Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

টঙ্গীতে অন্তঃসত্তা গৃহবধূর লাশ উদ্ধার, স্বামী আটক

টঙ্গী সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ২০ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

টঙ্গীর পাগাড় এলাকায় যৌতুকের দাবীকৃত টাকা না দেয়ায় এক সন্তানের জননী আফরোজা আক্তার (২২) কে পিটিয়ে হত্যা করেছে পাষন্ড স্বামী। শুক্রবার গভীররাতে হত্যার পর ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে নিহতের লাশ ফাঁসিতে ঝুলিয়ে আত্বহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার অভিযোগ তুলে স্বামী মো. লিটন মিয়া (৩০) এর বিরুদ্ধে নিহতের পরিবার। এঘটনায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করেছে এবং লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজ উদ্দিন আহমেদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।
নিহত আফরোজার ভাই মো. আজমুল হক জানান, প্রায় ২ বছর আগে তার ভগ্নিপতি লিটন মিয়ার সাথে ছোট বোন আফরোজা আক্তারের বিয়ে হয়। বোনের বিয়ের সময় তিন ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার, ঘর সাঁজানোর আসবাবপত্র দেয়া হয়। বিয়ের পর তাদের সংসারে একটি কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। এছাড়াও সে বর্তমানে ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলো। বিয়ের পর থেকে লিটনসহ তার ভাই কামাল (৫০), শাহ আলম (৪০) মিলে সাংসারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ঝগড়া করতো এবং যৌতুক দাবী করে আফরোজাকে মারধর করতো। শুক্রবার রাত আনুমানিক ৯ টার দিকে আমার মেঝো ভাই নাজমুল হক রিয়াজ আমার বোন আফরোজাকে ফোন করলে সে জানায়, যৌতুকের জন্য তার স্বামী ও ভাইয়েরা মিলে তাকে মারধর করছে। ঘটনার ২ ঘন্টা পর রাত ১১ টায় উক্ত বাড়ির মালিক দ্বিতীয়বার আমার ভাইয়ের ফোন নম্বরে জানায়, আমার বোন মৃত অবস্থায় টঙ্গী সরকারী হাসপাতালে রয়েছে। খবর পেয়ে আমি এবং আমার আত্বীয় স্বজনরা হাসপাতালে এসে তার লাশ হাসপাতালের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখি। আমার বোনের মুখমন্ডল ও গলাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন দেখতে পাই। বিষয়টি থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহতের লাশ উদ্ধারসহ অভিযুক্ত লিটন মিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতে প্রেরণ করেছে।
এব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই হুমায়ুন জানান, সম্ভবত মেয়েটি আত্বহত্যা করেছে। তার শরীরে আঘাতের কোন চিহ্ন নেই তবে গালে চড় থাপ্পরের আঘাত পরিলক্ষিত হয়। আফরোজার আত্বীয় স্বজনদের দাবী তাকে পিটিয়ে হত্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। তাদের অভিযোগ মোতাবেক মামলা নেয়া হয়েছে। মামলার তদন্ত চলছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হত্যা

২৬ জুন, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ