Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯, ০৭ ভাদ্র ১৪২৬, ২০ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বিশ্বের প্রতি মালয়েশিয়ার আহ্বান

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনকে বড় চ্যালেঞ্জ উল্লেখ করে সঠিক উপায়ে তার বাস্তবায়নে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মালয়েশিয়া। রোহিঙ্গাদের নিরাপদে মিয়ানমারে ফেরাতে আসিয়ান এবং জাতিসংঘের সঙ্গে কাজ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে ব্রিটেন। বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার পুত্রজায়ার দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে, বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ জানান ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট। এর মধ্যেই ভারতে আশ্রয় নেয়া ৫ রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে নয়াদিল্লি। ৩ দিনের এশিয়া সফরের অংশ হিসেবে সিঙ্গাপুরের পর বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়া পৌঁছান ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট। মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহর সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে অন্যান্য বিষয়ের পাশাপাশি রোহিঙ্গা ইস্যুতে গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন তিনি। পরে যৌথ সংবাদ সম্মেলনে রোহিঙ্গাদের ভবিষ্যত নিয়ে সংশয় প্রকাশ কোরে সঙ্কট সমাধানে বাস্তবভিত্তিক পদক্ষেপ নেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি। ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট বলেন, রোহিঙ্গাদের বর্তমান পরিস্থিতি অমানবিক, অসম্মানজনক। এটা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। সঙ্কট সমাধানে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার বিষয়ে আমরা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। মালয়েশিয়া, আসিয়ান এবং জাতিসংঘকে সঙ্গে নিয়ে ভয়াবহ এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে সত্যিকারের পদক্ষেপ নিতে চায় যুক্তরাজ্য। দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহ রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে আসিয়ানের ভূমিকা তুলে ধরেন। বলেন, আসিয়ানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন নিশ্চিতে ‹আসিয়ান মানবিক সহযোগিতা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ› প্রতিষ্ঠার বিষয়ে বাংলাদেশে ও মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনা করেছে। সংবাদ সম্মেলনে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনকে বিরাট চ্যালেঞ্জ বলেও উল্লেখ করেন তিনি। মালয়েশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সাইফুদ্দিন আবদুল্লাহ বলেন, আন্তর্জাতিক আইন মেনে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানো বড় একটি চ্যালেঞ্জ। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোহিঙ্গা


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ