবাসী তাদের নানা অভিযোগ তুলে ধরেন। অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে, উচাবেড়ি এলাকায় ওয়াসার কোনো স্যুয়ারেজ বা পানির লাইন নেই। যে কারণে দূর-দূরান্ত থেকে পানি এনে তাদের দৈনন্দিন সংসারিক কাজকর্ম চালাতে হচ্ছে। জবাবে মেয়র বলেন, এটা দীর্ঘদিনের সমস্যা। একটু জটিল কাজও এটি। সমাধান করতে ৪ থেকে ৫ মাস সময় লাগবে।
কুকুরের উপদ্রব বেড়েছে পোস্তগোলায়। বিশেষ করে সকালে নামাজ পড়তে রাস্তায় বের হলে আজ স্কুল-মাদ্রাসায় যাওয়া ছোট ছেলেমেয়েকে কুকুরের আক্রমণের শিকার হতে হচ্ছে। এতে প্রতিদিনই কেউ না কেউ কুকুরের আক্রমণে আহত হচ্ছে। স্থানীয় মুসল্লি ও অভিভাবকদের এমন অভিযোগের পর মেয়র বলেন, কুকুর নিধনের বিষয়ে হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা আছে। তবে বন্ধ্যা করে দেয়া বা অন্য স্থানে স্থানান্তর করা যাবে। এসময় তিনি ডিএসসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তাকে এ বিষয়ে উদ্যোগ নেয়ার নির্দেশ দেন।
জুরাইন কবরস্থানের দেয়াল ঘেঁসে মাদকাসক্তদের আড্ডাখানা গড়ে উঠেছে। তাছাড়া ফায়ারসার্ভিসের দেয়ালে বহুদিন ধরে অশ্লীল ছবির পোস্টার ঝুলছে। স্থানীয়দের এমন অভিযোগের ভিত্তিতে মেয়র আগামীকাল সোমবার (আজ) থেকে ওই এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তাকে জড়িতদের বিরুদ্ধে মামলা করার নির্দেশ দেন।
পোস্তগোলাবাসীর অভিযোগ Ñ করিমুল্লাবগ, জুরাইনসহ পুরো এলাকায় ওয়াসার পানিতে ময়লা ও দুর্গন্ধ। গন্ধের কারণে পানি পান করা যায় না। অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি।
স্থানীয়দের এমন অভিযোগ স্বীকার করে ওয়াসার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মেয়রের কাছ থেকে তিন দিন সময় চেয়ে নেন। এসময় মেয়র তাকে এক মাসের সময় দেন।
সামন্য বৃষ্টি হলেই পুরো এলাকা তলিয়ে যায়। এ থেকে রক্ষা পেতে এখন পোস্তগোলার সড়কগুলো উঁচু করে নির্মাণ করা হচ্ছে। এতে আবার পাশের বাড়িঘর তলিয়ে যায়। নগরবাসীর এমন অভিযোগের পর মেয়র বলেন, এ সমস্যা দীর্ঘদিনের। ডিএনডি বাঁধ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে তা দ্রæত সমাধান হয়ে যাবে।
এছাড়া, ওই এলাকায় একটি খেলা মাঠ, কমিউনিটি সেন্টার, ৫টি টয়লেট নির্মাণ, দ্রæত ড্রেন পরিষ্কারসহ আরো বেশ কিছু ওয়াদা দিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন।
৫৪ নং ওয়ার্ডবাসীর অভিযোগ ও অনুযোগ শুনেন ও সমাধানের ব্যপারে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেয়ার পর তিনি উপস্থিত জনতার উদ্দেশে বলেন, দক্ষিণ সিটির ৩০০টি রাস্তা মেরামতের কাজ শুরু করেছি। নির্বাচিত হওয়ার পর ঢাকাকে পরিবর্তনের আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি। আমার নির্বাচনি এলাকায় এলইডি স্ট্রিট লাইট লাগানোর কাজ শুরু হয়েছে।
তিনি বলেন, ঢাকা শহরে বর্জ্য ফেলার জন্য বিনের ব্যবস্থা করেছি। আপনারা ২০১৬ সালের মধ্যে ময়লা ও অবর্জনামুক্ত শহর পাবেন। আপনাদের ১৭ সালের মধ্যে বাসযোগ্য শহর উপহার দেব।
তিনি বলেন, দায়িত্ব নেয়ার পর ঋণের জন্য ডিপিডিসি বিদ্যুতের লাইন কেটে দিতে নগরভবনে এসেছিল। এটাই ছিল বাস্তবতা। সেখান থেকে এখন ১ হাজার ৭০০ কোটি টাকার প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ চলছে।
অনুষ্ঠানের শুরুতে মেয়রকে সোনার ইলিশ উপহার দেন দক্ষিণ সিটির ৫৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ মাসুদ। এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা ৪ আসনের এমপি আবু হোসেন বাবলা, ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিল্লাল প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ৫৪নং ওয়ার্ডবাসীর নানা অভিযোগ শুনলেন মেয়র সাঈদ খোকন
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ