Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২৭ মে ২০১৯, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ২১ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

ভিক্টোরি জুটমিলের গুদামে আগুনে ক্ষয়ক্ষতি ব্যাপক

বিভিন্ন কোম্পানির কোটি কোটি টাকার মজুদ পণ্য পুড়ে ছাই

চট্টগ্রাম ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

চট্টগ্রাম নগরীর ভিক্টোরি জুট মিলসের গুদামে ভয়াবহ আগুনে ক্ষয়ক্ষতির মাত্রা ব্যাপক। সেখানে অনেকগুলো গুদামে মজুদ থাকা ইউনিলিভার, আরএফএলসহ বিভিন্ন কোম্পানির কোটি কোটি টাকার পণ্যসামগ্রী পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। গুদামে পণ্যসামগ্রী মজুদকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সূত্র দাবি করেছে, অগ্নিকাণ্ডে ক্ষয়ক্ষতির আর্থিক পরিমান শত কোটি টাকা হতে পারে। তবে ফায়ার সার্ভিস এবং প্রশাসনের তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, ক্ষয়ক্ষতির পরিমান নির্ণয়ের জন্য তারা কাজ করছেন। স্থানীয় লোকজন সন্দেহ করছেন, এই অগ্নিকাণ্ডের পেছনে কোনো ভিন্ন রহস্য থাকতে পারে। এটি নাশকতাও হতে পারে।

এদিকে গত শুক্রবার ভোরে সংঘটিত উক্ত অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় গতকাল (শনিবার) ৫ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মুহাম্মদ মাশহুদুল কবিরের নেতৃত্বে গঠিত তদন্ত কমিটিকে ৭ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যবৃন্দ হলেন সিএমপির সহকারী কমিশনার পঙ্কজ বড়ুয়া, ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দিন, চিটাগাং চেম্বার অব কমার্সের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ ও স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর নেসার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু।

জানা গেছে, নগরীর একে খান এলাকায় বন্ধ হয়ে যাওয়া ইস্পাহানি শিল্পগোষ্ঠীর মালিকানাধীন ভিক্টোরি জুট মিলসের অনেকগুলো কক্ষ ভাড়া দেয়া হচ্ছিল ইউনিলিভার, আরএফএলসহ অন্তত ৪টি প্রতিষ্ঠানের কাছে। সেখানে এসব কোম্পানির পণ্যসামগ্রী গুদামজাত করে রাখা হয়। এরমধ্যে ছিল বিভিন্ন ধরনের প্লাস্টিক পণ্য, প্রসাধন সামগ্রী, টিভি-ফ্রিজসহ নানা ধরনের ইলেকট্রিক ও ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী। তাছাড়া মজুদ ছিল তুলা ও হরেক পণ্যসামগ্রী তৈরির জন্য রাসায়নিক দ্রব্যাদি। এ ধরনের পণ্য গুদামে মজুদ থাকায় আগুন লাগার পর নিয়ন্ত্রণে আনতে অনেক সময় লেগে যায়। ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক জসিম উদ্দিন জানান, আগুনে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও নির্ধারণ করা সম্ভব হয়নি। তদন্ত শেষে আগুন লাগার কারণ এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমান জানা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ