Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৩ আশ্বিন ১৪২৬, ১৮ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

প্রয়োজন নেই পরিহাসের চা-চক্রে যাওয়ার

ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক শেষে মির্জা ফখরুল

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:১০ এএম

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ভোট ডাকাতির প্রহসনের নির্বাচনের পর চা-চক্রের আয়োজন পরিহাস ছাড়া আর কিছুই নয়। এই চা-চক্রে যাওয়ার প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করি না। এছাড়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণফোরামের দুই নির্বাচিত সদস্যকে শপথ না নেওয়ার দলীয় সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন ড. কামাল হোসেন। গতকাল রাজধানীর মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে গণফোরামের সভাপতি এই কথা জানান। ড.কামাল বলেন, দলীয় সিদ্ধান্ত উনাদের(দুইজনকে) স্পষ্ট করে বলে দেয়া হয়েছে যে, এটা (শপথ গ্রহন) করবেন না।
প্রধানমন্ত্রীর চা-চক্রে অংশগ্রহণ করবেন কি না এ প্রশ্নের জবাবে ফ্রন্টের মূখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, এই ব্যাপারে আজকের সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে যে, ভোট ডাকাতির নির্বাচনের পরে হাজার হাজার নেতা-কর্মীরা যারা আজকে কারাগারে রয়েছেন, আহত হয়েছেন, নিহত হয়েছেন, প্রার্থীরা অনেকে আহত হয়েছেন। সেই অবস্থার প্রেক্ষিতে যে আয়োজন, এই চা-চক্রের যে আয়োজন এটাকে আমরা মনে করি এটা একটা পরিহাস মাত্র। সেজন্য এই চা-চক্রে যাওয়ার প্রয়োজন আছে বলে আমরা মনে করি না।
এ ছাড়া বৈঠকে একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভোট ডাকাতির প্রতিবাদে এবং নতুন নির্বাচনের দাবিতে ফেব্রæয়ারি ঢাকায় কালো ব্যাজ ধারণসহ দুইদিনের কর্মসূচির সিদ্ধান্ত হয়েছে। ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই কর্মসূচী ঘোষনা করেন। কর্মসূচির মধ্যে আছে ৬ ফেব্রæয়ারি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ভোট ডাকাতির প্রতিবাদে ও নতুন নির্বাচনের দাবিতে কালো ব্যাজ ধারণ এবং ২৪ ফেব্রæয়ারি গণশুনানি।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হযেছে ৩০ ডিসেম্বর যে ভোট ডাকাতির প্রহসনের নির্বাচন হয়েছে এর প্রতিবাদে আগামী ৬ ফেব্রæয়ারি বিকাল তিনটা থেকে চারটা পর্যন্ত জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে কালো ব্যাজ ধারণ করা হবে। ২৪ ফেব্রæয়ারি প্রার্থী ও ভুক্তভোগীর অংশ গ্রহনে গণশুনানি হবে। এর স্থান পরে জানানো হবে।
গত বুধবার একাদশ সংসদের যাত্রা শুরুর দিন সকালে বিএনপি জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে এক ঘন্টা মানববন্ধন করে এই ফলাফল বাতিলের দাবি জানিয়ে নতুন নির্বাচনের দাবি জানায়।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহবায়ক ড. কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে বৈঠকে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেএসডির আসম আবদুর রব, আবদুল মালেক রতন, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, শহিদুল্লাহ কায়সার, জাহেদ-উর রহমান, গণফোরামের এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ড. রেজা কিবরিয়া, জগলুল হায়দার আফ্রিক, বিকল্পধারার নুরুল আমিন ব্যাপারী, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের ইকবাল সিদ্দিকী উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • Helal Masud ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:১৮ এএম says : 0
    এতো দিনে বুদ্ধির আক্কেল দাঁত উঠেছে
    Total Reply(0) Reply
  • Mamun Ahmed Ullah ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:১৮ এএম says : 0
    2018 সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচন হচ্ছে বাঙালি জাতির সাথে পৃথিবীর ইতিহাসের সবচেয়ে নিকৃষ্ট পরিহাস!
    Total Reply(0) Reply
  • Sariful Sariful ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:১৯ এএম says : 0
    রাইট সিদ্ধান্ত
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২০ এএম says : 0
    আওয়ামী লীগের মানববন্ধন দেখেছিলাম গাবতলি টু সদরঘাট। আর এখন মানববন্ধন হয় প্রেসক্লাব টু প্রেসক্লাব!!
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২০ এএম says : 0
    সরকার এবার আতঙ্কে হার্টফেল না করলেই হয়। একেবারে কালো ব্যাজ ধারণ...!!! এ কি চাট্টিখানি কথা? সংলাপের পার্টনার খুঁজে পাননি বুঝি?
    Total Reply(0) Reply
  • msIqbal ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২০ এএম says : 0
    কয়দিন পর পর কর্মসূচী দিয়ে আবার তা বাতিল করে কী সুখ যে পান আপনারা! মিডিয়া কভারেজের আরো অনেক রাস্তাই তো আছে!
    Total Reply(0) Reply
  • Nurul Islam Chowdhury ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২০ এএম says : 0
    Alas! poor boy, still dreaming in vain. Be positive, join the assembly, tell all your pains to the public.
    Total Reply(0) Reply
  • Md Shakil ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২১ এএম says : 0
    ৩০ ডিসেম্বর ‘ভোট ডাকাতি’ ও ‘প্রহসনের নির্বাচনের’ প্রতিবাদ চলবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohon Monohor ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২১ এএম says : 0
    সকাল–বিকাল সিদ্ধান্ত পরিবর্তন, কর্মসূচি পরিবর্তন করতে থাকলে নেতা-কর্মীরা তো মানসিক চাপে পড়ে আপনাদের উপর আস্থাহীন হয়ে পড়বে। এমনিতেই নেতা-কর্মীসহ জনগণ ঐক্যফ্রন্টের ভবিষ্যত চিন্তা করে কোনো কূল-কিনারা করতে পারতেছে না।
    Total Reply(0) Reply
  • MD.ABDUR RAHMAN ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২২ এএম says : 0
    জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সময়ের এবং সবচেয়ে ইতিবাচক জোট। এই জোটের সভামঞ্চ থেকে উচ্চারিত হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম, উচ্চারিত হয় আওয়ামী লীগ যাদের বরাবরই এড়িয়ে যায় সেই সৈয়দ নজরুল ইসলাম, তাজউদ্দিন আহমেদ, মনসুর আলি ও কামরুজ্জামানের নাম, শ্রদ্ধার সাথে আসে মুক্তিযুদ্ধের প্রধান সেনাপতি ওসমানীর নাম, যথাযথ সম্মান দেওয়া হচ্ছে বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের নাম। ঐক্যফ্রন্টের আলোচনায় আসেন শেরেবাংলা একে ফজলুল হক, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, মওলানা ভাসানী। বঙ্গবন্ধুকে দলীয় নেতা বানিয়ে ফেলেছিল আওয়ামী লীগ ঐক্যফ্রন্ট তাঁকে আবার মর্যাদার আসনে বসিয়েছে। দেশের এই গুণগত পরিবর্তন আনা ঐক্যফ্রন্টের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হবে। আর ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী বিপর্যয় কিন্তু জনগণের রায় নয়, এটা আওয়ামী লীগের ভোটদস্যুতার ফল। আওয়ামী লীগকে এর মাশুল দিতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২২ এএম says : 0
    ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের উচিত সারা দেশে ছড়িয়ে পড়া। ঢাকা বসে এই টুংটাং কর্মসূচিতে কিছু হবেনা।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ২:২৩ এএম says : 0
    Might is right. Until BNP has public might (strong support) all these plans and programs are worthless. Awamileague is laughing at all plans announced by BNP.
    Total Reply(0) Reply
  • Md. Mofazzal Hossain ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৮:৪২ এএম says : 0
    BNP should be determined which program they will actually observed. Mr. Rizvi is worthless, he declared many more program that was postponed after a certain time, supporters are embarrassed by such program. Stop Rizvi ! and go ahead Alal Vhai or any other joint secretary or Mirza Fakhrul himself.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ