Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

‘সাজানো’ সাক্ষাৎকার দিয়ে বিদ্রুপের পাত্র হলেন মোদি

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ৮ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মধ্যে মিডিয়াভীতি রয়েছে বলেছে অভিযোগ রয়েছে। চার বছরে তিনি হাতেগোনা কয়েকবার সাক্ষাতকার দিয়েছেন। নতুন বছরের প্রথম দিনে তিনি একটি সাক্ষাতকার দিতে রাজি হওয়ার পর সমালোচকরা বলছেন যে, ক্রিকেটে ‘ফ্রি হিটের মতো’ বিপদমুক্ত প্রশ্নগুলোকে বেছে নিয়েছেন মোদি।এশিয়ান নিউজ ইন্টারন্যাশনাল বা এএনআইকে দেয়া ওই সাক্ষাতকার নিয়ে ব্যাপক মন্তব্য, উপহাস ও বিদ্রুপ চলছে। কিছু সাংবাদিক এটাকে ‘সাজানো’, ‘স্ক্রিপ্ট করা’ এবং ‘একক বক্তৃতা’র সাথে তুলনা করেছেন।
কংগ্রেস পার্টি বলেছে, এটা ‘সাজানো’। একজন এমপি বলেছেন মোদিকে যে সব প্রশ্ন করা হয়েছে, সেগুলো তার প্রচারের জন্য, তাকে চেপে ধরার জন্য করা হয়নি। একটি কার্টুনে দেখানো হয়েছে যে, মোদি নিজেকেই নিজে সাক্ষাতকার দিচ্ছেন। ২০১৪ সালে মোদি ক্ষমতায় যাওয়ার পর থেকেই ভারতীয় মিডিয়া অভিযোগ করে আসছে যে, মোদিকে সাক্ষাতকারের জন্য পাওয়া যায় না। একটি সংবাদ সম্মেলনও করেননি মোদি এ পর্যন্ত। হাতেগোনা যে কয়েকটি সাক্ষাতকার দিয়েছেন, সেগুলোও প্রায় সাজানো ছিল এবং সাক্ষাতকার গ্রহণকারী তাকে কোন কঠিন প্রশ্ন করার সুযোগই পাননি। মোদি নিজে মিডিয়ার ব্যাপারে তার অসন্তোষ প্রকাশে কোন ফাঁক রাখেননি। আর ভারতীয় জনতা পার্টির অন্য সদস্যরা আরও আগ বাড়িয়ে সাংবাদিকদের ‘প্রেসটিটিউট’, ‘দালাল’, ‘বাজারু’ বিভিন্ন আপত্তিকর নামে অভিহিত করেছে। কিন্তু সাম্প্রতিক সাক্ষাতকারটি মিডিয়ার বাইরেও অনেকের সমালোচনার শিকার হয়েছে। বিরোধী দলীয় নেতা রাহুল গান্ধীও এই সমালোচনায় যোগ দিয়েছেন।
মিডিয়ার বিভিন্ন প্রশ্নকে মোদির এড়িয়ে যাওয়ার সমালোচনা করে রাহুল বলেন, তিনি নিজে মিডিয়া কর্মীদের অনেক কাছাকাছি তাদের যে কোন প্রশ্নের তিনি জবাব দেন। গান্ধী বলেন, এএনআইয়ের সাক্ষাতকারটি সাজানো এবং সাক্ষাতকার গ্রহণকারীকে ‘নির্দেশনা’ দেয়া হয়েছে। এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “মোদির সাহস নেই আপনাদের সামনে এসে বসার”। সূত্র : এসএএম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন