Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

১৪ তম বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক, প্যাকেজিং এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল মেলার উদ্বোধন

ব্যবসায়ীদের সকল সমস্যার সমাধান করা হবে - সালমান এফ রহমান, প্লাস্টিক পণ্যের মান উন্নততর হচ্ছে -শিল্পমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯, ৮:৩৮ পিএম | আপডেট : ৮:৪১ পিএম, ১৭ জানুয়ারি, ২০১৯

১৪ তম বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক, প্যাকেজিং এবং ইন্ডাস্ট্রিয়াল মেলার উদ্বোধন করেছেন শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন। বৃহষ্পতিবার রাজধানীর একটি হোটেলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে চার দিনব্যাপী এই মেলার উদ্বোধন করেন তিনি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাতের উন্নয়ন বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বাংলাদেশ প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদক এবং রফতানিকারক অ্যাসোসিয়েশনের (বিজিএমইএ) সভাপতি মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সভাপতি মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন ও ইয়র্কারস ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট মিস জুডি ওয়াং।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেন, দেশের উৎপাদিত প্লাস্টিক পণ্যের গুণগতমান উন্নততর হচ্ছে। আন্তর্জাতিক বাজারের চাহিদা অনুসারে প্লাস্টিক পণ্যের উৎপাদন বাড়াতে হবে। তিনি বলেন, প্লাস্টিক বাংলাদেশের অর্থনীতির একটি বিকাশমান শিল্পখাত। ইতোমধ্যে ছোট বড় মিলিয়ে পাঁচ হাজার ৩০টি ইন্ডাস্ট্রি গড়ে উঠেছে। এই খাতের উন্নয়নের জন্য জাতীয় শিল্পনীতি-২০১৬ তে আমরা প্লাস্টিক শিল্পকে অগ্রাধিকার তালিকার শীর্ষস্থানে রেখেছি। ইতোমধ্যে মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে ৫০ একর জমির ওপর একটি প্লাস্টিক শিল্পনগরী গড়ে তোলার কাজ চলছে।

এ খাতের নানা সমস্যা সমাধানের কথা জানিয়ে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এই সরকার ব্যবসা করে না, তবে ব্যবসাবান্ধব সরকার। প্লাস্টিকসহ সব ধরনের খাতেই যেসব সমস্যা আছে, সেগুলো সমাধানে আমরা কাজ করছি। একটা টিম হয়ে কাজ করলে এসব সমাধান দ্রুত আসবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান বলেন, নির্বাচনের আগে এফবিসিসিআই’র আয়োজনে এক ব্যবসায়ী সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে আপনারা (ব্যবসায়ীরা) আমাদের সমর্থন দিয়েছিলেন। আপনারা সমর্থন দিয়েছিলেন বলে জননেত্রী শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে পেয়েছি। এখন আমাদের দায়িত্ব আপনাদের সব সমস্যার সমাধান করা। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী যে টার্গেট সেট করেছেন ব্যবসায়ীদেরকে নিয়ে, আমাদেরকে সেই লক্ষ্যের দিকে নিয়ে যেতে হবে। এ জন্য প্রথমেই ব্যবসায়ীরা যাতে সহজেই ব্যবসা করতে পারে সেদিকে গুরুত্ব দেয়া হবে। এটা করতে পারলে সম্পর্কিত অন্যান্য সমস্যারও সমাধান হয়ে যাবে।

এ সময় প্লাস্টিক শিল্পের আরও অগ্রগতি কামনা করে তিনি বিশিষ্ট এই শিল্প উদ্যোক্তা বলেন, প্লাস্টিকের জন্য একটি অর্থনৈতিক জোন করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। ব্যাকওয়ার্ড লিংকেজ ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে পারলে এই শিল্প অন্য স্তরে চলে যাবে। এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগীতা করা হবে। প্লাস্টিক নিয়ে নানা সমস্যা আছে। তবে রিসাইকেল ইন্ডাস্ট্রির মাধ্যমে প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ভূমিকা রাখা এই খাতের ব্যবসায়ী আমাদের দরকার। এক্ষেত্রে সরকারের পাশাপাশি প্লাস্টিক এসোসিয়েশনকেও রিসাইকেল ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে নানা সমস্যা দূরীকররণের কথা জানান।

রপ্তানিকে গুরুত্ব দিয়ে সালমান এফ রহমান বলেন, আগামীতে রপ্তানিতে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। শুধু প্লাস্টিক না; সামনে গার্মেন্টসহ অন্যান্য রপ্তানি খাতকেও বিশেষ গুরুত্ব দেয়া হবে বলে উল্লেখ করেন।

প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি খাতের উন্নয়ন বিষয়ক এই উপদেষ্টা বলেন, আমাদের ভ্যাট আইন নিয়ে দীর্ঘদিন থেকে আলোচনা চলছে। এবার এই আইন বাস্তবায়ন করতে হবে। এক্ষেত্রে সকলকে সহযোগীতা করার কথা বলেন। একই সঙ্গে এফবিসিসিআই ও অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনকে আইনে কি কি সংশোধন আনা দরকার এ বিষয়ে বাজেটের আগেই পদক্ষেপ নেওয়ার কথা বলেন সালমান এফ রহমান।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে মোহাম্মদ জসিম উদ্দীন বলেন, প্লাস্টিক শিল্প দেশিয় অর্থনীতিতে যে অবদান রাখছে এবং সাফল্যের সঙ্গে এগিয়ে চলেছে, ১৪তম আন্তর্জাতিক প্লাস্টিক ফেয়ার ২০১৯ তার প্রমাণ। এবার ১৯টি দেশ থেকে ৪৬০টি প্রতিষ্ঠান ৭৮০টি স্টল বা বুথ নিয়ে অংশ নিচ্ছে।

প্লাস্টিক খাতে কমপ্লায়েন্স ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তোলার তাগিদ দিয়ে বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, ব্যবসা এখন চীন থেকে সরে যাচ্ছে। তাই আমরা যদি আমাদের দেশে প্লাস্টিক খাতের কমপ্লায়েন্স ইন্ডাস্ট্রি গড়ে তুলতে পারি, তাহলে এই খাতে বিশ্ব বাজারে আমরা ভালো অবস্থান নিতে পারবো। বর্তমানে বাংলাদেশে আভ্যন্তরীণভাবে ২৫ হাজার কোটি টাকার পণ্য উৎপাদন ও বিপণন হচ্ছে। এর থেকে সরকারি কোষাগারে প্রতি বছর ৩ হাজার ৫০০ কোটি টাকা রাজস্ব জমা হয়। আর ৫৪৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বিশ্ববাজারে বাংলাদেশের অর্জন শুণ্য দশমিক ৬ শতাংশ।

এছাড়াও শিল্পমন্ত্রী, সরকার এবং ব্যবসায়ী সংগঠনগুলোর কাছে প্লাস্টিক ব্যবসা সংক্রান্ত নানাবিধ দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন বিজিএমইএ সভাপতি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন- এফবিসিসিআই সভাপতি মোহাম্মদ শফিউল ইসলাম মহিউদ্দীন ও ইয়র্কারস ট্রেড অ্যান্ড মার্কেটিং কোম্পানি লিমিটেডের প্রেসিডেন্ট মিস জুডি ওয়াং। রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হওয়া এই মেলা চলবে রোববার (২০ জানুয়ারি) পর্যন্ত।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ