Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

কুমিল্লায় সীমানা নিয়ে বিরোধে যুবক খুন

চৌদ্দগ্রাম উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯, ২:২৭ পিএম

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বাড়ীর সীমানা নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত নজরুল ইসলাম সোহাগের (২২) মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাত ২টায় ঢাকার লালমাটিয়া রয়েল কেয়ার সার্জিকেল হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্চা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারাযান। নিহত নজরুল ইসলাম সোহাগ উপজেলার মৌকরা ইউপির মাঝিপাড়া গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আকম মফিজুল ইসলামের ছেলে।

নিহতের পিতা মফিজুল ইসলাম বলেন বৃহস্পতিবার (১৭ জানুয়ারি) সকালে তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।

জানা যায়, গত ৬ জানুয়ারী রবিবার বিকালে একই বাড়ির মৃত. আসলাম মিয়ার ছেলে আবু তাহেরের সাথে সীমানা নিয়ে কথা কটাকাটি হয়। এক পযায়ে তাহের ক্ষিপ্ত হয়ে দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র দিয়ে নজরুলকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে মাথায় আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা সরকারি হাসপাতালে পর অবস্থার অবনতি ঘটলে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেখানও চিতিৎসায় কোন পরিবর্তন না ঘটায় পর দিন উন্নত চিকিৎসার জন্য নজরুলকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। ঢাকার লালমাটিয়া রয়েল কোয়ার সার্জিকল হাসপাতালের আইসিইউ একটানা ১২ দিন ভর্তি থেকে বুধবার রাত ২টার সময় চিকিৎসাদিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের পিতা মফিজুল ইসলাম জানান, দীর্ঘদিন থেকে বাড়ির সীমানা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এ ঘটনায় গত ১০ জানুয়ারি স্থানীয়ভাবে শালিস বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আবু তাহের গ্রাম্য শালিসকে অমান্য করে এ ধরণে ঘটনা ঘটিয়েছে। আমি প্রশাসনের কাছে এ হত্যাকান্ডের সুষ্ঠ বিচার প্রার্থনা করছি।

এ বিষয়ে জানতে অভিযুক্ত আবু তাহেরের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নাঙ্গলকোট থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) আশ্রাফুল ইসলাম বলেন, মারামারি ঘটনায় নিহতের পিতা মফিজুল ইসলাম বাদী হয়ে ৪ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। তবে মৃত্যুর খবর পেয়েছি। মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতলে প্রেরণে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুবক খুন
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ