Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ০৭ চৈত্র ১৪২৫, ১৩ রজব ১৪৪০ হিজরী।

সমন্বিত সহযোগিতায় আমরা দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ : এরদোগান

তুর্কি সামরিক ঘাঁটিতে ইরাকিদের হামলা : কিশোর নিহত

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ জানুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম


তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেপ এরদোগান বলেছেন, সিরিয়ার মানিবিজ, তাল রাইফাত এবং ইউফ্রেটিসের পূর্ব অঞ্চল সন্ত্রাসীদের কাছ থেকে মুক্ত করার পর তুরস্কে বসবাসরত লাখ লাখ সিরিয়ান নাগরিক তাদের আবাসভূমিতে ফিরে যেতে পারবে। ‘আমরা রাশিয়া, ইরান, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং বিশেষ করে সিরিয়ার জনগণ সমন্বিত সহযোগিতার মাধ্যমে আমাদের অঞ্চল বিপর্যয়ের হাত থেকে বাঁচাতে দৃঢ় সংকল্পবদ্ধ।’ দেশটির দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের গাজানিয়ান্তেপ প্রদেশে ক্ষমতাসীন জাস্টিস এÐ ডেভেলপমেন্ট (একে) পার্টির মেয়র প্রার্থীদের পরিচিতি উপলক্ষে আয়োজিত এক সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। এরদোগান এও বলেন, উত্তর সিরিয়ায় ইউফ্রেটিসের পূর্বাঞ্চলে সন্ত্রাসীদের মূলোৎপাটন করতে একটি সম্ভাব্য সামরিক অভিযানের জন্য সমস্ত প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে তুরস্ক। যা আঙ্কারা বলেছে যুদ্ধবিরোধী দেশটিতে আঞ্চলিক সততা পরিবেশন করবে। সিরিয়ার আল-বাবে আইএসআইএলের ৩০০০ সদস্যকে দমন করার কথা বলে উল্লেখ করে তুর্কি প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেন, ‘এরই মধ্যে সিরিয়ার সন্ত্রাসকবলিত এলাকা থেকে সন্ত্রাসীদের দমনের পর তিন লাখ সিরিয়ান নাগরিক তাদের দেশে ফিরেছে।’ অপর এক খবরে বলা হয়, ইরাকের উত্তরাঞ্চলে তুরস্কের একটি সামরিক ঘাঁটিতে স্থানীয় কুর্দি লোকজন হামলা চালিয়েছে এবং ১৩ বছরের এক কিশোর নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে। এ সময় তুর্কি সেনা ও কুর্দি বিক্ষোভকারীদের মধ্যে দফায় দফায় সংঘর্ষ হয়। শনিবার শেষ বেলায় স্থানীয় কুর্দি লোকজন তুর্কি সামরিক ঘাঁটির সামনে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ করে কিন্তু তাদের ওপর তুরস্কের সেনারা গুলিবর্ষণ করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। কুর্দিস্তানের ওপর বিমান হামলা বন্ধের দাবিতে শালাদজে শহরের তুর্কি সামরিক ঘাঁটির সামনে ইরাকি কুর্দিরা বিক্ষোভের আয়োজন করে। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে তুর্কি ঘাঁটিতে থাকা বহু সামরিক গাড়ি ও অন্য সম্পদে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। কুর্দিস্তানের ওপর তুরস্ক মাঝেমধ্যেই বিমান হামলা চালিয়ে আসছে এবং সেখানে সামরিক ঘাঁটি গড়ে তুলেছে। এসবের বিরুদ্ধে ক্ষিপ্ত হয়ে কুর্দিরা বিক্ষোভের আয়োজন করে। তুরস্ক বলছে, কুর্দি গেরিলাদের দমনের জন্য বিমান হামলা অপরিহার্য। তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, শালাদজে শহরে মোতায়েন সেনারা ঘাঁটি রক্ষা করেছে। হামলার জন্য তুর্কি মন্ত্রণালয় পিকেকে গেরিলাদেরকে দোষারোপ করেছে। আনাদোলু, পার্সটুডে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এরদোগান


আরও
আরও পড়ুন