Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

ফেদেরারকে হারিয়ে সিসিপাসের ইতিহাস

অঘটনের শিকার শারাপোভা-কেরবারও

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

দেশ ছাড়ার আগে বলে এসেছিলেন, ‘আমি গ্রিসে টেনিসের পতাকা ওড়াতে চাই।’ একটি ম্যাচ জয়ের পরই এই তরুণের সেই বাণী আজ প্রমাণীত সত্য।
স্টেফানো সিসিপাস- এই ম্যাচের আগে নামটি খুব একটা উচ্চারিত নয় টেনিস জগতে। শেষ ষোলয় রজার ফেদেরারের প্রতিপক্ষ বলেই ২০ বছর বয়সী এই তরুনকে ঘিরে ছিল কিছুটা আগ্রহ মাত্র। তবে ম্যাচ শেষে সেই স্টেফানোর নামটি লেখা হয়ে গেল ইতিহাসে! শুধু অস্ট্রেলিয়ান ওপেনেই নয়, তার হাত ধরেই যে দেশটি থেকে প্রথম টেনিসার খেলছেন কোন গ্র্যান্ড স্ল্যামের কোয়ার্টার ফাইনাল। হ্যাঁ, ঠিকই পড়ছেন। গতকাল মেলবোর্নের রড লেভার অ্যরেনায় আসরের বর্তমান চ্যাম্পিয়নের কাছ থেকে ১২টি ব্রেক পয়েন্ট নেয়া ম্যাচে ৬-৭, ৭-৬, ৭-৫, ৭-৬ সেটে হারিয়ে দিয়েছেন চতুর্দশ বাছাই!
প্রথম তিন রাউন্ডে কোনো সেট না হারা ফেদেরার ছন্দ ধরে রাখতে পারলেন না শেষ ষোলোতে। রেকর্ড ২০ বারের গ্র্যান্ড স্ল্যাম ও ছয়বারের অস্ট্রেলিয়ান ওপেন চ্যাম্পিয়নের বিপক্ষে তিন ঘণ্টা ৪৫ মিনিট স্থায়ী ম্যাচে অসাধারণ এই জয়ের পর অশ্রুসিক্ত চোখে নিজেকে ‘পৃথিবীর সবচেয়ে সুখী মানুষ’ বলেন ২০ বছর বয়সী সিসিপাস। আর ১৬ বছরে এবার দিয়ে মাত্র দ্বিতীয়বার বছরের প্রথম এই গ্র্যান্ড স্ল্যামের কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠতে ব্যর্থ হলেন ৩৭ বছর বয়সী ফেদেরার। এমন হারের পর স্বাভাবিকভাবেই ভীষণ হতাশ সুইস তারকা, ‘এমন ম্যাচে অনেক বিষয় থাকে, কিন্তু সেট পয়েন্টগুলোয় আমার ভালো হয়নি। এটা খুব হতাশাজনক।’
এই ম্যাচের পর অনেকেই তাকে দেখছেন ভবিষ্যৎ নাম্বার ওয়ানের আসনেও। পরবর্তী পরীক্ষা নেবার জন্য যেখানে আগে থেকেই অপেক্ষায় আছেন প্রথম রাউন্ডে অ্যান্ডি মারেকে বিদায় করা রবের্তো বাতিস্তা। এবার সেই ভবিষ্যতবাণী প্রমাণের অপেক্ষা।
এদিকে, সহজ জয়ে শেষ আটে উঠেছেন দ্বিতীয় বাছাই স্পেনের রাফায়েল নাদাল। চেক রিপাবলিকের টমাস বের্দিচকে ৬-০, ৬-১, ৭-৬ গেমে হারান ১৭টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়ী। ২০০৯ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনজয়ী তারকা কোয়ার্টার-ফাইনালে খেলবেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্রান্সেস টিয়াফোর বিপক্ষে।
অঘটনের ঘটনা ঘটেছে নারী এককেও। অবিশ্বাস্য হার দেখেছেন উইম্বলডন চ্যাম্পিয়ন অ্যাঞ্জেলিক কেরবার। তাকে চতুর্থ রাউন্ড থেকে বিদায় দিয়েছেন এবারই প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অভিষেক হওয়া ড্যানিয়েলে কলিন্স। ৫৬ মিনিটের লড়াইয়ে কোনও প্রতিরোধ ছিলো না কেরবারের। র‌্যাংকিংয়ের ৩৫ নম্বর কলিন্সের কাছে হেরে যান ৬-০, ৬-২ গেমে। বলা হচ্ছে টুর্নামেন্ট থেকে কেরবারের এত আগে বিদায় নেওয়াটা সবচেয়ে বড় অপ্রত্যাশিত ঘটনা!
নক্ষত্রপতনের দিনে আছে আরও দুঃসংবাদ। রাশিয়ান তারকা মারিয়া শারাপোভাকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে জায়গা করে নিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ান অ্যাশলেই বার্টি। অথচ প্রথম সেটে শারাপোভার কাছে হেরে শুরু হয় তার। হেরে যান ৬-৪ গেমে। এরপর পরের সেটে ঘটে তার দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন। পরের দুই সেটে শারাপোভাকে হারান ৬-১, ৬-৪ গেমে। এই জয়ের ফলে এই প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম টুর্নামেন্টের শেষ আটে জায়গা পাওয়ার কীর্তি গড়লেন বার্টি। শারাপোভাকে হারিয়ে এমন অসাধ্য সাধন করায় পুরো বিষয়টিই তার কাছে মনে হচ্ছে অবিশ্বাস্য, ‘আসলে এটা বাস্তব মনে হচ্ছে না।’
১৫তম বাছাই সাবেক এই ক্রিকেটার বার্টি মুখোমুখি হবেন অষ্টম বাছাই পেত্রো কেভিতোভার। কেভিতোভা হারিয়েছেন আমেরিকান ১৭ বছর বয়সী আমান্ডা আনিসিমোভাকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন