Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

১৮ জানুয়ারি প্রিমিয়ার ফুটবল

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

অবশেষে জট খুললো ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল)। বহুল প্রতিক্ষীত এই লিগ মাঠে গড়াচ্ছে আগামী ১৮ জানুয়ারি। এবার বিপিএলের খেলা হবে দেশের ছয়টি ভেন্যুতে। এছাড়া একটি মাত্র ভেন্যুতে আগামী ৫ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে পেশাদার ফুটবলের দ্বিতীয় স্তর খ্যাত বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়নশিপ লিগ (বিসিএল)। গতকাল পেশাদার লিগ কমিটির সভা শেষে এমন তথ্য জানান কমিটির চেয়ারম্যান ও সদ্য সামাপ্ত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৪ আসন থেকে বিজয়ী আওয়ামী লীগ সাংসদ আব্দুস সালাম মুর্শেদি। নির্বাচনের পর কালই প্রথম বাফুফে ভবনে আসেন সালাম মুর্শেদি। এসেই লিগ শুরুর চুড়ান্ত দিনক্ষণ নির্ধারণ করেন। সভা শুরুর আগে নতুন নির্বাচিত এই সংসদ সদস্যকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান বাফুফে ও বিপিএলের বিভিন্ন ক্লাব কর্তারা।
সভা শেষে সালাম মুর্শেদি নিজের স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতে বলেন,‘১৮ জানুয়ারিই লিগ শুরু করছি। আপনারা ধন্যবাদও দিলেন না। লিগ না পেছানোয়।’ বিপিএলের একাদশ আসর শুরুর দিনক্ষণ ঠিক হলেও খসড়া ভেন্যু তালিকা থেকে দু’টি কমিয়েছে বাফুফে। তারা আগে বলেছিল এবার ৮টি ভেন্যুতে লিগের খেলা অনুষ্ঠিত হবে। বাফুফে খসড়া ভেন্যু তালিকা থেকে ছেটে ফেলা হয়েছে চট্টগ্রাম ও ফরিদপুরকে। চট্টগ্রাম আবাহনী ভেন্যু নিতে অপারগতা জানায়। আর ফরিদপুরের শেখ জামাল স্টেডিয়ামে ক্রিকেট লিগ চলমান থাকায় এখন ফুটবল খেলা চালানো সম্ভব নয়। তাই এ ভেন্যুটিও বাদ পড়ে।
আসন্ন বিপিএলের ভেন্যুগুলো হচ্ছে- ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম, ময়মনসিংহের রফিক উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়াম, গোপালগঞ্জের শেখ মনি স্টেডিয়াম, নীলফামারীর শেখ কামাল স্টেডিয়াম, নোয়াখালীর শহীদ ভুলু স্টেডিয়াম ও সিলেট জেলা স্টেডিয়াম। এই ছয় ভেন্যুকে ভাগ করে নিয়েছে এবারের বিপিএলে অংশগ্রহণকারী ১৩ ক্লাব। নবাগত বসুন্ধরা কিংস নীলফামারী, শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র সিলেট, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্র গোপালগঞ্জ, নবাগত নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব নোয়াখালী ও টিম বিজেএমসি ময়মনসিংহকে নিজেদের হোম ভেন্যু হিসেবে বেছে নিয়েছে। বাকি আট ক্লাবের হোম ভেন্যু ঢাকার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়াম।
ভেন্যু কমায় খসড়া ফিকশ্চারে পরিবর্তন আসছে। ফিকশ্চার ও লিগ শেষের প্রসঙ্গে সালাম মুর্শেদি বলেন,‘যেহেতু ভেন্যু কমছে তাই আমাদের খসড়া ফিকশ্চারে পরিবর্তন আনতে হচ্ছে। আশাকরছি জুলাইয়ের শেষ দিকে লিগের সামাপ্তি টানতে পারবো।’
নানা কারণে লীগ স্থগিত হয়। মার্চে এএফসি অনুর্ধ্ব-২৩ চ্যাম্পিয়নশিপের বাছাই পর্ব, এপ্রিলে ঢাকা আবাহনীর এএফসি কাপের ম্যাচ। তাই লিগের ব্যাঘাত ঘটা স্বাভাবিক। এই বিষয়ে লিগ কমিটির চেয়ারম্যান বলেন,‘আমরা সব কিছু বিবেচনায় এনে সমন্বয়ের চেষ্টা করেই ফিকশ্চার করবো।’
লিগের পৃষ্ঠপোষকতা নিয়ে সালামের কথা,‘পৃষ্ঠপোষক পাওয়া গেছে। দু’তিন দিনের মধ্যে তা অনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হবে। পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে পাওয়া অর্থের সিংহভাগই ক্লাবগুলোকে দেয়া হবে। হোম ভেন্যুর যে অর্থ ক্লাবগুলো পাবে বাফুফে তা থেকে লভ্যাংশ নেবে না। এর পুরোটাই সংশ্লিষ্ট ক্লাব ও জেলা ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন পাবে। ’
এবার বিপিএল থেকে দু’টি দল অবনমনে যাবে। আর বিসিএল থেকে প্রিমিয়ারে উঠবে একটি দল। বিপিএল শুরুর পরের মাসেই কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুরু হবে বিসিএলের খেলা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ১৮ জানুয়ারি প্রিমিয়ার ফুটবল
আরও পড়ুন