Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৪ জুলাই ২০১৯, ০৯ শ্রাবণ ১৪২৬, ২০ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

‘মানসিকভাবে’ এগিয়ে রংপুর

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম


এবার বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে দুবারের দেখায় দুবারই একশোর নিচে গুঁড়িয়ে দিয়ে দাপটের সঙ্গে জিতেছিল রংপুর রাইডার্স। এক ম্যাচে ৬৩, আরেক ম্যাচে ৭২। প্রতিপক্ষ হিসেবে তাই রংপুরকে দেখলে এখন আতঙ্কের চোরা¯্রােত বয়ে যাওয়ার কথা কুমিল্লার ড্রেসিং রুমে। তেমনি, রংপুরের থাকার কথা স্বস্তিতে। প্রথম পর্বে বিধ্বস্ত হওয়া কুমিল্লাকে এবার ফাইনালে উঠার লড়াইয়েও প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে রংপুর। সন্ধ্যায় প্রথম কোয়ালিফায়ারে যারা জিতবে তারা চলে যাবে ফাইনালে। যারা হারবে সুযোগ থাকবে তাদেরও। এদিন দুপুরে ঢাকা ডায়নামাইটস ও চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে জয়ী দলের মুখোমুখি হয়ে ফাইনালে উঠার আরেকটি সুযোগ পাবে। প্রতিপক্ষকে ক্রিকেটীয় সমীহ করলেও আগের দুই দাপুটে জয়ের জেরেই নিজেদের মানসিক শক্তিতে এগিয়ে রাখছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। রবি বোপারাও মানছেন, মানসিকভাবে এগিয়ে তার দল। তবে রংপুরের অলরাউন্ডার মনে করিয়ে দিচ্ছেন, কুমিল্লা দলটাও দারুণ। হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগই নেই।
প্রাথমিক পর্বে সেরা দুইয়ে ছিল এই দুই দল, তাদের পয়েন্টও সমান। তবে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ের ফল একদমই একতরফা। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুরের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি কুমিল্লা। সেই দুই লড়াইয়ের একটি ছিল আবার দুই দলের সবশেষ ম্যাচ, গত শনিবারই হয়ে যাওয়া যে ম্যাচের রেশ মিলিয়ে যায়নি এখনও। সেই ধাক্কা সামলেই কুমিল্লাকে মাঠে নামতে হবে নতুন করে। ৭ রানে ৩ উইকেট সেদিন ম্যাচ সেরা হয়েছিলেন বোপারা। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচের আগের দিন অবশ্য অনুশীলনে বেশ হালকা মেজাজে ছিল রংপুর। ঐচ্ছিক অনুশীলনে আসেননি দলের বেশিভাগ তারকা। গোড়ালিতে চোট থাকা বোপারাও চালিয়েছেন হালকা অনুশীলন। আরেকটি লড়াইয়ের আগে মানসিকভাবে এগিয়ে থাকার কথা বলছেন রংপুরের ইংলিশ অলরাউন্ডার। তবে লড়াইয়ের আগে তারা বেশ সতর্কও, ‘এটা তো একটা পার্থক্য গড়ে দেয়ই (দুটি ম্যাচেই জয়)। মানসিকভাবে বেশ এগিয়ে থাকা যায়। তবে মনে রাখতে হবে, ওদের দলে বেশ কয়েকজন অভিজ্ঞ ও দারুণ ক্রিকেটার আছে। এই ধরনের পরিস্থিতিতে কি করতে হয়, তারা জানেন। কঠিন একটি লড়াইয়ের আশাই আমরা করছি।’
ফাইনালে ওঠার এই লড়াইয়ে রংপুর পাচ্ছে না এবি ডি ভিলিয়ার্সকে। দলের সঙ্গে তার চুক্তির ম্যাচগুলো শেষ। এই মৌসুমে তাদের আরেক সফল ক্রিকেটার অ্যালেক্স হেলসও ফিরে গেছেন চোট নিয়ে। শক্তির বড় দুটি জায়গা হারিয়ে রংপুর কি পারবে সময়ের দাবি মেটাতে? বোপারা চ্যালেঞ্জটিকে দেখছেন খুব সাধারণ দর্শনে, ‘প্রতিটি ম্যাচই বড় ম্যাচ। গ্রæপ ম্যাচগুলোও গুরুত্বপূর্ণ ছিল। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো, ভালো ব্যাপারগুলো প্রতিটি ম্যাচেই একইরকম করা। প্রস্তুতিতে ধারাবাহিক থাকা ও প্রত্যাশিত ফল পাওয়া। আমাদের পরিকল্পনা একই থাকবে। আগে বল করলে যত কম রানে সম্ভব ওদের আটকে রাখা। আগে ব্যাট করলে আমরা জিততে পারি, এমন স্কোর গড়া।’
মারকাটারি টি-টোয়েন্টির যুগে প্রথমে ব্যাট করে কোনো সংগ্রহই নিরাপদ নয়। প্রায়শই দেখা যায় ২০০ রান করেও জিততে পারে না আগে ব্যাট করা দলগুলো। এমনকি চলতি বিপিএলেও ১৮০+ রানের লক্ষ্য ছুঁড়ে দিয়েও হারতে দেখা গিয়েছে বেশ কয়েকটি ম্যাচ। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্সই ১৮০+ রানের লক্ষ্য তাড়া করে জিতেছে ৪টি ম্যাচে। অথচ সে দলেরই সদস্য বোপার কি-না বলছেন ১২০ রান করলেই জেতা সম্ভব বিপিএলের ম্যাচে! বিপিএলে নিয়মিত খেলায় ইংলিশ এই অলরাউন্ডার জানেন মিরপুরের উইকেটের ভাষা। সিলেট ও চট্টগ্রামে বড় রান এলেও মিরপুরের চিত্র ভিন্ন। এখানে তাই লো স্কোরিং ম্যাচের আভাস দিলেন তিনি, ‘আমার মনে হয় এখানে দিন আর রাতে একটা পার্থক্য আছে। রাতের বেলা ১৫০-১৬০ ভালো স্কোর। কিন্তু দিনের বেলা ১২০ রানই ভালো স্কোর।’

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিপিএল


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ