Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৫ চৈত্র ১৪২৫, ১১ রজব ১৪৪০ হিজরী।

চমক থাকছে মন্ত্রিসভায়

সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

নতুন মন্ত্রিসভায় বড় ধরনের চমক থাকতে পারে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আমার কেন যেন মনে হয় বিশাল একটা চমক আসবে। নবীন-প্রবীণের সমন্বয়ে আওয়ামী লীগের পথ চলা। তবে বিশাল জয়ের সঙ্গে বিশাল চমকও থাকতে পারে।
গতকাল ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের ওবায়দুল কাদের বলেন, মন্ত্রিসভা নিয়ে আমি ঠিক বলতে পারছি না। কেবিনেটের বিষয়টা সম্পূর্ণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিষয়। এটা প্রধানমন্ত্রীর এরিয়া, এখানে অন্য কারো প্রবেশের সুযোগ নেই। তবে আমার মনে হয় বিপুল বিজয় তো বিপুল প্রত্যাশা। বিশাল বিজয়ের সঙ্গে বিশাল প্রত্যাশা। জনগণেরও এখানে একটা প্রত্যাশা রয়েছে। সেই প্রত্যাশার প্রতিধ্বনিতো করতে পারে একজনই (শেখ হাসিনা)।
এ সময় তিনি বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের সমালোচনা করে বলেছেন, তারা এমপি হিসেবে শপথ না নিলে আরেকটি ভুল করবে। আবারো ভুলের চোরাবালিতে আটকাবে বিএনপি। কাদের বলেন, গতবারও তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করে যে ভুল করেছে সে ভুলের চোরাবালিতে তারা এখনো আটকে আছে। এবার যদি একই ভুল করে, কিছু আসনে জয় পেয়েও যদি তারা সংসদে যোগ না দেয়, সংসদ অধিবেশনে যদি না আসে, যে জনগণ তাদের ভোট দিয়েছে তাদের পক্ষে কথা বলতে যদি তারা সংসদে যোগ দিতে ব্যর্থ হয়, তাহলে এই ব্যর্থতা আর ভুলের চোরাবালিতে তাদেরকে আবারো আটকে থাকতে হবে।
এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, বাংলাদেশের জনগণ উন্নয়নের পক্ষে স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে। আমাদের নেত্রীর ব্যক্তিগত সততা ও ক্যারিশমার পক্ষে এ দেশের জনগণ। শুক্রবার সকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠক করেছেন বিএনপির তিন নেতা। এই বৈঠকের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, কেন? বৈঠক করলে কী অসুবিধা? (বিএনপি) বৈঠক তো করতেই পারে। মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে (তারা) বৈঠক করলে কি আকাশ ভেঙে পড়বে আমাদের উপর?
আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তার মৃত্যুতে আমাদের যে ক্ষতি হলো, তা সহজে পূরণ হওয়ার নয়। সৈয়দ আশরাফের নীতি-আদর্শকে চলার পথে পাথেয় করতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি বলেন, তার নীতি, আদর্শ, বিনয়, চরিত্রের যে গুণাবলি, সেগুলো আমাদের পাথেয় হবে।
তিনি বলেন, আমরা শোকাহত, গোটা আওয়ামী লীগ পরিবারে শোকের ছায়া। সজ্জন এবং একজন ভালো মানুষ ছিলেন তিনি। পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ হিসেবে সর্বমহলে তার একটা সুনাম ছিল, আমাদের দলের সীমানা পেরিয়ে। কাদের বলেন, তিনি আরও অনেক দিন আমাদের দলকে সার্ভিস দিতে পারতেন।
সৈয়দ আশরাফের অবদানের কথা স্মরণ করে আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক বলেন, লন্ডনে আমাদের নেত্রী শেখ হাসিনা ও বঙ্গবন্ধুর আরেক কন্যা শেখ রেহানার সঙ্গে সেই বড় দুঃসময়ের দিনগুলো কাটিয়েছেন তিনি। পর পর দুই বার পার্টির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। দুঃসময়ে পার্টির হাল ধরেছিলেন, শক্ত হাতে দলকে সংগঠিত করেছেন। সীমাহীন গভীর কমিটমেন্ট নিয়ে।
ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ওবায়দুল কাদের বলেন, ছাত্রলীগ সুনামের ধারায় থাকুক, সেটিই চাই। ছাত্রলীগের যে ঐতিহ্য ইতিহাস, সংগ্রাম ও গৌরবের, সেই ইতিহাস ঐতিহ্যকে চেতনায় ধারণ করে ছাত্রলীগ আজকে সময়ের চাহিদা পূরণে দায়িত্ব পালন করবে। ছাত্রলীগ নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বাংলাদেশের তরুণ সমাজকে সংগঠিত করবে উন্নয়নের চাকাকে সচল রাখার জন্য। সেখানে অভিজ্ঞতার সঙ্গে তারুণ্যের শক্তিতে কাজে লাগাবে। ছাত্রলীগ তারুণ্যের প্রতীক, এনার্জির প্রতীক। তরুণ সমাজকে সংগঠিত করবে, আমাদের চলমান উন্নয়নের চাকাকে সচল রাখবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ