Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

আমি সুখী মানুষ -আনিস

বিনোদন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

এক সময়ের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা আনিস এখন আর অভিনয় করেন না। স্ত্রী কুলসুম আরা বেগম মারা যাওয়ার পর ২০১৪ সালে অভিনয় থেকে বিদায় নেন। এরপর থেকে আড়ালে চলে যান। প্রায় এক হাজার চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেন। সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তার বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে বলেন, আমি সারাদিন বাসায় থাকি। টিকাটুলির অভয়দাস লেনের একটি বাড়ীতে আমার তিনটি ফ্ল্যাট রয়েছে। একটিতে আমি থাকি, বাকি দুটো ফ্ল্যাট ভাড়া দেওয়া। আমার দুই মেয়ে। একজন আমেরিকা থাকে, আরেকজন থাকে কুমিল্লা। ওদের স্বামী, সন্তান, সংসার নিয়ে ওরা সুখে আছে। সারাদিন আমি একাই বাসায় থাকি। পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ি। মর্নিং ওয়াক করি। শতভাগ ঠিক আছি। বয়স ৮০-এর কাছাকাছি হলেও শারীরিকভাবে পুরোপুরি সুস্থ আছেন বলে জানান আনিস। তবে মাঝেমধ্যে তিনি তার স্ত্রীকে ভীষণ মিস করেন। আনিস বলেন, বউ মারা যাওয়ার পর সংসারটা এলোমেলো হয়ে গেছে। আমি বড় একা হয়ে গেছি। অভিনয়ের ক্ষেত্রে সে আমাকে প্রচন্যন্ড হেল্প করতো। ওর অনুপ্রেরণাতেই অভিনেতা আনিস এবং সফল স্বামী ও বাবা হতে পেরেছি। যে আমাকে পথ দেখিয়ে আজকের এ অবস্থানে নিয়ে এসেছে সে-ই যখন রইল না তখন আর অভিনয় করে কি হবে? এটা আমাকে মাঝেমধ্যে ভাবায়। সবমিলিয়ে আমার জীবনে অপ্রাপ্তি কিছুই নেই, আমি সুখী মানুষ। আনিস বলেন, ১৯৬৪ সাল থেকে সিনেমায় কাজ শুরু করি। সারাজীবন কাজ নিয়ে এতো ব্যস্ততা গেছে বলে বোঝাতে পারবো না। এখন পূর্ণ বিশ্রাম নিচ্ছি। এফডিসির মানুষজনের সঙ্গে এখনও আমার যোগাযোগ রয়েছে। তবে আমি এফডিসি যাইনা। ইন্ডাস্ট্রি তো এখন মরে গেছে। এফডিসি গেলে শূটিংয়ের মানুষজন পাওয়া যায় না। নতুন কিছু ছেলে মেয়ে আসছে তারা যদি পরিশ্রম করে আবার হয়তো চলচ্চিত্র ঘুরে দাঁড়াবে। ডিজিটাল যুগে ডিজিটালভাবে কাজ করতে হবে। এই দায়িত্ব পরিচালকদের। এছাড়া কোনো উপায় দেখি না। সিনেমা না করে সিনেমার নাম ভাঙিয়ে যদি অসৎ পন্থায় কেউ রোজগার করে তাহলে কয়েক বছর পর ইন্ডাস্ট্রি পুরোপুরি মরুভ‚মি হয়ে যাবে। তিনি বলেন, টেলিভিশন খুললে বিভিন্ন চ্যানেলে সিনেমা দেখি। ঘুরে ফিরেই একজনের সিনেমা বেশী দেখা যায়। গত একযুগ ধরে তাই হয়ে আসছে। তার বাইরে উল্লেখযোগ্য কোনো কাজ দেখি না। আরও একটা বিষয় দেখে মজা পাই, এখনও দেখি আমার ছবি চলে। আমাকে এখনও অনেকেই কাজে ডাকে। কিন্তু আমি যাইনা। ইত্যাদি ম্যাগাজিন থেকেও ডেকেছিল। আমি না করে দিয়েছি। আর কাজও করবো না। যে কটা দিন বাঁচবো এভাবে নিজের মতো একা একা থাকবো। শেষ বয়সে আমি এভাবেই ভালো আছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আনিস

১২ ডিসেম্বর, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ