Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

থাকবেন স্বামীর পাশেই

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

ভারতের বিরোধী দল কংগ্রেসের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে সম্প্রতি দায়িত্ব নেওয়া প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর স্বামী রবার্ট ভদ্রাকে দুর্নীতির মামলায় ছয় ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তার সঙ্গে এসেছিলেন প্রিয়াঙ্কা। পরে তিনি বলেছেন, সবসময় স্বামীর পাশে থাকবেন।
দেশটির গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, আকবর রোডের জামনগর হাউসে ইডি-র দফতর থেকে ২৪ নম্বর আকবর রোডে এআইসিসি-র সদর দফতরের দূরত্ব মাত্র ৮০০ মিটার। ইডি-র অফিসে স্বামী রবার্ট ভদ্রাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নামিয়ে দিয়েই কংগ্রেস দফতরে ঢোকেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। স্পষ্ট জানিয়ে দেন, ‘উনি আমার স্বামী। আমার পরিবার। আমি ওর পাশে রয়েছি।’
প্রিয়াঙ্কা সক্রিয় রাজনীতিতে এলে কংগ্রেস লাভবান হবে জেনেও দলের প্রবীণ নেতাদের মনে এত দিন এই একটাই কাঁটা ছিল করতো, রবার্টের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের খেসারত প্রিয়াঙ্কাকে দিতে হবে না তো? কারণ প্রিয়াঙ্কা রাজনীতিতে এলে যে বিজেপি রবার্টের বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লাগবে, সেটা জানা কথাই। সেই চাপ কীভাবে সামলানো হবে? প্রিয়াঙ্কা নিজে প্রথম দিনেই বুঝিয়ে দিলেন, অস্বস্তির প্রশ্ন নেই। তিনি স্বামীর পাশেই আছেন এবং সেই পাশে থাকার বার্তাটি সকলের কাছে পৌঁছেও দিতে চান।
এই প্রথম ইডি-র জেরার মুখে পড়লেন রবার্ট। গতকাল বিকাল ৪টা থেকে শুরু করে ছয় ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে জিজ্ঞাসাবাদ চলে। লন্ডনে বেনামি সম্পত্তি কেনার অভিযোগের মামলায় আদালত রবার্টকে ইডি-র সামনে হাজির হওয়ার নির্দেশ দিয়েছিল। তবে রবার্টের বিরুদ্ধে একের পর এক দুর্নীতির মামলা, ইডি-র তলব গোটাটাই ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ বলে মন্তব্য করেছেন কংগ্রেস সাধারণ সম্পাদক।
রবার্টের বিরুদ্ধে ইডি-র মূল অভিযোগ, তিনি বেনামে লন্ডনে ৬টি ফ্ল্যাট ও ২টি বাড়ি কিনেছেন। এর মধ্যে ব্রায়ানস্টন স্কোয়ারে ১৯ লক্ষ পাউন্ডে একটি ফ্ল্যাট কেনা নিয়ে আর্থিক নয়-ছয়ের তদন্ত শুরু হয়।
ইডি-র দাবি, এই সূত্র ধরে আরও সাতটি সম্পত্তির হদিস মিলেছে। যার মধ্যে একটির দাম ৫০ লক্ষ পাউন্ড, আর একটির ৪০ লক্ষ পাউন্ড। অগুস্তা ওয়েস্টল্যান্ডকে ভিভিআইপি চপারের বরাত ও একটি বিদেশি সংস্থাকে তেল মন্ত্রীর বরাত পাইয়ে দেওয়ার ঘুষ হিসেবেই রবার্ট এই টাকা পেয়েছেন। প্রতিরক্ষা বরাতের দালাল সঞ্জয় ভাÐারির সঙ্গেও রবার্টের যোগাযোগ ছিল বলে ইডি-র অভিযোগ। সূত্র: আনন্দবাজার।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ