Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১১ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৭ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

রোনাল্ডোর গোলে জয়ে ফিরলো জুভেন্টাস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৪:৪১ পিএম

সাসোলোকে এ্যাওয়ে ম্যাচে ৩-০ গোলে পরাজিত করে সিরি-এ লিগে জয়ের ধারায় ফিরেছে জুভেন্টাস। এই জয়ে ১১ পয়েন্টের ব্যবধানে দ্বিতীয় স্থানে থাকা নাপোলিকে পিছনে ফেলে টেবিলের শীর্ষস্থানটি ধরে রেখেছে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা। ম্যাচে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডো পেয়েছেন মৌসুমের ১৮তম গোল ।
২৩ মিনিটে সামি খেদিরার গোলে এগিয়ে যাবার পর ৭০ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রোনাল্ডো। এরপর ম্যাচ শেষের চার মিনিট আগে আরেক জার্মান এমরে কানকে দিয়ে গোল করিয়েছেন এই পর্তুগীজ সুপারস্টার। রোনাল্ডোর জোড়া গোল সত্বেও গত সপ্তাহে পারমার সাথে ৩-৩ গোলের ড্র দিয়ে পয়েন্ট হারিয়েছিল জুভেন্টাস। শনিবার ফিওরেন্তিনার সাথে গোল শুণ্য ড্র করে কার্লো আনচেলত্তির দল নাপোলি শিরোপা লড়াই থেকে আরো পিছিয়ে গেছে।
কালকের ম্যাচে মূল একাদশের বাইরে ছিলেন পাওলো দিবালা। ৮৩ মিনিটে ফেডেরিকো বারনারডেচির বদলী হিসেবে মাঠে নামেন এই আর্জেন্টাইন তারকা। মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি দলের মধ্যে সঠিক ভারসাম্য রক্ষার তাগিদেই দিবালাকে মূল দলের বাইরে রেখেছেন বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন। ম্যাচ শেষে আলেগ্রি বলেছেন, ‘রোনাল্ডো ও দিবালা একসাথেই খেলে থাকেন। তবে আমরা চাই দলের ভারসাম্য রক্ষায় সকলেই কঠোর পরিশ্রম করুক। এটা নির্ভর করে ঐ দিনটিতে আমাদের প্রতিপক্ষ কে। সাসোলোর মধ্যমাঠ বেশ শক্তিশালী। সে কারনেই আজ আমি দলের ভারসাম্য রক্ষায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তনে বাধ্য হয়েছি। খেলোয়াড়রা হতাশ হলেও প্রত্যেকেরই বিশ্রামের প্রয়োজন রয়েছে যাতে করে পরবর্তীতে একেবারে সতেজ হয়ে মাঠে নামতে পারে। মানসিক শক্তি ফিরিয়ে আনাটাও জরুরী।’
ম্যাচের শুরুটা বেশ ধীর গতিতেই করেছিল জুভেন্টাস। শুরুতেই জুভেন্টাসের গোলরক্ষক ওজিচেচ সিচিজনিকে দুটি আক্রমন রক্ষা করতে হয়েছে। ইনজুরির কারনে দলের দুই নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার লিওনার্দো বনুচ্চি ও গিওর্গিও চিয়েলিনি মাঠের বাইরে থাকাতে ওজিচেচের দায়িত্বটা বেড়ে গিয়েছিল। ১০ দিনের মধ্যে এ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের সাথে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শেষ ১৬’র লড়াইয়ের আগে এই দু’জন ফিরে আসার চেষ্টা করছেন। ২৩ মিনিটে অবশ্য প্রথম গোলের সুযোগটি হাতছাড়া করেনি জুভেন্টাস। রোনাল্ডোর শট সাসোলো গোলরক্ষক আন্দ্রে কনসিগলি ফিরিয়ে দিলে ফিরতি বলে খেদিরা গোল করে সফরকারীদের এগিয়ে দেন। ইনজুরি আক্রান্ত মৌসুমে এটি ছিল জার্মানর তারকা দ্বিতীয় লিগ গোল। গত ১৮ আগস্ট শিয়েভোর বিপক্ষে সিরি-এ লিগে নিজের প্রথম গোল করেছিলেন খেদিরা। বিরতির ঠিক আগে বারনারডেচিমেকে হতাশ করেন কনসিগলি। খেদিরার উড়ন্ত হেডও ব্যবধান বাড়াতে পারেনি। তবে ৭০ মিনিটে রোনাল্ডো আর ভুল করেননি। পাজিনিচের কর্ণার থেকে রোনাল্ডোর গোলে ব্যবধান দ্বিগুন করে জুভেন্টাস। এই নিয়ে লিগে ১৮তম গোল করে নিজেকে গোলদাতার তালিকায় শীর্ষে নিয়ে গেলেন রোনাল্ডো। সব মিলিয়ে এটি তার মৌসুমের ২০তম গোল। গত তিনটি ম্যাচে এই নিয়ে চতুর্থ গোল করলেন সিআর সেভেন। ম্যাচের শেষের দিকে প্রায় একইসাথে মাঠে নামেন দিবালা ও কান। রোনাল্ডোর এসিস্টে কান দলের তৃতীয় গোল করলে ৩-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে জুভেন্টাস।
দিনের আরেক ম্যাচে পারমাকে ১-০ গোলে পরাজিত করে ২০১৯ সালে লিগে প্রথম জয় তুলে নিয়েছে ইন্টার মিলান। জুভেন্টাসের থেকে ২০ পয়েন্ট পিছিয়ে টেবিলের তৃতীয় স্থানে রয়েছেন মিলান। ইন্টারের নগর প্রতিদ্বন্দ্বী এসি মিলান ৩-০ গোলে পরাজিত করেছে কাগলিয়ারিকে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন