Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ০৭ জুন ২০২০, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ১৪ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

বিসিক শিল্প নগরী এখন আবাসিক এলাকা

প্রকাশের সময় : ১২ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

নেছারাবাদ (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা ঃ পিরোজপুরের নেছারাবাদের স্বরূপকাঠি বিসিক শিল্প নগরীতে নামমাত্র বেশ কিছু শিল্পোদ্যোক্তা শিল্পের পরিবর্তে দেদারছে বসতবাড়ী নির্মাণ করে আবাসিক এলাকা বানিয়েছেন। শিল্প মালিকদের উদ্যোক্তাহীন মনোভাব ও বিসিক ম্যানেজার গোবিন্দ চন্দ্র সরকারের দায়িত্বহীনতায় এখন উপজেলার সন্ধ্যা নদীর পশ্চিম পাড়ে সুটিয়াকাঠি মৌজাধীন এলাকায় ২৪.৭৪ একর জায়গায় অবস্থিত শিল্প নগরীতে বাসাবাড়ী বেড়ে গিয়ে পরিণত হয়েছে আবাসিক এলাকায়।
১৯৬০-৬১ সালে জেলার একমাত্র বৃহদাকার এ বিসিক শিল্প নগরীতে ১৬১টি প্ল­ট বরাদ্দ থাকলেও ৫৩টি শিল্প মালিক প্ল­ট নিয়ে কোন প্রকার শিল্প তৈরী না করে ওই জায়গায় ঘরদোর তৈরী করে বাসা ভাড়া দিয়ে যাচ্ছেন। বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে বিসিকের কয়েকজন শিল্প মালিক ও কর্মকর্তা গোবিন্দ চন্দ্র সরকারের সাথে কথোপকথনে এসব তথ্য বেরিয়ে আসে।
স্বরূপকাঠির বিসিক শিল্প নগরীর নানা শিল্প মালিকদের অভিযোগে জানা যায়, বিসিকে প্ল­ট বরাদ্দ পাওয়া বেশ কয়েকজন শিল্প উদ্যোক্তা নিচু ভূমিতে মাটি কেটে তাদের (শিল্প উদ্যোক্তারা) মূলধনের একটি বিরাট অংশ খরচ করে মাটি কাটার কয়েক মাসের মধ্যেই তাদেরকে বিসিকের প্ল­ট ছাড়ার নোটিশ দেওয়ায় অনেকেই লোকসানে পড়েছেন এবং নতুন করে ৫৩ জনকে প্ল­ট ছাড়ার নোটিশ দিয়েছেন। এসময় পানি, ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ যোগাযোগ ব্যবস্থার চরম দুরাবস্থার কথাও জানা যায় শিল্প মালিকদের কাছ থেকে।
এ ব্যাপারে বিসিক ম্যানেজার গোবিন্দ চন্দ্র বলেন, বিসিকে যাদের প্ল­ট ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে; তারা কেউই বিসিকে শিল্প প্রতিষ্ঠান না গড়ে নিয়ম বহির্ভূতভাবে বাসা বাড়ী তোলে ভাড়া দিচ্ছেন। যা সম্পূর্ণ বেআইনি। বিসিক ম্যানেজার আরো জানান, বর্তমানে বিসিকে মোট ৭৮টি ইউনিট রয়েছে যারমধ্যে, ৬০ টি ইউনিট চালু থাকলেও ২৮টি ইউনিট বন্ধ রয়েছে। সরেজমিনে গত মঙ্গলবার বিসিক এলাকা ঘুরে দেখা যায়, ওখানে পয়নিষ্কাশনের জন্য যে ড্রেন রয়েছে তা পরিষ্কারের অভাবে দীর্ঘ বছর ধরে ময়লা আবর্জনায় একাকার, রয়েছে বন জঙ্গল ও মশা মাছির উপদ্রব। যোগাযোগ ব্যবস্থার জন্য একমাত্র যে খালটি রয়েছে তাও বাইরের কাঠ ব্যবসায়ীদের দখলে। অভিযোগ, বিসিকের ভিতরে দখল হওয়া ওই খালটিতে ম্যানেজার গোবিন্দ চন্দ্র সরকার কাঠ ব্যবসায়ীদের নিকট ভাড়া দিয়ে খালে গাছ রাখার অনুমতিতে খালটি ক্রমেই অবৈধ দখলে সঙ্কুচিত হয়ে আসছে। বিসিকে শিল্প মালিক বাচ্চু মেম্বরের শ্রমিকেরা ভিতরে বসতঘর তুলে তার মধ্যে বছর ধরে বসবাস করে আসছেন। এছাড়াও বিভিন্ন প্ল­ট মালিকেরা একসারিতে বসতঘর তুলে উপজেলার নানা পেশাজীবী লোকের কাছে ঘরগুলো ভাড়া দিচ্ছেন। যারা কেউই কোন শিল্পের সাথে জড়িত নন। ম্যানেজার এসব অবলোকন না করে তিনি তার অপছন্দের লোকদেরকে প্ল­ট ছাড়ার নোটিশ দিয়েছেন।
এ ব্যাপারে ম্যানেজারকে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে বিসিকে কেউই শতভাগ নিয়মের মধ্যে নেই। তবে, যে ৫৩ জনকে প্লøট ছাড়তে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তারা কোন নিয়মের ভিতরই নেই। খাল দখলের ব্যাপারে তিনি বলেন, তার একার পক্ষে কোন কাজই সুষ্ঠুভাবে করা সম্ভব নয়।
এমতাবস্থায় জেলার একমাত্র বিসিক শিল্প নগরীকে রুগ্ন দশার হাত থেকে বাঁচাতে এলাকাবাসীসহ নানা ছোট বড় শিল্প উদ্যোক্তারা বিসিকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।



 

Show all comments
  • SHAMAL BARAL ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৩৪ পিএম says : 0
    আজকে যারা প্লট বরাদ্দ নিয়ে,বসতবাড়ি করে শিল্পকে ধংশের দিকে ঠেলে দিছে তাদের আইনের আওতায় আনা হোক।এবং যারা সঠিক উদ্দোগ নিয়ে আসবে তাদের প্লট বরাদ্দ দেয়া হোক। এবং প্রশাসন কঠিন ভাবে মনিটরিং করলে এই এলাকা উন্নয়ন সম্ভব।
    Total Reply(0) Reply
  • SHAMAL BARAL ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯, ১:৩৫ পিএম says : 0
    আজকে যারা প্লট বরাদ্দ নিয়ে,বসতবাড়ি করে শিল্পকে ধংশের দিকে ঠেলে দিছে তাদের আইনের আওতায় আনা হোক।এবং যারা সঠিক উদ্দোগ নিয়ে আসবে তাদের প্লট বরাদ্দ দেয়া হোক। এবং প্রশাসন কঠিন ভাবে মনিটরিং করলে এই এলাকা উন্নয়ন সম্ভব।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিসিক শিল্প নগরী এখন আবাসিক এলাকা
আরও পড়ুন