Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৫ জুন ২০১৯, ১১ আষাঢ় ১৪২৬, ২১ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

নতুন নিয়ম চালু করছে হোয়াটসঅ্যাপ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২২ জানুয়ারি, ২০১৯, ৬:১৭ পিএম

হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজিং সার্ভিস ব্যবহার করে ভুয়া খবর ছড়ানো কিছু দেশের জন্য একটা বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। একশ কোটির বেশি মানুষের দেশ ভারতে সমস্যাটি রীতিমতো মহামারির আকার নিয়েছে। সেটি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ। বিশ্বব্যাপী ভুয়া খবর প্রচার প্রতিহত করতে এখন সক্রিয় হয়েছে কোম্পানিটি।
সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, তা হলো একজন হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারী একটি বার্তা পাঁচবারের বেশি ‘ফরওয়ার্ড’ করতে বা অন্যদের পাঠাতে পারবেন না। ভারতে ছয়মাস আগেই এই নিয়ম চালু করা হয়েছে।
হোয়াটসঅ্যাপে ছড়ানো গুজবকে কেন্দ্র করে মানুষ পিটিয়ে হত্যার ঘটনা সেখানে ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। তারই প্রেক্ষিতে সেখানে এই নিয়ম করা হয়। এখন সেই নিয়ম বিশ্বব্যাপী সকল হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহারকারীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে। এর আগে ২০ বার একটি মেসেজ ‘ফরওয়ার্ড’ করা যেতো। হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপগুলোর জন্যেও থাকছে বিশেষ নিয়ম। এখন থেকে হোয়াটসঅ্যাপের কোন গ্রুপ খুলতে চাইলে তাতে ২৫৬ জনের বেশি সদস্য হতে পারবে না।
হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষ থেকে বিবিসিকে বলা হয়েছে ছয়মাস সতর্কভাবে মূল্যায়নের পরই তারা এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ফেইসবুকের মালিকানাধীন এই কোম্পানিটির একজন মুখপাত্র বলছিলেন, ‘এতে ফরওয়ার্ড করা বার্তার হার কমে এসেছে। এর ফলে মানুষজন নিজের ঘনিষ্ঠদের সাথে ব্যক্তিগত বার্তা পাঠানোর ব্যাপারে বেশি মনোযোগী হবে। ব্যবহারকারীদের কাছ থেকে তাদের অভিজ্ঞতা জানার পর ভাইরাল কোন মেসেজ কিভাবে সামাল দেয়া যায় সে ব্যাপারে নতুন ব্যবস্থা চিন্তা করা হবে।’
কাছাকাছি সময় নানা ধরনের নেতিবাচক প্রচারণা ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ার জন্য ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছে হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেইসবুক। গত সপ্তাহে ফেইসবুক ঘোষণা করেছে যে তারা ইউক্রেন, মধ্য ও পূর্ব ইউরোপে ৫০০ ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে। এই অ্যাকাউন্টগুলো থেকে পরিকল্পিতভাবে ভুয়া খবর ছড়ানো হতো বলে অভিযোগ করেছে ফেইসবুক। তবে হোয়াটসঅ্যাপের ক্ষেত্রে বড় সুবিধা যেটি সেটিই ভুয়া খবর ঠেকানোর ক্ষেত্রে তাদের বড় সমস্যাও বটে।
হোয়াটসঅ্যাপের বার্তাগুলো ‘এনক্রিপটেড’ এন্ড টু এন্ড পদ্ধতি ব্যবহার করে। অর্থাৎ একটি বিশেষ কোডের কারণে সেটি বার্তা প্রেরক ও যিনি বার্তাটি পেলেন তারা ছাড়া তৃতীয় কোন পক্ষে সেটি পড়তে পারেনা। অর্থাৎ হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষও চাইলে গোপনে আপনার অ্যাকাউন্টে ঢুকে এই বার্তার বিষয়বস্তু পড়তে পারবে না। এতে করে কেউ যদি ভুয়া খবর ছড়ায় তা পড়া হোয়াটসঅ্যাপের পক্ষে সম্ভব নয়।
তবে ভারতের গণমাধ্যমে গত বছর একটি খবর বের হয়েছিলো। যাতে বলা হয়েছিলো দেশটির সরকার হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজের উপর কড়াকড়ি করতে ফেইসবুককে বাধ্য করতে চায়। ভারত সরকার এনক্রিপশনের ব্যাপারে আপত্তি তুলেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রযুক্তি


আরও
আরও পড়ুন