Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫, ১৭ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপির সংসদে আসা উচিত: প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৭:৩৭ পিএম

বিএনপিকে সংসদে আসার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপিকে সংসদে এসে কথা বলা উচিত। তিনি বলেন, বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব দুর্নীতিগ্রস্ত, সাজাপ্রাপ্ত এবং পলাতক আসামি বলেই জনগণ নির্বাচনে তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। এরপরও ২০১৮ এর নির্বাচনে বিএনপি যদি মনোনয়ন বাণিজ্য না করত, তাহলে হয়তো তাদের ফলাফল আরও একটু ভালো হতে পারত। 

শনিবার (১২ জানুয়ারি) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের যৌথ সভার শুরুতে দেওয়া বক্তব্যে শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।
তিনি বলেছেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের উন্নয়ন হয় এটা গত ১০ বছরে মানুষ বুঝতে পেরেছে। জনগণের সেবক হিসেবে আওয়ামী লীগ নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে পেরেছে। এ কারণেই মানুষ আবারও আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে বিজয়ী করেছে।
তিনি বলেন, জনগণ বুঝতে পেরেছে শুধু আওয়ামী লীগ সরকারে থাকলেই তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হয়, দেশের উন্নয়ন হয়। দেশের সব শ্রেণি-পেশার সর্বস্তরের মানুষ এটা মনে করে। আর এ জন্যই তারা সদ্য অনুষ্ঠিত নির্বাচনে আওয়ামী লীগকে সমর্থন দিয়েছে। জনগণ আমাদের বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছে, এখন জনগণের প্রতি আমাদের দায়িত্ব আরও অনেক বেড়ে গেছে।

তিনি বলেন, বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্ব দুর্নীতিগ্রস্ত, সাজাপ্রাপ্ত এবং পলাতক আসামি। এ কারণে জনগণ নির্বাচনে তাদের প্রত্যাখ্যান করেছে। বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া এতিমের টাকা লুটে খাওয়ার অভিযোগে সাজাপ্রাপ্ত হয়ে জেলে আছেন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান হত্যা মামলা, দুর্নীতি এবং মানি লন্ডারিংসহ একাধিক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত হয়ে এখন পলাতক আসামি। জনগণ তাদের এসব তৎপরতা গ্রহণ করেনি।

নির্বাচনের আগে বিএনপি জোটের কর্মকাণ্ডের সমালোচনা কলে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, বিএনপি ২০১৪ সালের নির্বাচন বানচাল করার অপচেষ্টা করেছিল। অতীতের মতো এবারও তাদের নির্বাচন বানচালের প্রচেষ্টা সবাই দেখেছে। মানুষ দেখেছে তারা কীভাবে মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে। এবারের নির্বাচনে বিএনপি যদি মনোনয়ন বাণিজ্য না করতো, তাহলে হয়তো তাদের ভোটের ফলাফল আরও একটু ভালো হতে পারতো।

২০২০ সালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের কথা জানিয়ে তার কন্যা বলেন, ২০২০সালকে মুজিব বর্ষ হিসেবে উদযাপন করা হবে। এজন্য এখন থেকেই কর্মপরিকল্পনা হাতে নেওয়া হবে।

শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, উপদেষ্টা পরিষদ ও সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • মাহমুদুর রহমান বাবু ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৮:৫০ পিএম says : 0
    এ বছরের সেরা কৌতুক
    Total Reply(0) Reply
  • Nannu chowhan ১২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৯:৪০ পিএম says : 0
    gonototro mane ki birodhi dolke humki domon pirond dara tader jonogontheke bichsinno kore deoa gonotontro mane jor onner vot nije dia deowa, gonotontrer mane ki shob birodhider opor ottachar nirjaton o jele vora?
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:২৭ এএম says : 1
    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন বিএনপি মনোনয়ন বানিজ্য না করলে হয়তো ভোটের ফলাফল আরও একটু ভালো হতে পারতো। এটাই সত্য কথা বিএনপির মনোনয়ন বাণিজ্যই বিএনপির বিপর্যয়ের কারন। দলের শির্য নেতা তারেক মিয়া তার বিদেশের কয়েক শত বছরের খরচ এই মনোনয়ন বানিজ্যের মাধ্যমে উঠায়ে নিলেন এটাই সত্য। জনগণ এই সত্য বুঝতে পেরেই তাদেরকে প্রত্যাখ্যান করেছে। এখন যদিও তারা মাত্র ৬টা দলীয় ভাবে এবং ঐক্যফ্রন্ট হিসাবে ৮ জন সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন এনাদের এখন শফত নিয়ে সংসদে যোগ দেয়া উচিত বলে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন ওনার সাথে সাথে সবারই এই একটি কথা বিএনপির এখন উচিত। কোন রকম ঘাড় তেড়ামি না করে গণতান্ত্রিক পদ্ধতীকে সম্মান দেখিয়ে তাদের এই সল্প সংখ্যক সাংসদ নিয়ে সংসদে যোগ দিয়ে ভোটারদের ইজ্জৎ রক্ষা করা। ভোটাররা তাদেরকে তাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে নেতা বানিয়ে সংসদে পাঠিয়েছেন এখন তাদের আর কোন পথ নেই সংসদে যাওয়া ছাড়া এটাই সবার মন্তব্য। আল্লাহ্‌ বিএনপির নেতাদেরক সত্য বলতে, সত্য জানতে এবং সত্য পথে চলতে ক্ষমতা দিন। আমিন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ