Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ২৪ মে ২০১৯, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৮ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

আশুলিয়ায় ও টঙ্গীতে দুই শিশু ধর্ষণ, গ্রেফতার ২

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

আশুলিয়া ও টঙ্গীতে দুই শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে এক দু’জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এর মধ্যে বি-বাড়িয়া থেকে ইমাম আব্দুল্লাহ আল মামুন (৪২) ও টঙ্গী থেকে মো. রিফাতকে (১৬) গ্রেফতার করা হয়। গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‌্যাব-১ এর অধিনায়ক সারওয়ার-বিন-কাশেম।
তিনি বলেন, মামুন আশুলিয়ার দোসাইদস্ত এলাকার তালিমুল কুরআন মহিলা মাদ্রাসায় শিক্ষকতার পাশপাশি ১৮ বছর ধরে বাইতুল মাহমুদ জামে মসজিদে ইমামতি করে। গত ২৭ জানুয়ারি দুপুরে কয়েকজন ছাত্রী তার বাসায় পড়তে যায়। পড়া শেষে সবাইকে বের করে দিয়ে ঘর ঝাড়– দেওয়ার কথা বলে ভুক্তভোগী ছাত্রীকে (৯) থাকতে বলে। পরে শিশুটিকে ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ করে সে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা ২৮ জানুয়ারি আশুলিয়া থানায় মামলা করেন। ঘটনার পর থেকে মামুন পলাতক ছিল। পরে তথ্য ও প্রযুক্তির মাধ্যমে তার অবস্থান নিশ্চিত হয়ে বুধবার বি-বাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।
র‌্যাবের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, গত ২৭ জানুয়ারি গাজীপুরের গাছা থানাধীন শরিফপুর এলাকার একটি কাশবন থেকে শিশু তাফানুন্ম তাহির বিকৃত লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। তাহি স্থানীয় মাতৃছায়া আইডিয়াল স্কুলের নার্সারির ছাত্রী ছিল। প্রাথমিকভাবে হত্যাকাÐের কোন ক্লু পাওয়া যায়নি। পরে তদন্তে নেমে রিফাতের সংশ্লিষ্টতা পেলে বুধবার তাকে গ্রেফতার করা হয়।
র‌্যাবের জিজ্ঞাসাবাদে রিফাত জানায়, সে স্থানীয় তাকফিয়াতুল উলুম মাদ্রাসায় পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ে। ভোটার আইডি কার্ড অনুযায়ী তার বয়স ১৬। তাহি তার খালাতো বোন। তাহির বাবার টার্কি মুরগির ফার্মে চাকরি করতো সে। সেই সুবাদে তাদের বাসাতেই থাকতো। সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, টার্কি মুরগির ফার্ম থেকে বাড়ি ফেরার পথে তাহির সঙ্গে রাস্তায় দেখা হয়। তাহি তাকে নানিকে খুঁজছে বলে জানায়। এরপর রিফাত নানির সঙ্গে দেখা করানোর কথা বলে পাশের কাশবনে নিয়ে ধর্ষণ করে এবং জানাজানির ভয়ে ইট দিয়ে মাথা থেতলে হত্যা করে।
সারওয়ার-বিন-কাশেম বলেন, রিফাতকে আটকের পর সে নানাভাবে র‌্যাবকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। তবে হত্যার কথা স্বীকার করেছে। রিফাতের মোবাইলে পর্নোগ্রাফি পাওয়া গেছে। এছাড়া সে এলাকায় উচ্ছৃঙ্খল হিসেবে পরিচিত ছিল।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গ্রেফতার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ