Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫ ফাল্গুন ১৪২৫, ১১ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

গণভবনে ফের সংলাপের কথা এবং ...

প্রধানমন্ত্রী শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে সংলাপের কোন বিষয় নেই। যে নির্বাচন নিয়ে গণতান্ত্রিক বিশ্বে কোন সংশয় নেই। গণতান্ত্রিক বিশ্বের কোন প্রশ্ন নেই সেখানে সংলাপের প্রশ্ন হাস্যকর। তিনি বলেন, তাই সংলাপ নয়। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচনের আগে সবকয়টি রাজনৈতিক দলকে গণভবনে সংলাপের আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। বিএনপি ঐক্যফ্রন্টসহ ৭৫টা দল তখন সংলাপে অংশ নিয়েছিল। তাদের সঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী শুভেচ্ছা বিনিময়ের জন্য তাদের আমন্ত্রণ জানাতে চান প্রধানমন্ত্রী। এখানে কোন সংলাপের আমন্ত্রণ জানাচ্ছি না। সংলাপ নয়, শুভেচ্ছা বিনিময় হবে।
গতকাল বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এ্যভিনিউতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মিলনায়তনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ১৯ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের বিশাল বিজয় সমাবেশ উপলক্ষে বর্ধিত সভাটি আয়োজন করে। এর আগে ১৩ জানুয়ারি দলের এক যৌথ সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারও সংলাপে বসবেন বলে জানিয়েছিলেন ওবায়দুল কাদের।
বিজয় সমাবেশে কথা তুলে ধরে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিশাল বিজয় বিশাল দায়িত্ব। বিজয়ী দলের অনেক দায়িত্ব। তাই জনদুর্ভোগকে মাথায় রাখতে হবে। মহা বিজয়ে কেউ যেন মহা দাপোট দেখাতে না যান। এ মহা বিজয় থেকে জনগণের কাছে আরো বিনয়ী হবেন। তাতে আমাদের লস নেই।
সমাবেশকে কেনমষু করে কিছুটা জনদুর্ভোগ হবে জানিয়ে আগাম দু:খপ্রকাশ করেন সেতুমন্ত্রী। তিনি বলেন, দুর্ভোগ যেন কম হয় তাই শনিবার সমাবেশের তারিখ নির্ধারণ করা হয়েছে। শুক্রবার করা হয়নি কারণ জুম্মার নামাজের বিষয়টি থাকে। এই শহরের মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে তাই তাদের ভোগান্তি যেন কমা হয় সেজন্য দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন তিনি।
দল সরকার চালাবে, সরকার দল চালাবে না মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমাদের সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ সরকারের মধ্যে যেন দল হারিয়ে না যায় এটা আমাদের মনে রাখতে হবে। দলের সত্ত্বা যেন সরকারে বিলীন হয়ে না যায়। কেননা দল সরকারের উপরে।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, যতই আমরা ঐক্যবদ্ধ হই আমি জানি ভেতরে কিছু দুর্বলতা আছে। সাংগঠনিক কিছু দুর্বলতা আছে। এ মহানগরীতে আছে। সারা দেশেও আছে। এ বিজয়কে যদি সংহত করতে চাই তাহলে আমাদের দল গোছাতে হবে।
আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধির উপর জোর দিয়ে তিনি আরো বলেন, আওয়ামী লীগের ভবিষ্যত বিজয় যদি আপনারা চান তাহলে আপনাদের দলের ভেতরের সমস্যা আগে ঠিক করতে হবে। এই সমস্যাগুলো অনতিক্রম্য নয়, অতিক্রম্য। আপনারাই সেটা পারেন।
ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ সভাপতি হাজী আবুল হাসনাতের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান, শিক্ষামন্ত্রী ও যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মণি, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন নৌ প্রতিমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, শিক্ষা উপমন্ত্রী ও কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আব্দুস সবুর।#



 

Show all comments
  • Mohammed Kowaj Ali khan ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯, ৫:৪৩ এএম says : 0
    আরো কিচুদিন ক্ষমতায় থাকো,দেখিবায় কি হয় জনগণ ফুঁসিতেছেন মনে হয় না পালাইবার রাস্থা পাইবেন। ভোট চুরি আর বুট চুরি অনেক পারতক্য আছে। বুট চুরির কারনে শাহজালাল (রঃ) মাজারে এক চুরকে যা পিটা। ভোট চুরির জন্য কি হইতে পারে? ইনশাআল্লাহ। অনেক মারধর হইবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯
৫ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ