Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

স্ত্রীসহ আত্মগোপনে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের কর্মকর্তা

দুদকের মামলা

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

অবৈধভাবে সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা দায়েরের পর স্ত্রীসহ আত্মগোপনে চট্টগ্রাম কাস্টম হাউসের সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা আমজাদ হোসেন হাজারী ও তার স্ত্রী গৃহিনী হালিমা বেগম। দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদকের পক্ষ থেকে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত তিন কোটি দুই লাখ ৩২ হাজার টাকার সম্পদের মালিক হওয়ার অভিযোগে ওই দম্পতির বিরুদ্ধে মামলা হয়।
দুদক কর্মকর্তারা জানান, ১৪ জানুয়ারি তারা হাইকোর্টে জামিনের আবেদন করেন। আদালত চার সপ্তাহের মধ্যে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন। এরপর থেকে তারা পালিয়ে বেড়াচ্ছেন বলে জানান দুদক কর্মকর্তারা। তাদের বিরুদ্ধে ৬ জানুয়ারি নগরীর ডবলমুরিং থানায় মামলা করে দুদক। নগরীর লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আমজাদ হোসেন হাজারী এখন চট্টগ্রাম-কুমিল্লা-সিলেট কাস্টমস এক্সাইজ ও ভ্যাট অফিসার্স এক্সিকিউটিভ অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি। তবে পলাতক অবস্থা থেকে যেকোনো সময় তিনি আদালতে আত্মসমর্পণ করতে পারে বলে ধারণা করছেন দুদকের কর্মকর্তারা।
মামলার বিবরণে জানা যায়, তার স্ত্রীর তিন কোটি দুই লাখ ৩২ হাজার টাকার সম্পদের মালিক। তবে এ সম্পত্তির গ্রহণযোগ্য কোন তথ্য পায়নি দুদক। পোল্ট্রি খামারের মাধ্যমে তার এ টাকা আয় করা হয়েছে বলে দাবি করা হলেও ওই খামারের কোন অস্তিত্ব পায়নি দুদক। অবৈধ সম্পদ অর্জন করে স্ত্রীর নামে রাখায় স্বামীকেও মামলায় আসামি করা হয়। মামলার এজাহারে বলা হয়, আমজাদ হোসেন ২০০৪ সালে চট্টগ্রাম কাস্টমস এপ্রেইজার পদে যোগ দেন। ১৯৮৭-৮৮ করবর্ষ থেকে ২০১১-১২ করবর্ষ পর্যন্ত হালিমা বেগম তার আয় দেখিয়েছেন ৩ কোটি ৬৩ লাখ ৯৬ হাজার ৭৩৫ টাকা এবং ব্যয় দেখিয়েছেন ৮৮ লাখ ৬৯ হাজার ৫৭৯ টাকা। প্রদর্শিত ৩ কোটি ৬৩ লাখ ৯৬ হাজার ৭৩৫ টাকা আয়ের মধ্যে নগরীর পতেঙ্গা বন্দরটিলা মৌজায় ১০ শতক জমির ওপর নির্মিত পোল্ট্রি খামার থেকে আয় দেখিয়েছেন ৩ কোটি ২৬ লাখ ৬৭ হাজার ৫৫০ টাকা। বাকিগুলো অন্য খাত থেকে। তবে দুদকের অনুসন্ধানে তার এ দাবি প্রমাণিত হয়নি।



 

Show all comments
  • Mir Irfan Hossain ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১:২৩ এএম says : 0
    মন্ত্রীরে কয়েক কোটি টাকা দিয়ে দে।
    Total Reply(0) Reply
  • NAhmed ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১:২৪ এএম says : 0
    ছিচকে দুর্নীতিবাজ ধরে বড় বড় ব্যাংক ডাকাত, টাকা পাচারকারী, বাংলাদেশ ব্যাংকের ফরেন রিজার্ভ লুট, শেয়ারবাজার লুটেরাদের এড়িয়ে যাওয়া হচ্ছে। এক কথায় পাবলিককে বোকা বানানোর প্রকল্প এটি.
    Total Reply(0) Reply
  • আমিরুল আলম খান ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১:২৫ এএম says : 0
    খুব ভালো। চলতে থাকুক। তবে যাদের গায়ে রাজনীতির চাদর তাদেরও ধরেন। চুনো পুঁটিরা এমনিতেই ঠান্ডা হয়ে যাবে। যারা লুটের টাকার এভারেস্ট বানালো, ব্যাংকের টাকা লুটে নিল তাদেরও ধরুন।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১:২৬ এএম says : 0
    দুনীতিবাজদের বিরুদ্ধে সর্বাত্মোক যুদ্ধ ঘোষণা করা হোক, সরকারি কর্মকর্তা ও এমপি মন্ত্রীদের দিয়ে শুরু করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • মির্জা সানিমুল হুদা ২১ জানুয়ারি, ২০১৯, ১:২৭ এএম says : 0
    দুর্নীতিবাজ তুমি পালাবা কোথায়। পুলিশ তোমাকে খুঁজে বের করবেই। কেবল তো খেলা শুরু..
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন