Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১০ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৬ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

ধূমপানে বুদ্ধি কমে

আফতাব চৌধুরী | প্রকাশের সময় : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৮:৪১ পিএম

ধূমপান স্বাস্থ্যের পক্ষে ক্ষতিকর, এটা আমরা ছোট থেকে শুনতে শুনতে বড় হয়েছি। ফুসফুসের ক্যান্সার গলার ক্যান্সার, স্মোকিং কাফ, হৃদযন্ত্রের কার্যকারিতা কমে যাওয়া ধূমপান থেকেই হতে পারে। কিন্তু তাই বলে কি বৃদ্ধি কমে ? হ্যাঁ, ধূমপান করলে বুদ্ধি কমে। কেননা সম্প্রতি হওয়া একটি গবেষণার ফলাফল জানাচ্ছে যে ধূমপান মস্তিষ্কের বাইরের স্তর তথা কর্টেক্সকে অনেকটাই পাতলা করে দেয়। মস্তিষ্কের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ কর্টেক্স স্মৃতি, ভাষা ও উপলদ্ধি, চেতনার মতো বিষয়গুলোর সঙ্গে যুক্ত। কানাডার ম্যাকলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এই পর্যবেক্ষণটি করা হয়েছিল। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের সাইকোলজির অধ্যাপক ও এই গবেষণার অন্যতম প্রধান গবেষক শেরিফ কারামার মতামত এ-বিষয়ে প্রণিধানযোগ্য। গবেষণার ফল হাতে আসার পর তিনি সকলকে সর্তর্ক করেছেন, ‘নিয়মিত ধূমপায়ীদের জানা উচিত সিগারেট মস্তিষ্কের বাইরের স্বর পাতলা করে ফেলে। যার অবশ্যম্ভাবী ফল বোধশক্তির অবনতি হওয়া। এটা যেমন প্রত্যক্ষ ধূমপায়ীদের ক্ষেত্রে সত্যি, তেমনি যাঁরা প্যাসিভ স্মোকার, মানে ধূমপানের সংস্পর্শে থাকেন, তাদের ক্ষেত্রেও একই ভাবে প্রয়োজ্য।’ গবেষণার মধ্যে দেখা গেছে দীঘদিন ধূমপান করলে কর্টেক্স যেমন ক্ষইতে থাকে, তেমনি টানা বহুদিন ধূমপান বন্ধ করে রাখলে পুনরায় আবার কর্টেক্সের ঘনত্ব ফিরিয়ে আনা সম্ভবপর। এই গবেষণা করার জন্য ২৪৪ জন পুরুষ ও ২৬০ জন মহিলাকে সামিল করা হয়েছিল, এঁদের গড় বয়স ৭৩ বছর। অংশগ্রহণকারী প্রত্যক সদস্যই ছোটবেলায় ১৯৪৭ সালের স্কটিশ মানসিক সমীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন।

এই বিষয়ে গবেষক কারামা বলেন, ‘আমরা প্রতিটি নারী ও পুরুষের মস্তিষ্ক খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করেছি। তাতে দেখেছি ৭৩ বছর বয়সে অধূমপায়ীদের চেয়ে যাঁরা ধূমপায়ী এবং আগে প্রচুর ধূমপান করতেন এবং এই বয়সে এসেও অল্পবিস্তর করেন, তাঁদের মস্তিষ্কের কর্টেক্সের অনেকটা অংশ জুড়েই পাতলা হয়ে গেছে। এঁদের মধ্যে যাঁরা কয়েক বছর ধূমপান ছেড়ে দিয়েছেন, তাঁদের মস্তিষ্কের কর্টেক্সের ঘনত্ব প্রতি বছর কিছুটা করে হলেও বাড়ছে। তবে আপাতদৃষ্টিতে এই নিরাময় পদ্ধতি বেশ সময় সাপেক্ষ।
বেশ কয়েকদিন আগে মেডিসিন জার্নাল ‘মলিকিউলার সাইকিয়াট্রি‘তে এই গবেষণাটি নিবন্ধাকারে প্রকাশিত হয়েছে। তবে গবেষণার আরও একটি বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে ধূমপান ছাড়লে কর্টেক্স ঘনত্ব ফিরে পায়। কিন্তু স্বল্প ও মধ্যম ধূমপায়ীদের ক্ষেত্রে এই তত্ত¡টি প্রয়োজ্য। অতিরিক্ত ধূমপায়ী বা চেইন স্মোকারদের ক্ষেত্রে এই যুক্তি খাটে না। কেননা এই সমীক্ষাই চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছে যে অতিরিক্ত ধূমপায়ীদের মধ্যে যাঁরা ২৫ বছরেরও বেশি সময় ধরে ধূমপান ছেড়েছেন, মাত্রাছাড়া নিকোটিন শরীরে এক সময়ে ঢোকার ফলে কর্টেক্স যে পাতলা হয়েছিল, তা এখনও পাতলাই রয়ে গেছে। অতিরিক্ত ধূমপান মানেই বুদ্ধিভ্রংশ, তাই খাওয়ার আগেই এটা মনে রাখবেন।

সাংবাদিক-কলামিস্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বুদ্ধি

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ