Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ১২ বৈশাখ ১৪২৬, ১৮ শাবান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

বই আর গানের টাকায় সংসার চলে মমতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৬:৩৬ পিএম

বইমেলার মঞ্চ থেকে নাম না করে কেন্দ্রের শাসকদল ও কেন্দ্রীয় এজেন্সিগুলির বিরুদ্ধে ক্ষোভপ্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে কলকাতার সল্টলেকের সেন্ট্রাল পার্কে ৪৩তম আন্তর্জাতিক বইমেলা উদ্বোধনের পর প্রধান অতিথির ভাষণে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা জানান, তার সংসার চলে বই ও গানের রয়্যালটির অর্থ দিয়ে।

যখন তিনি মেলার উদ্বোধন করছিলেন তখন আরেকদিকে তার আপ্ত সহায়ক মানিক মজুমদারের বাড়িতে তদন্ত চালায় সিবিআই। সেই সূত্রেই কেন্দ্রীয় এই গোয়েন্দা সংস্থার নাম না করে বইমেলা থেকে তিনি বলেন, ‘আমি সাত বারের সাংসদ ছিলাম। বিধায়ক আছি দুটো টার্ম। সাংসদ হিসেবে আমার যা পেনশন প্রাপ্য তাতে লক্ষাধিক টাকা উপার্জন করতে পারতাম। কিন্তু আমি সেই টাকা নিই না। আমার ৮৫টির উপর লেখা বই আছে। তার মধ্যে বেশ কয়েকটা বেস্টসেলার। তা আপনারা জানেন। আমি গানে সুর দিই। তা থেকে রয়্যালটি পাই। এমনকী বহু জায়গায় ছবি আঁকি। তা হয়ত ওরা জানে না। যদি না জানে তাহলে বলতে পারে। কিছু বই, ছবি ও ক্যালেন্ডার পাঠিয়ে দেব।’

তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী আরও বলেন, ‘আমার বই খুব বিক্রি হয়। কয়েকটি বই বেস্ট সেলার। আমার ইতিমধ্যে ৮০টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এই বইমেলায় বের হলো ৭টি। সব মিলিয়ে ৮৭টি বই বের হয়েছে। আগামী বইমেলায় আরও ১৩টি বই প্রকাশ হলে সেঞ্চুরি হয়ে যাবে। ১৩টি বই তিনি চটপট লিখে ফেলবেন বলে জানান মমতা।

মেলায় মমতা তার লেখা ৭টি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন। বইগুলোর মধ্যে একটি রাজনৈতিক বই আছে। নাম ‘বিপন্ন ভারত’। এ ছাড়া মোড়ক উন্মোচন করা হয় তার লেখা উর্দু শায়েরি ‘ইনসাফ’, ইংরেজিতে লেখা ‘মাইসেলফ’, শিশুদের জন্য ‘শিশুদোলা’, ‘আলোকবর্তিকা’, ‘আমি’ ও ‘নামাঞ্জলী’ নামের একটি সংকলিত বই। এদিন তাঁর আঁকা ছবির একটি অ্যালবামও প্রকাশ করা হয়। সূত্র: নিউজ এইটটিন।

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মমতা

২৫ এপ্রিল, ২০১৯
২৩ এপ্রিল, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন