Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫ ফাল্গুন ১৪২৫, ১১ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

রয়টার্সের জরিপ : ধীরগতিতে সম্প্রসারিত হবে উপসাগরীয় অর্থনীতি

কূটনৈতিক সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:১১ পিএম

তেল উৎপাদন হ্রাস, জ্বালানির দামে পড়তি এবং বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির ধীরগতির কারণে চাপের মুখে আছে উপসাগরীয় অঞ্চলের অর্থনীতিগুলো। সম্প্রতি রয়টার্স প্রকাশিত এক ত্রৈমাসিক জরিপে বলা হয়েছে, উপসাগরীয় দেশগুলোর অর্থনীতি পূর্বে প্রকাশিত পূর্বাভাসের চেয়ে ধীরগতিতে সম্প্রসারিত হবে।
জরিপে বলা হয়, উপসাগরীয় অঞ্চলের শীর্ষ অর্থনীতি এবং বিশ্বের শীর্ষ তেল রফতানিকারক দেশ সউদী আরবের জিডিপি ২০১৯ সালে ২ দশমিক ১০ শতাংশ এবং ২০২০ সালে ২ দশমিক ২০ শতাংশ সম্প্রসারিত হবে। তিন মাস আগের পূর্বাভাসে বলা হয়েছিল, দেশটির অর্থনীতি ২০১৯ সালে ২ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ২০২০ সালে ৩ শতাংশ সম্প্রসারিত হবে।
ব্যারেলপ্রতি ব্রেন্ট ক্রুডের ভিত্তি মূল্য গত বছর ছিল গড়ে ৭১ দশমিক ৬০ শূন্য ডলার।
কিন্তু চলতি বছরের এ পর্যন্ত ব্রেন্ট ক্রুডের গড় মূল্য দাঁড়িয়েছে ৬০ ডলারের কাছাকাছি। অর্থনীতিবিদরা অনুমান করছেন, চাহিদাস্বল্পতা এবং অতিরিক্ত সরবরাহের কারণে ২০১৯ সালে ব্যারেলপ্রতি ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ৭০ ডলারের নিচে থাকবে।
ওপেকভুক্ত দেশগুলো এবং ওপেকের বাইরের কিছু জোট তেলের সরবরাহ কমিয়ে এনেছে। এর ফলে তেলের দাম বাড়ার কিছুটা সম্ভাবনা থাকলেও অর্থনীতিবিদরা বলছেন, তা জিডিপির জন্য সুফল বয়ে আনবে না।
আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল গত সোমবার তিন মাসের মধ্যে দ্বিতীয়বারের মতো ২০১৯ ও ২০২০ সালের বৈশ্বিক অর্থনৈতিক পূর্বাভাস কমিয়ে এনেছে। আইএমএফের পূর্বাভাস অনুযায়ী, বৈশ্বিক অর্থনীতি ২০১৯ সালে ৩ দশমিক ৫০ শতাংশ এবং ২০২০ সালে ৩ দশমিক ৬০ শতাংশ সম্প্রসারিত হবে।
তেলের দাম ও উৎপাদন হ্রাস এবং বৈশ্বিক প্রবৃদ্ধির দুর্বল পূর্বাভাসের কথা উল্লেখ করে মেনা রিসার্চের প্রধান খাতিজা হক জানান, মূলত ছয় থেকে নয় মাস আগে আমরা যতটা আশাবাদী ছিলাম, এখন ততটা আশাবাদী নই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ