Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ১৬ আগস্ট ২০২২, ০১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

জানুয়ারিতে প্রাণ গেল ১৩ জনের

লক্ষ্মীপুর সড়ক দুর্ঘটনা

লক্ষ্মীপুর জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:৫১ এএম

লক্ষ্মীপুরে বেড়েছে সড়ক দুর্ঘটনা। চালকরা মানছেনা ট্রাফিক আইন। চালকরা গাড়ি চালাচ্ছে বেপরোয়া গতিতে। নেই গাড়ির বৈধ কোনো কাগজপত্র। প্রশাসনের কিছু অসাধু কর্মকর্তাকে ম্যানেজ করে সড়কে অবাধে গাড়ি চালাচ্ছে তারা। এতে প্রতিনিয়তই ঘটছে সড়ক দুর্ঘটনা।

চলতি মাসেই লক্ষ্মীপুর সড়ক দুর্ঘটনায় নারী পুরুষ ও শিশুসহ প্রাণ হারিয়েছে ১৩ জন। আহত হয়েছেন প্রায় অর্ধশত যাত্রী। অদক্ষ চালক এবং দ্রুত ও বেপরোয়া গতিতে যান চলাচলের কারণে এ ধরনের ঘটনা ঘটেই চলছে বলে জানায় স্থানীয়রা। ২৪ জানুয়ারি বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পৌর শহরের দক্ষিণ তেমুহনী এলাকায় পিকআপ ভ্যান চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী মিজানুর রহমান রুবেল নামে এক স্কুল শিক্ষক নিহত হয়।
এর আগে ২৩ জানুয়ারী বুধবার ভোর রাতে সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের রতনপুর এলাকায় ট্রাক-সিএনজি’র মুখোমুখি সংঘর্ষে একই পরিবারের ৬ জনসহ ৭ জন নিহতের ঘটনা ঘটে। গত ২১ জানুয়ারী পৌর শহরের টুকা মিয়া পুল এলাকায় ব্যাটারী চালিত অটোরিকশা খাদে পড়ে সদর উপজেলা স্বাস্থ্য পরিদর্শক কাজী সিরাজ উদ্দিন নিহত হয়। ১৯ জানুয়ারী শনিবার সকালে উপজেলার নুরী গাছতলা এলাকায় লেগুনা ও পিকআপের ধাক্কায় মারা যান, আলাউদ্দিন স্বপন নামের এক পথচারী।

১৮ জানুয়ারী শুক্রবার সকালে সদর উপজেলার মজুচৌধুরীর হাট এলাকায় ট্রাক চাপায় নিহত হয় সুমি নামের এক গৃহবধূ। এ সময় স্বামী জয়দল বন্দসী মারাত্মক আহত হন। একই দিন সকালে মান্দারী বাজার সড়কে নিহত হন মো. শাহজাহান মিয়া। লক্ষ্মীপুর বিআরটিএর উপ-পরিচালক মো. আনোয়ার হোসেন জানান, কোন গাড়ি চালকই ট্রাফিক আইন মানছে না। জেলায় যেহেতু সড়ক কম, তাই একই সড়কে অনেক গাড়ি চলাচলের কারনেও সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম কারণ। লক্ষ্মীপুর পুলিশ সুপার আসম মাহতাব উদ্দিন জানান, আমরা চেষ্টা করছি, বিভিন্ন জায়গায় সচেতনতামূলক সভা করছি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জানুয়ারিতে প্রাণ গেল ১৩ জনের

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ