Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৫ জুলাই ২০২০, ২১ আষাঢ় ১৪২৭, ১৩ যিলক্বদ ১৪৪১ হিজরী

দীর্ঘজীবী হওয়ায় মুখ্য ভূমিকা শর্করার

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

শর্করা বা কার্বোহাইড্রেট এক ধরনের জৈব রাসায়নিক পদার্থ যা জীবদেহের শক্তির প্রধান উৎস হিসেবে কাজ করে। যদিও বাড়তি ওজনের ঝামেলা কমাতে অনেকেই শর্করা জাতীয় খাবার পরিহার করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। তবে জাপানের ওকিনওয়া দ্বীপের বাসিন্দারা শর্করা খেয়েই লাভ করেছেন দীর্ঘ জীবন! এক গবেষণার ফলাফলে বলা হয়েছে, তাদের দীর্ঘজীবী হওয়ার পেছনে মুখ্য ভূমিকা রাখছে শর্করা! পূর্ব চীনা সমুদ্রের তীরবর্তী দ্বীপ ওকিনওয়ার বাসিন্দারা পৃথিবীর অন্য যে কোনো জায়গার মানুষের থেকে বেশি দিন বাঁচে। বেশি দিন বাঁচার পাশাপাশি সেখানকার মানুষের আরেকটি বিশেষ বৈশিষ্ট্য হলো সেখানকার অধিকাংশ বাসিন্দা সুস্বাস্থ্যের অধিকারী। পৃথিবীর যে কোনো প্রান্তের মানুষের তুলনায় জাপানের বাসিন্দাদের গড় আয়ু বেশি। আর ওকিনওয়া দ্বীপে শতবর্ষীর সংখ্যা জাপানের অন্যান্য প্রান্তের মানুষের তুলনায় গড়ে ৪০ শতাংশ বেশি। ওকিনওয়া দ্বীপে শতবর্ষী মানুষের সংখ্যা এক হাজারের বেশি। ৯৭ বছর বয়সীদের দুই তৃতীয়াংশ-ই অন্য কারো সাহায্য ছাড়াই সুস্থ স্বাভাবিক জীবনযাপন করেন। ওকিনওয়া দ্বীপবাসীর এই বেশিদিন বাঁচার রহস্য জানতে দীর্ঘদিন ধরে গবেষণা করছেন বিজ্ঞানীরা। প্রাথমিক গবেষণার তথ্য থেকে তারা ধারণা করছেন, বিশেষ কিছু জিন বৈশিষ্ট্যের জন্যই সেখানকার মানুষের গড় আয়ু বেশি। সেখানকার মানুষের জীন বৈশিষ্ট্য জানার পাশাপাশি তাদের জীবনধারা নিয়েও বিস্তর গবেষণা করেছেন তারা। ওকিনওয়া দ্বীপবাসীর জীবনধারা গবেষণা করে তারা দেখতে পেয়েছেন, সেখানকার মানুষের খাদ্য তালিকায় উচ্চ মাত্রার শর্করা থাকে। আর এই শর্করা জাতীয় খাবারের মধ্যে উল্লেখযোগ্য খাবার মিষ্টি আলু। গবেষণা দলের অন্যতম সদস্য সামান্থা সোলোন-বিয়েট বলেন, বর্তমান বিশ্বের জনপ্রিয় খাদ্যাভ্যাস বলতে উচ্চ প্রোটিন এবং নিম্ন শর্করা তত্ত¡ প্রচলিত থাকলেও ওকিনওয়ায় সম্পূর্ণ বিপরীত চিত্র। বিবিসি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দীর্ঘজীবী হওয়ায় মুখ্য ভূমিকা শর্করার
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ