Inqilab Logo

রোববার, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২২ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মুস্তাফিজ

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

২০১৫ সালের ক্রিকেটে তার আবির্ভাবটা হয়েছে ধূমকেতুর মত। সেবছরই নজরকাড়া পারফরম্যান্সে আইসিসির বর্ষসেরা একাদশেও নিজের নাম লিখেয়েছিলেন মুস্তাফিজুর রহমান। তার পর থেকে বড় চোটের ধাক্কা তো ছিলই, অভিষেক বছরের মতো সেই দুর্বোধ্য বোলিং হয়তো নেই। তবে গতবছর ছিল মুস্তাফিজুর রহমানের নিজেকে অনেকটা ফিরে পাওয়ার বছর। পারফরম্যান্সে ছিল সেটির প্রতিফলন। পেলেন স্বীকৃতিও। আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশে জায়গা পেয়েছেন বাংলাদেশের বাঁহাতি পেসার।
গত বছর ২১.৭২ গড়ে ১৮ ওয়ানডেতে ২৯ উইকেট নিয়েছেন মুস্তাফিজ। সেপ্টেম্বরে এশিয়া কাপে ১৮.৫০ গড়ে ১০ উইকেট নিয়ে ছিলেন যৌথভাবে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি। সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৪৩ রানের ৪ উইকেট নেওয়ার পর ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে ১০ ওভারে মাত্র ৩৮ রান দিয়ে পেয়েছিলেন ২ উইকেট। তার একাদশে জায়গা পাওয়া নিয়ে আইসিসি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে লিখেছে, ‘সুইং করানোর সামর্থ্য ও চতুর স্লোয়ার বল মিলিয়ে তিনি দারুণ এক ওয়ানডে বোলার।’
গতকাল ২০১৮ সালের বর্ষসেরা টেস্ট ও ওয়ানডে একাদশের নাম ঘোষণা করেছে আইসিসি। দুটি দলেরই নেতৃত্ব পেয়েছেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। পাশাপাশি বর্ষসেরা ক্রিকেটারের স্যার গ্যারফিল্ড সোবার্স ট্রফিও জিতে নিয়েছেন বিরাট কোহলি। আইসিসি শীর্ষ তিন ক্যাটাগরির পুরস্কার কোনো ক্রিকেটার একসঙ্গে জিতলেন এই প্রথমবার।
গত বছর ১৩ টেস্টে ৫ সেঞ্চুরিতে ৫৫.০৮ গড়ে ১ হাজার ৩২২ রান করেন কোহলি, ওয়ানডেতে ১৪ ম্যাচে ৬ সেঞ্চুরিতে ১ হাজার ২০২ রান করেন ১৩৩.৫৫ গড়ে। ২০১৮ সাল শেষ করেছেন তিনি আইসিসি টেস্ট ও ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থেকে। গতবারও আইসিসির বর্ষসেরা ক্রিকেটার হয়েছিলেন কোহলি, জিতেছিলেন বর্ষসেরা ওয়ানডে ক্রিকেটারের খেতাবও। তবে বর্ষসেরা টেস্ট ক্রিকেটার হয়েছিলেন স্টিভেন স্মিথ।
মূলত গত বছরের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে সেরা একাদশ নির্বাচন করা হয়। আইসিসি সদস্য দেশগুলো থেকে এক জন করে সাংবাদিক, ফটোসাংবাদিক ও ধারাভাষ্যকারদের ভোটে নির্বাচন করা হয় এ একাদশ। সেই বিচারে গত বছর দারুণ পারফরম্যান্স করেও জায়গা পাননি সাকিব আল হাসান। ২০১৮ সালে মোট ১৫টি ম্যাচে মাঠে নেমেছিলেন সাকিব। ৩৮.২৩ গড়ে বাঁহাতি এই অলরাউন্ডারের ব্যাট থেকে এসেছে ৪৯৭ রান। বল হাতেও ছিলেন উজ্জ্বল। ৪.৪৮ ইকোনমিতে পেয়েছেন ২১টি উইকেট। গড় ২৬.৮১।
এবার বর্ষসেরা টি-টোয়েন্টি পারফরম্যান্সের পুরস্কার জিতেছেন অ্যারন ফিঞ্চ। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে হারারেতে ১০ ছয় ও ১৬ চারে ৭৬ বলে ১৭২ রানের বিষ্ফোরক ইনিংসটা তাকে এনে দিয়েছে এই সম্মান। ২০১৪ সালেও অস্ট্রেলিয়ান এই ওপেনার পুরস্কার পেয়েছিলেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৫৬ রানের ইনিংস খেলে। বর্ষসেরা উঠতি ক্রিকেটারের পুরস্কার পেয়েছেন ভারতের কিপার ব্যাটসম্যান রিশাভ পান্ত। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আবির্ভাবেই যিনি সাড়া জাগিয়েছেন দারুণভাবে। আইসিসির সহযোগী দেশগুলোর বর্ষসেরা ক্রিকেটার স্কটল্যান্ডের ক্যালাম ম্যাক্লাউড। বর্ষসেরা আম্পায়ারারের ডেভিড শেফার্ড ট্রফি জিতেছেন কুমার ধর্মসেনা। এর আগে ২০১৩ সালেও সেরা আম্পায়ার হয়েছিলেন এই শ্রীলঙ্কান। স্পিরিট অব দ্য ক্রিকেট অ্যাওয়ার্ড জিতেছেন কেন উইলিয়ামসন। দর্শক-সমর্থকদের ভোটে বছরের সেরা মূহুর্ত নির্বাচিত হয়েছে নিউ জিল্যান্ডে ভারত অনূর্ধ্ব-১৯ দলের যুব বিশ্বকাপ জয়।
বর্ষসেরা ওয়ানডে একাদশ : রোহিত শর্মা, জনি বেয়ারস্টো, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), জো রুট, রস টেইলর, জস বাটলার, বেন স্টোকস, মুস্তাফিজুর রহমান, রশিদ খান, কুলদীপ যাদব, জাসপ্রিত বুমরাহ।
বর্ষসেরা টেস্ট একাদশ : টম ল্যাথাম, দিমুথ করুনারতে্ন, কেন উইলিয়ামসন, বিরাট কোহলি (অধিনায়ক), হেনরি নিকোলস, রিশাভ পান্ত, জেসন হোল্ডার, কাগিসো রাবাদা, নাথান লায়ন, জাসপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ আব্বাস।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে মুস্তাফিজ
আরও পড়ুন