Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

পলিটেকনিক ইনস্টিটিউশন প্রয়োজন

| প্রকাশের সময় : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৫ এএম

 

বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে দ্রুত উন্নতি লাভ করলেও কারিগরি শিক্ষায় পিছিয়ে পড়ছে। বিশেষ করে আশির দশকের পর কৃষিশিল্পের সঙ্গে এখন ব্যবসা-বাণিজ্যে দৃশ্যমান অগ্রগতি অর্জিত হচ্ছে। তবে মানবসম্পদ উন্নয়নে দেশ বর্তমান পৃথিবীর সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগোতে পারছে না। উচ্চ কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন উৎপাদনব্যবস্থা এখানে চর্চা হচ্ছে না। নিম্ন কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন জলসেচ, আমদানীকৃত কীটনাশকের ব্যবহার, উচ্চ ফলনশীল শস্যবীজ এবং রাসায়নিক সার উচ্চতর কৃষি উৎপাদনে ভূমিকা রাখছে। নিম্ন কারিগরি ও নিম্ন মজুরির তৈরি পোশাক রপ্তানি বাণিজ্যে বিশাল অগ্রগতি হয়েছে। গত দুই দশকে কিছু শিল্পোদ্যোক্তা উচ্চ প্রযুক্তির কিছু শিল্প দেশে স্থাপন করেছে যেগুলো কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন ও ব্যবস্থাপনায় দক্ষ লোকের অভাবে ভুগছে। পক্ষান্তরে লাখ লাখ বেকার দেশে কাজ পাচ্ছে না। সংশ্লিষ্ট সবাই জানে, এসব শিল্পে বিদেশ থেকে কারিগরি ও ব্যবস্থাপনায় পেশাদার লোক এনে তাদের প্রতিষ্ঠানগুলোর উৎপাদন চালিয়ে নেওয়া হচ্ছে। এমনকি মৎস্য চাষের ক্ষেত্রে বিদেশি লোক এনে কাজ করানো হচ্ছে। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ সমুদ্রগামী ছোট জাহাজ নির্মাণ করছে এবং দেশে-বিদেশে সরবরাহ করছে। জাহাজ নির্মাণে ফ্যাব্রিকেশন কাজ এখানে হয়। জাহাজের প্রয়োজনীয় সব যন্ত্রপাতি বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়। জাহাজশিল্প দেশে কর্মসংস্থান বৃদ্ধিতে অবদান রাখছে। সবাই জানে যে কম গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ শিক্ষা প্রয়োজনের তুলনায় বেশি হারে সম্প্রসারণ হচ্ছে। অন্যদিকে বেশি প্রয়োজন এমন কারিগরি শিক্ষা সরকারের সিদ্ধান্ত গ্রহণকারীদের কাছে প্রয়োজনীয় গুরুত্ব পাচ্ছে না। ঢাকা মহানগরীতে ১০টি পলিটেকনিক ইনস্টিটিউশন প্রয়োজন। ভবিষ্যতে দেশে যে শিল্প স্থাপন হবে, তার জন্য দেশ থেকেই কারিগরি জ্ঞানসম্পন্ন লোকবল সরবরাহ করতে হবে। অন্যথায় অর্থনৈতিক অগ্রগতি স্বপ্নই থেকে যাবে। আগামী ১০ বছর সাধারণ শিক্ষার স¤প্রসারণ স্থগিত রেখে কারিগরি শিক্ষায় বেশি অর্থ বিনিয়োগ করতে হবে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

মো. আশরাফ হোসেন
সেন্ট্রাল বাসাবো, ঢাকা।



 

Show all comments
  • md shakil amhed ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৬:০১ পিএম says : 0
    এটা কি school g collage
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন