Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

তীব্র তুষারঝড়ে বিপর্যস্ত ইউরোপ, ১৭ জনের প্রাণহানি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

তীব্র তুষারঝড়ের কবলে পড়েছে ইউরোপের বেশীরভাগ দেশ। ইতোমধ্যে জার্মানি, অস্ট্রিয়া ও নরওয়ের বেশ কিছু অঞ্চলে আছড়ে পড়েছে ভয়াবহ রকমের এ ঝড়। ঝড়ের কবলে পড়ে ও বরফ ধসে শুক্রবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ১৭ জন। পরিস্থিতি সামনে আরও খারাপ হতে পারে বলে আগামী দুইদিন সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করেছে সংশ্লিষ্ট আবহাওয়া অধিদপ্তর। কর্মকর্তাদের বরাতে এক প্রতিবেদনে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সংবাদমাধ্যম বিবিসি।
প্রতিবেদনে বলা হয়, তীব্র তুষারঝড়ের কবলে পড়ে জার্মানির টাইজেনব্যার্গে এক তরুণী ও বাভারিয়া অঙ্গরাজ্যে এক ব্যক্তির (৪৪) মৃত্যু হয়েছে। তাছাড়া অস্ট্রিয়ায় গত এক সপ্তাহে এ প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত সাতজন। একইসঙ্গে এবারের ঝড়ে নরওয়েতে চারজন, ফিনল্যান্ডে তিনজন এবং সুইডেনে একজনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ।
এদিকে, তীব্র তুষারঝড়ে গাছ উপরে এবং বরফ জমাট হয়ে ইতোমধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে বেশিরভাগ সড়কের যান চলাচল। চালু রাস্তাগুলোতেও সৃষ্টি হয়েছে তীব্র যানজট। জার্মানির মিউনিখের কাছের এক সড়কে অন্তত ২০ কি.মি. যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। তাছাড়া রাস্তার পাশে পার্কিং করা গাড়িগুলো যেখানে ছিল এখনো ঠিক সেখানেই আটকে আছে। মাত্র এক রাতের ঝড়ে অনেক গাড়ি বরফের নিচে তলিয়ে গেছে।
অপরদিকে, বাভারিয়ান শহর জিগসডর্ফ থেকে মিউনিখ যাওয়ার পথের প্রায় ১৫ কিলোমিটার সড়কের পাশে অসংখ্য যানবাহনকে আটকে থাকতে দেখা যায়। পরে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তারা এসে সেগুলোকে পুনরায় সচল করেন।
তাছাড়া এমন তুষারঝড়ের কারণে মধ্য অস্ট্রিয়ার অন্যতম প্রধান সড়কে গাড়ি ও পথচারীদের চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যেকোনো বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এমন আশঙ্কায় দেশের বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক ইতোমধ্যে বন্ধ করে দেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে দেশটির সড়ক ব্যবস্থাপনা বিভাগ।
আবহাওয়া সংশ্লিষ্টদের মতে, ইউরোপের এই দেশগুলোতে ভয়াবহ তুষারঝড় আরও প্রায় সপ্তাহ ব্যাপী স্থায়ী হতে পারে। আর তাই এসব অঞ্চলে বসবাসরতদের সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন