Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৪ ফাল্গুন ১৪২৫, ১০ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

নির্বাচনে অনিয়ম নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্বেগ

কূটনৈতিক সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২ জানুয়ারি, ২০১৯, ১০:১৯ এএম | আপডেট : ১১:২১ এএম, ২ জানুয়ারি, ২০১৯

বাংলাদেশে নির্বাচনের দিনে ভোটারদের ভোটদানে বিরত রাখার অনিয়মের অভিযোগে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্র মনে করে, ভোটারদের বাধা প্রদানে নির্বাচনী প্রক্রিয়ার ওপর যে আস্থা তা খর্ব হয়েছে। এসব অনিয়মের বিষয়ে সব পক্ষকে নিয়ে গঠনমুলকভাবে সমাধান করতে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) প্রতি জোরালো আহ্বান জানিয়েছে দেশটি। যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে এসব কথা বলা হয়েছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ডেপুটি মুখপাত্র রবার্ট পালাদিনো ‘বাংলাদেশ ইলেকশন’ শীর্ষক বিবৃতি দিয়েছেন। এতে বলা হয়, ৩০ শে ডিসেম্বরের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কয়েক কোটি বাংলাদেশী ভোট দিয়েছেন এবং নির্বাচনে সব বড় বিরোধী দল অংশগ্রহণ করেছে। এ জন্য তাদের প্রশংসা করে যুক্তরাষ্ট্র। এতে বলা হয়, ২০১৪ সালে নির্বাচন বর্জনের পরে এটি একটি ইতিবাচক অগ্রগতি।
ওই বিবৃতিতে আরো বলা হয়, বাংলাদেশ ও এর গণতান্ত্রিক অগ্রগতিতে ভবিষ্যতে গভীরভাবে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী যুক্তরাষ্ট্র। বাংলাদেশে সবচেয়ে বড় বিদেশী বিনিয়োগকারী, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় একক রফতানীকারক দেশ এবং বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিপুল সংখ্যক মানুষের দেশ যুক্তরাষ্ট্র।
বিবৃতিতে রবার্ট পালাদিনো আরো বলেছেন, এর প্রেক্ষিতে আমরা নির্বাচন পূর্ববর্তী সময়ের হয়রানি, ভীতি প্রদর্শন ও সহিংসতার বিশ্বাসযোগ্য ঘটনার বিষয়ে উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করেছি। ওইসব কারণে বিরোধী দলীয় বহু প্রার্থী ও তাদের সমর্থকরা মুক্তভাবে সভা, র‌্যালি ও নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে পারেন নি। নির্বাচনের দিনে কিছু মানুষকে ভোট দিতে দেয়া হয় নি। এটা নির্বাচনী প্রক্রিয়ার প্রতি যে আস্থা আছে তাকে খর্ব করেছে। নির্বাচনের দিনের এ অনিয়মের বিষয়ে আমরা উদ্বিগ্ন।
বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, সব দলকে আমরা সহিংসতা থেকে বিরত থাকার জন্য জোরালোভাবে উৎসাহিত করছি। নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ করছি অনিয়মের বিষয়ে সমাধান করতে সব পক্ষকে নিয়ে গঠনমুলকভাবে কাজ করতে। বাংলাদেশের উৎসাহব্যাঞ্জক অর্থনৈতিক অগ্রগতি এবং গণতন্ত্র ও মানবাধিকারের প্রতি শ্রদ্ধা-এ দুটির একটি অন্যটির সঙ্গে পারস্পরিক সম্পর্কযুক্ত। আমরা ক্ষমতাসীন সরকার ও বিরোধীদের সঙ্গে এই আন্তঃসম্পর্কযুক্ত লক্ষ্য অর্জনের জন্য অব্যাহতভাবে কাজ করতে চাই।



 

Show all comments
  • jack ali ২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৩:৪৯ পিএম says : 8
    We are the best Nations on Earth----We don't believe any wrong doing---You are jealous of us ------
    Total Reply(0) Reply
  • জহিরুলইসলাম ২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৭:৫৭ পিএম says : 10
    কেনো
    Total Reply(0) Reply
  • mahabir ahmed ৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১১:৩৪ এএম says : 0
    আমাদের এখানকার অনেক কেন্দ্রে ভোটাররা সঠিক ভাবে ভোট প্রয়োগ করতে পারেনি।তাছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে শত শত জাল ভোট নির্বাচনের আগের রাতেই বাক্সে ভরা হয়েছিল। এবং কেন্দ্রে মামলার কারনে থাকতে পারে নি বি ন পি এর কোন এজেন্ট।।।।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Najir hossain ৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ৪:১৭ পিএম says : 0
    The elections in Bangladesh are the will of the ruling people, the people of Bengal want a free and fair election, but Awami League does not allow it to happen, they torture voters severely and go home and say that they will not be able to vote in the polling booth, many people have voted to vote again. Has been given I fear that if Bangladesh can go this way, the people of Bengal can not get married, because if you do not marry, then it will say that you are married
    Total Reply(0) Reply
  • মিজানুর রহমান ৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১০:২২ পিএম says : 0
    ভাই কি বলব আমি নিজে সকালে ময়মনসিংহ থেকে গেলাম ভোট দিতে আমাকে বলে যে ভোট দেয়া হয়ে গেছে কি আর করব নিরাশ হয়ে ফিরে এলাম আমি ও সরকারি দলকে সমর্থন করি তাই বলে আমার ভোট আমি দিতে পারিনা বলে কযট পেলাম
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ