Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬, ১৬ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক আজ

প্রেসিডেন্টের ভাষণ অনুমোদন

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ১০টায় নতুন মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে প্রথম মন্ত্রিসভার বৈঠক উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় (পুরানতন সংসদ) নানান রঙের তোরণ ব্যানার দিয়ে সাজানো হয়েছে। গত ৬ জানুয়ারি মন্ত্রিসভা গঠন করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরদিন বঙ্গভবনে প্রেসিডেন্টের কাছে শপথ নেন প্রধানমন্ত্রীসহ মন্ত্রিপরিষদের ৪৭ সদস্য।
মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, আগামী ৩০ জানুয়ারি একাদশ জাতীয় সংসদের ২০১৯ সালের প্রথম অধিবেশনে (শীতকালীন অধিবেশন) প্রেসিডেন্টের ভাষণের (বিস্তারিত ও সংক্ষিপ্ত) খসড়া অনুমোদন দেবে মন্ত্রিসভা। খসড়া দুটি ভাষণ অনুমোদনের জন্য উখাপন করা হবে। এছাড়া ইট ভাটা আইন এবং জাতীয় সমাজকল্যাণ পরিষদ আইন মন্ত্রিসভার অনুমোদনের জন্য উখাপন করা হচ্ছে।
নতুন মন্ত্রিসভায় পূর্ণমন্ত্রিত্ব পেয়েছেন ২৪ জন, প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন ১৯ জন। এছাড়া তিনজনকে উপমন্ত্রী করা হয়েছে। দাড়িত্ব প্রাপ্তমন্ত্রীরা হলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে আ ক ম মোজাম্মেল হক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ে ওবায়দুল কাদের, কৃষি মন্ত্রণালয়ে মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আসাদুজ্জামান খান, তথ্য মন্ত্রণালয় ড. হাছান মাহমুদ, আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে আনিসুল হক, অর্থ মন্ত্রণালয়ে আ হ ম মুস্তফা কামাল, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ে মো. তাজুল ইসলাম, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে ডা. দীপু মনি, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে এ কে আব্দুল মোমেন, পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে এম এ মান্নান, শিল্প মন্ত্রণালয়ে নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ে গোলাম দস্তগীর গাজী, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ে জাহিদ মালেক, খাদ্য মন্ত্রণালয়ে সাধন চন্দ্র মজুমদার, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে টিপু মুনশি, সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ে নুরুজ্জামান আহমেদ, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে শ ম রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ে মো. শাহাব উদ্দিন, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ে বীর বাহাদুর উ শৈ সিং, ভূমি মন্ত্রণালয়ে সাইফুজ্জামান চৌধুরী, রেলপথ মন্ত্রলণালয়ে মো. নুরুল ইসলাম সুজন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে স্থপতি ইয়াফেস ওসমান (টকনোক্র্যাট), ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে মোস্তাফা জব্বারকে (টকনোক্র্যাট)।
এছাড়া ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী হলেন, কামাল আহমেদ মজুমদার (শিল্প), ইমরান আহমেদ (প্রবাসীকল্যাণ), জাহিদ আহসান রাসেল (যুব ও ক্রীড়া), নসরুল হামিদ (বিদ্যুৎ ও জ্বালানি), আশরাফ আলী খান খসরু (মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ), মন্নুজান সুফিয়ান (শ্রম), খালিদ মাহমুদ চৌধুরী (নৌপরিবহন), জাকির হোসেন (প্রাথমিক ও গণশিক্ষা), শাহরিয়ার আলম (পররাষ্ট্র), জুনাইদ আহমেদ পলক (তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি), ফরহাদ হোসেন (জনপ্রশাসন), স্বপন ভট্টাচার্য (স্থানীয় সরকার), জাহিদ ফারুক (পানিসম্পদ), মো. মুরাদ হাসান (স্বাস্থ্য), শরীফ আহমেদ (সমাজকল্যাণ), কে এম খালিদ (সংস্কৃতি), এনামুর রহমান (দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ), মাহবুব আলী (বিমান), শেখ মো. আবদুল্লাহ(টকনোক্র্যাট) (ধর্ম)। ৩ উপমন্ত্রী হলেন হাবিবুন নাহার (পরিবেশ), এ কে এম এনামুল হক শামীম (পানি সম্পদ), মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল (শিক্ষা)। এসব মন্ত্রীরা প্রতিদিনেই অফিস করে আসছেন।
গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ করে আওয়ামী লীগ। নির্বাচনে ২৯৮টি আসনের মধ্যে ২৫৬টিতেই জয় পায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। মহাজোট পায় ২৮৮টি। যার মধ্যে জাতীয় পার্টি ২২টি, জাসদ তিনটি, ওয়ার্কার্স পার্টি তিনটি, বিকল্পধারা দুটি, তরীকত ফেডারেশন একটি ও বাংলাদেশ জাসদের একটি আসন রয়েছে। অন্যদিকে, বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ৮টি আসন পায়। স্বতন্ত্র প্রার্থীরা জিতেছেন তিনটি আসনে। বিএনপি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এমপিরা ছাড়া নবনির্বাচিত সব এমপিই শপথ নেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মন্ত্রিসভা

৮ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন