Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৭ আশ্বিন ১৪২৬, ২২ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

বসুন্ধরার চারে চার

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

ঘরোয়া ফুটবলের মর্যাদাপূর্ণ আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) চারে চার নবাগত বসুন্ধরা কিংস। নিজেদের চতুর্থ ম্যাচেও তারা জয় তুলে নিল। গতকাল বিকেলে গোপালগঞ্জের শেখ ফজলুল হক মনি স্টেডিয়ামে বসুন্ধরা ৩-১ গোলে হারায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়া চক্রকে। বিজয়ী দলের হয়ে স্থানীয় ডিফেন্ডার সুশান্ত ত্রিপুরা, মিডফিল্ডার মতিন মিয়া ও বিশ্বকাপ খেলা কোস্টারিকার মিডফিল্ডার ড্যানিয়েল কলিড্রেস একটি করে গোল করেন। মুক্তিযোদ্ধার পক্ষে এক গোল শোধ দেন জাপানী মিডফিল্ডার ইউসুকে কাতো। এই জয়ে চার ম্যাচের সবক’টিতে জিতে ১২ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার শীর্ষে উঠে গেল বসুন্ধরা। এক ম্যাচ বেশী খেলা বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ঢাকা আবাহনী ১২ পয়েন্ট পেলেও গোল ব্যবধানে পিছিয়ে থেকে দ্বিতীয়স্থানে নেমে গেল। পাঁচ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে অষ্টমস্থানেই রইলো মুক্তিযোদ্ধা। অন্যদিকে ঢাকা ভেন্যূর খেলায় রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটি’র বিপক্ষে ড্র করে লিগে প্রথম পয়েন্টের দেখা পেল আরেক নবাগত নোফেল স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে।
ঘরোয়া ফুটবলের নতুন শক্তি বসুন্ধরা। যার প্রমাণ ইতোমধ্যে তারা দিয়েছে। মৌসুম সূচক টুর্নামেন্ট ফেডারেশন কাপে রানার্সআপ হলেও দ্বিতীয় আসর স্বাধীনতা কাপে ঠিকই তারা চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। আর লিগে তো দুরন্ত গতিতে এগিয়ে চলছে নবাগত দলটি। অভিষেক লিগের শিরোপা ঘরে তুলতে একের পর এক ম্যাচ জিতে চলেছে বসুন্ধরা কিংস। তাদের এই গতি প্রমাণ করে এবার হয়তো নতুন চ্যাম্পিয়নের দেখা পাবে বিপিএল। আর সেই নতুন চ্যাম্পিয়নটা হতে পারে বসুন্ধরাই। দলের কোস্টারিকান কলিন্ড্রেস আর স্বদেশী মতিন মিয়ার দুর্দান্ত পারফরম্যান্স তাদের স্বপ্নকে এগিয়ে নিচ্ছে।

কাল গোপালগঞ্জে ম্যাচের শুরু থেকেই গোলের জন্য মরিয়া হয়ে লড়ে বসুন্ধরা। ফলে গোল পেতে মাত্র ৯ মিনিট সময় লেগেছে তাদের। এসময় কলিনড্রেস সোলেরার কর্নারে ডি-বক্সে জটলায় বল পেয়ে দেরী করেননি সুশান্ত। চমৎকার প্লেসিং শটে গোল করে দলণকে এগিয়ে নেন (১-০)। অবশ্য মিনিট দশেক পর সমতায় ফিরে মুক্তিযোদ্ধা। ম্যাচের ১৯ মিনিটে মুক্তির জাপানী মিডফিল্ডার ইউসুকে কাতো স্পট কিকে গোল করে দলকে ম্যাচে ফেরান (১-১)। ব্যস ওই টুকুই। এর পরের কাহিনী কেবলই বসুন্ধরার। ম্যাচে সমতা আসার পর যেন জ্বলে ওঠেন বসুন্ধরার আক্রমণভাগের খেলোয়াড়রা। তারা একের পর এক আক্রমণে দিশেহারা করে তোলে মুক্তিযোদ্ধার রক্ষণদূর্গকে। কিন্তু দূর্ভাগ্য বিরতির আগে দ্বিতীয়বার এগিয়ে যেতে পারেনি নবাগতরা। তবে দ্বিতীয়ার্ধে ঠিকই দু’গোল আদায় করে নেয় তারা। ম্যাচের ৭১ মিনিটে ঝটিকা আক্রমণ থেকে বল পেয়ে বসুন্ধরার পক্ষে দ্বিতীয় গোল করেন মতিন মিয়া (২-১)। এর মিনিট চারেক পর ড্যানিয়েল কলিড্রেস দারুণ এক ফ্রি কিকে গোল করে দলের জয় নিশ্চিত করেন (৩-১)। শেষ পর্যন্ত এই ব্যবধানের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে বসুন্ধরা।

কাল বিকেলে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে লিগের অন্য ম্যাচে নোফেল স্পোর্টিং ২-২ গোলে ড্র করেছে রহমতগঞ্জের সঙ্গে। রহমতগঞ্জের পক্ষে সিও জোনপিও এবং মানডে ওসাজী একটি করে গোল করেন। নোফেলের রোমান ও ইসমাইল বাঙ্গুরা দু’গোল শোধ দেন। ম্যাচের প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে থাকলেও বিরতির পর রহমতগঞ্জের ফরোয়ার্ড সোহেল রানা লালকার্ড পেলে দশজনের দলে পরিণত হয় রহমতগঞ্জ। ফলে দু’গোল শোধ দেয় নোফেল। ৬১ মিনিটে নিজেদের বক্সে নোফেলের ডিফেন্ডার মাসুদ রানা মৃধাকে অবৈধভাবে বাধা দেন সোহেল রানা। আগেই একবার হলুদ কার্ড দেখেছিলেন তিনি। রেফারি সুজিত ব্যনার্জি দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখালে মাঠ ছাড়েন সোহেল। টানা তিন হারের পর এই ড্রতে চার ম্যাচে মাত্র ১ পয়েন্ট পেয়ে তালিকার ১২তমস্থানে জায়গা হলো নোফেলের। পাঁচ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে দশমস্থানে আছে রহমতগঞ্জ।

বসুন্ধরা ৩-১ মুক্তিযোদ্ধা
রহমতগঞ্জ ২- ২ নোফেল



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন