Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

ঐক্যফ্রন্টের ঐক্য বিনষ্টের অপচেষ্টা চলছে-ড. কামাল হোসেন

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩০ জানুয়ারি, ২০১৯, ৭:৩৩ পিএম

জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ‘শতভাগ’ ঐক্যবদ্ধ বলে দাবি করে ড. কামাল হোসেন বলেছেন, এ ঐক্য আরও সুদৃঢ় করতে আমরা কাজ করছি। আমাদের ঐক্য ১৬ কোটি মানুষকে নিয়ে। সেই ঐক্য অবশ্যই আছে। ঐক্যফ্রন্টের এই ঐক্যকে বিনষ্ট করারও অপচেষ্টা চলছে। এ বিষয়ে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর আরামবাগে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গণফোরামের পঞ্চম কাউন্সিলের প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ড. কামাল হোসেন এ কথা বলেন। ফ্রন্টের শীর্ষ নেতা এই দাবি করেন। তবে তিনি দলের দুই বিজয়ী সদস্যের একাদশ সংসদের যাওয়া না যাওয়া নিয়ে কোনো কথা বলেননি। চিকিৎসা শেষে দেশে ফেরার পরদিনই সংগঠনের এক সভায় যোগ দিয়ে তিনি এই বক্তব্য রাখলেন।
ড. কামাল হোসেন বলেন, জনগণের ঐক্যকে আরও সুদৃঢ় করতে আমরা সাংগঠনিক তৎপরতাকে বৃদ্ধির উদ্যোগ নিয়েছি। তারই আলোকে আমরা ইউনিয়ন থেকে থানা, জেলা এবং কেন্দ্র পর্যন্ত দলকে আরও শক্তিশালি করতে চাই।
গণফোরাম সভাপতি বলেন, আমরা জনগণের ঐক্যকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। জনগণ দেশের মালিক এটা সবার মধ্যে জাগ্রত করতে চাই। জনগণ ইতোমধ্যে এ ব্যাপারে সজাগ হয়েছে। আমি তা বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে দেখেছি। রাস্তায় আমরা হাঁটি। দেখুন জিজ্ঞাসা করুন- এই দেশের মালিক জনগন কিনা। কেউ একজন কী বলবে যে- তিনি মালিক না। জনগণের এই যে ঐক্য এই ঐক্য তো আমাদের মধ্যে আছেই। এটা আরো সুদৃঢ়। এক নম্বর আমাদের কথা হলো জনগন ক্ষমতার মালিক, জনগন জাতীয় সম্পদের মালিক, জনগন আইনের শাসন চায়- চলেন না আমরা পরীক্ষা করে দেখি সেই ঐক্য আছে কিনা। অবশ্যই আছে। তিনি অশুভ শক্তির বিরুদ্ধে সকলকে সজাগ থাকার আহবান জানিয়েছেন।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক বলেন, দেশের সম্পদ কেউ যাতে আত্মাসাত করতে না পারে, অপচয় করতে না পারে সেজন্য আমাদের জনগনকে সংগঠিত করতে হবে। নানা রকমের যেসব অশুভ শক্তি আছে, অশুভ শক্তির তৎপরতা থেকে আমাদেরকে সজাগ থাকতে হবে, গণবিরোধী শক্তি যারা সম্পদ আত্মাসাত করতে চায় তাদের ব্যাপারে আমাদের সংগঠিত হতে হবে। জনগনের ঐক্য দিয়ে জনগনের মালিকানা রক্ষা করা যাবে, জাতীয় স্বার্থ ও জনগনের স্বার্থ রক্ষা করা যাবে। এজন্য তৃনমূল পর্যায় থেবে দলকে সংগঠিত করার তিনি আহবান জানান।
কাউন্সিলের প্রসঙ্গ টেনে গণফোরাম সভাপতি বলেন, আমাদের ঐক্যের লক্ষ্য হলো সবাইকে নিয়ে আমরা শক্তি সঞ্চয় করবো, সংগঠনকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেবো। জাতীয় ঐক্যমত যেগুলো আছে তাকে নিয়ে ঐক্য গড়ে তোলা হবে। জেলায় জেলায়,থানায় থানায়, ইউনিয়ন ইউনিয়নে গিয়ে দলকে সংগঠিত করা হবে, জনগনকে সংগঠিত করা হবে।
একাদশ সংসদ অধিবেশনের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, এই সংসদের ব্যাপারে সব কিছু জেনে বিচার-বিশ্লেষন করে পরবর্তীতে আমরা বক্তব্য রাখবো।
গণফোরামের নির্বাচিত দুই সংসদ সদস্য শপথ নেবে কিনা প্রশ্ন করা হলে কামাল বলেন, এটা এখানে বলার ইস্যু নয়। এ বিষয়ে আমরা সংবাদ সম্মেলনে পরে বলব। এই মুহুর্তে আমরা জাতীয় ঐক্যকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেয়ার কথা বলছি। আমার আবেদন সারাদেশের মানুষকে সারা জাতিকে আমরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে যে মূল লক্ষ্য জনগন এদেশের মালিক, এদেশের সম্পদের মালিক এসবকে কেন্দ্র করে আমরা সংগঠিত হই, জেলায় জেলায় থানায় থানায়। সারাদেশে আমরা এটাকে কার্যকর করতে ভুমিকা রাখবো। আগামী ২৩ ও ২৪ মার্চ ঢাকায় গণফেরামের পঞ্চম কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।
দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আওম শফিকউল্লাহর পরিচালনায় এই প্রস্তুতি সভায় দলের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, প্রেসিডিয়াম সদস্য রেজা কিবরিয়া, অধ্যাপক আবু সাঈয়িদ, মোকাব্বির খান বক্তব্য রাখেন।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মফিজুল ইসলাম খান কামাল, এসএম আলতাফ হোসেন, জগলুল হায়দার আফ্রিক, আইয়ুব খান ফারুক, রফিকুল ইসলাম পথিক, রওশন ইয়াজদানি, মাহবুব হোসেন, কাজী হাবিব প্রমূখ। অসুস্থ সহধর্মিনীকে নিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু বিদেশে রয়েছেন।
কাউন্সিলের প্রস্তুতি কমিটি গঠন
সুব্রত চৌধুরীকে আহবায়ক ও আওম শফিকউল্লাহকে সদস্য সচিব করে ১০১ সদস্যের পঞ্চম জাতীয় কাউন্সিলের প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ড. কামাল হোসেন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ