Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৮ আগস্ট ২০১৯, ০৩ ভাদ্র ১৪২৬, ১৬ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

জিরো টলারেন্স ইয়েলো ভেস্টের বিরুদ্ধে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

জ্বালানি তেলে কর বৃদ্ধির প্রতিবাদে শুরু হওয়া ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স হওয়ার প্রতিজ্ঞা করেছে ফ্রান্সের সরকার। প্যারিসে গত এক সপ্তাহের দাঙ্গা ও ভাঙচুর এবং দেশের অন্যান্য শহরে দুই মাস ধরে চলা এ আন্দোলনের বিরুদ্ধে শনিবার থেকে কঠোর অবস্থানে যাওয়ার এ ঘোষণা দেয়া হয়েছে। খবর এএফপি। খবরে বলা হয়েছে, চলতি সপ্তাহে দেশটিতে সরকারের বিরুদ্ধে আরো বড় ধরনের সহিংস আন্দোলন তৈরি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে মনে করছেন কর্মকর্তারা। এই অবস্থায় নতুন কোনো পরিস্থিতি যাতে তৈরি হতে না পারে সেদিকে সর্তক থাকছে তারা। এই অবস্থায় প্যারিসে সাঁজোয়া যান এবং ৫ হাজার কর্মকর্তা মোতায়েন করা হবে। পাশাপাশি দেশব্যাপী ৮০ হাজার নিরাপত্তা বাহিনী প্রস্তুত রাখা হয়েছে। অন্যদিকে আরো বড় আকারে এই আন্দোলন হতে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন ইয়েলো ভেস্ট আন্দোলনকারী সংগঠনের সদস্য ৪৮ বছর বয়সী এরনড। এছাড়া ফ্রান্সের কেন্দ্রীয় শহর বোর্গেসে আরো বড় ধরনের আন্দোলন হওয়ার কথা জানিয়েছেন আন্দোলনকারীদের একাংশ। নাম প্রকাশ না করার শর্তে আন্দোলনকারীদের একজন এএফপিকে জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত যেসব শহরে আন্দোলন হয়নি। সেসব শহরে শান্তিপূর্ণভাবে বড় ধরনের আন্দোলন করা হবে। তবে ঐতিহাসিক শহর বোর্গেস কর্তৃপক্ষ এই আন্দোলনের বিষয়ে শুরু থেকেই কোনো ঝুঁকি নিতে চায়নি। শুরু থেকেই শহরের মধ্যে আন্দোলনকারীদের একত্র হতে দেয়নি তারা। পাশাপাশি পার্কিং মিটার বন্ধ করে দেয়া, শহরের মধ্যে বসার জায়গা এবং ফার্নিচার উঠিয়ে ফেলা এবং সরকারি ভবন ও পার্ক বন্ধ করে দেয়া হয়। বোর্গেসের ব্যাংক এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিয়ে শহরের বাসিন্দাদের উদ্বেগের পরিপ্রেক্ষিতে এই ব্যবস্থা নেয়া হয় বলে দাবি করেছেন শহরের মেয়র প্যাসকল ব্লেন্স। এদিকে অভ্যন্তরীণ মন্ত্রী ক্রিস্টোফার কেসটানার শুক্রবার আন্দোলনকারীদের উদ্দেশে বলেছেন, যারা শনিবার আন্দোলনের ডাক দিয়েছে তারা জানে যে এখানে সহিংসতা হবে। আর সেটা হলে তার দায় তাদেরকেই নিতে হবে। যদি আন্দোলনকারীরা মনে করে মাত্র কয়েক হাজার লোক মিলে আমাদের এবং প্রতিষ্ঠানকে প্রশ্নের মুখে ফেলে দিবে তাহলে সেটা ভুল ভাবা হবে। প্রসঙ্গত, জ্বালানি তেলের ওপর পরিবেশ কর আরোপের প্রতিবাদে গত অক্টোবর মাস থেকে ইয়েলো ভেস্ট বা ‘হলুদ জ্যাকেট’ আন্দোলন শুরু হয়। সাপ্তাহিক ছুটির দিনে আয়োজিত এসব প্রতিবাদ–বিক্ষোভে ট্যাক্সিচালকদের ব্যবহৃত হলুদ জ্যাকেট পরে প্রতিবাদকারীরা অংশ নেওয়ায় এই আন্দোলনের নাম দেওয়া হয় ‘ইয়েলো ভেস্ট’ বা ‘হলুদ জ্যাকেট’ আন্দোলন। টানা দুই সপ্তাহ দেশজুড়ে ব্যাপক প্রতিবাদ-বিক্ষোভের পর ৪ ডিসেম্বর জ্বালানির ওপর বর্ধিত কর প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় ফ্রান্সের সরকার। তবে বর্তমানে দাবি পূরণে নানা ধরনের বিক্ষিপ্ত দাবি করছে এসব আন্দোলনকারীরা। অনেকে আর্থিক বোঝা কমাতে বলছেন। কেউ কেউ পেনশন বাড়ানোর বা সর্বনিম্ন মজুরি বাড়ানোর কথাও বলছেন। আবার অনেকে এখন প্রেসিডেন্টে মাখোঁর পদত্যাগ দাবি করছেন। এএফপি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন