Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৬ ফাল্গুন ১৪২৫, ১২ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

এমন ম্যাচও হারল সিলেট!

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

রানখরার বিপিএল ফিরতে শুরু করেছে আপন মহিমায়। সিলেট পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচে বড় স্কোর গড়েও হেরেছে সিলেট সিক্সার্স। বিপিএলের উত্তেজনাপূর্ণ ম্যাচটি ৪ উইকেটে জিতে নিয়েছে রংপুর রাইডার্স। সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দুঃসময়ের বলয় ছিঁড়ে দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন সাব্বির রহমান। শেষ দিকে ঝড় তুললেন নিকোলাস পুরান। দলের হয়ে শেষ ম্যাচ খেলতে নামা অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নারও খেলেছেন স্বভাবসূলভ। সিলেটও ২০ ওভারে তোলে ১৯৪ রান। তখনও পর্যন্ত যা এবারের বিপিএলের সর্বোচ্চ দলীয় রান। পেছনে পড়ে খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে ঢাকা ডায়নামাইটসের ১৯২ রান। পরের ইনিংসেই সেই রান পেরিয়ে যায় রংপুর। সিলেটের বাজে ক্যাচিং আর নিজেদের দারুণ রান তাড়া মিলিয়ে রংপুর জিতে যায় দুই বল বাকি রেখে।
গতকাল টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং স্বর্গে তার সুবিধা আদায় করে নিতে ভুল করেনি সিলেট। যদিও শুরুটা ভালো ছিল না। দলীয় ১৩ রানেই ফর্মে ফেরা লিটন দাসকে হারায় দলটি। তবে দ্বিতীয় উইকেটে আফিফ হোসেনের সঙ্গে ৩৯ রানের জুটিতে শুরুর ধাক্কা সামলে নেন আরেক ওপেনার সাব্বির। আফিফের বিদায়ের পর অধিনায়ক ওয়ার্নারের সঙ্গে আরও একটি দারুণ জুটি গড়েন সাব্বির। তৃতীয় উইকেটে এ দুই ব্যাটসম্যান যোগ করেন ৫১ রান। তবে সিলেটের বড় স্কোরের মূলে ছিল সাব্বির ও ক্যারিবিয়ান তারকা নিকোলাস পুরানের চতুর্থ উইকেট জুটি। এ জুটিতে মাত্র ৩৯ বলে আসে ৮৩ রান। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৫ রানের ঝড়ো এক ইনিংস খেলেন সাব্বির। ৫১ বলে ৫টি চার ও ৬টি ছক্কার সাহায্যে এ রান করেন তিনি। দারুণ ব্যাটিং করেছেন পুরানও। ২৭ বলে ৪টি চার ও ৩টি ছক্কায় করেছেন ৪৭ রান। এছাড়া আফিফ ও অধিনায়ক ওয়ার্নার ১৯ রান করে করেন। ফলে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ১৯৪ রানের বড় সংগ্রহই পায় দলটি। রংপুরের পক্ষে ৩১ রানের খরচায় ২টি উইকেট পেয়েছেন মাশরাফি।
এই তো এক ম্যাচ আগের কথা। শেষ ওভারে টানা চারটি বল ব্যাটে না লাগাতে পেরে ফরহাদ রেজা ছিলেন খলনায়ক। সপ্তাহ না ঘুরতেই সেই দুঃস্বপ্ন মাটি চাপা দিয়ে অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার হয়ে উঠলেন দলের দারুণ জয়ে শেষের নায়ক। দ্বিতীয় বলেই শূণ্য রানে গেইলের বিদায়ে বিশাল রান তাড়ায় ৬১ রানের ঝড়ো ইনিংসে রংপুরকে যে পথে এগিয়ে নিয়েছিলেন রাইলি রুশো, এবি ডি ভিলিয়ার্স জয়ের তরীতে পালে হাওয়া দেয়ার কাজটি করলেন ৩৪ রানে, সেই পথ ধরেই ফরহাদ দলকে নিয়ে গেছেন জয়ের ঠিকানায়। তার মাত্র ৬ বলে ২টি চার ও একটি ছক্কায় ১৮ রানে ৩ বল হাতে রেখেই রংপুর নোঙ্গর ভেড়ায় কাক্সিক্ষত বন্দরে। এক চারে ৩ বল খেলা মাশরাফি অপরাজিত ছিলেন ৫ রান নিয়ে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
সিলেট সিক্সার্স : ২০ ওভারে ১৯৪/৪ (লিটন ১১, সাব্বির ৮৫, আফিফ ১৯, ওয়ার্নার ১৯, পুরান ৪৭*, জাকের ৫*; নাজমুল ২-০-১৮-০, মাশরাফি ৪-০-৩১-২, শফিউল ৪-০-৪৩-১ ফরহাদ ৩-০-৩৫-০, নাহিদুল ২-০-১৬-০, গাজী ২-০-১৬-০, গেইল ৩-০-৩৪-০)।
রংপুর রাইডার্স : ১৯.৪ ওভারে ১৯৫/৬ (গেইল ০, হেলস ৩৩, রুশো ৬১, ডি ভিলিয়ার্স ৩৪, মিঠুন ১৪, নাহিদুল ১৯, মাশরাফি ৫*, ফরহাদ ১৮*; ইরফান ৪-০-৩৪-১, তাসকিন ৪-০-৪২-৪, লামিচানে ৪-০-২১-০, রানা ৪-০-৫৭-০, অলক ৩.৪-০-৩৪-১)।
ফল : রংপুর রাইডার্স ৪ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচসেরা : রাইলি রুশো (রংপুর)।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিপিএল

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ