Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৫ চৈত্র ১৪২৫, ১১ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

সখিপুরে প্রশ্নপত্র ফাঁস, অভিযুক্তদের জেল ও জরিমানা

সখিপুর(টাঙ্গাইল)উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৭:২৫ পিএম

টাঙ্গাইলের সখিপুরে প্রশ্নপত্র ফাঁস দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে এক পরীক্ষার্থীর নামে মামলা,ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে দুই শিক্ষকের কারাদন্ড ও ৫ শিক্ষককে জরিমানা করা হয়েছে। সোমবার এসএসসি পরীক্ষা(বিষয় ধর্ম) চলাকালীন সময়ে এক পরীক্ষার্থী প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে ফেইসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে অভিযুক্ত পরীক্ষার্থীকে আইসিটি আইনে নিয়মিত মামলা, দায়িত্বে অবহেলার জন্য দুই কক্ষ পরিদর্শক(শিক্ষক) কে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদ- ও কেন্দ্রে মোবাইল ফোন রাখার দায়ে অপর ৫ শিক্ষককে ২শত টাকা করে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। পরীক্ষা শেষে সোমবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর কার্যালয়ে ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আমিনুর রহমান এ রায় দেন। দন্ডিতদের গতকাল বিকালে টাঙ্গাইল আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরন করেছে সখিপুর থানা পুলিশ।

দণ্ডপ্রাপ্ত দুই শিক্ষক হলেন- উপজেলার সখিপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. মোশারফ হোসেন ও ছোট মৌশা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিলুফা ইয়াসমিন। অভিযুক্ত দুই শিক্ষক সখিপুর পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২নং ভেন্যুর ১৩ নং কক্ষের পরিদর্শকের দায়িত্বে ছিলেন। অপরদিকে একই ভেন্যুতে মোবাইল ফোন রাখার দায়ে পাঁচ শিক্ষককে ২শত টাকা করে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমান আদালত। তারা হলেন- সাড়াসিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবু তাহের, ইছাদিঘী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. ওয়াদুদ হোসেন, ঢনঢনিয়া ছোট চওনা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবু সাঈদ তালুকদার, রাজাবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই সহকারী শিক্ষক আবদুর রউফ এবং আহসান হাবিব। অন্যদিকে পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোনে প্রশ্নপত্র ফাঁসে অভিযুক্ত সখিপুর পিএম পাইলট মডেল গভ: স্কুল এন্ড কলেজের পরীক্ষার্থী সাব্বির আহমেদ সজিবের বিরুদ্ধে ওই ভেন্যুর সহকারী সচিব মো. আনোয়ার হোসেন বাদী হয়ে সখিপুর থানায় আইসিটি আইনে নিয়মিত মামলা দায়ের করেছে।

সখিপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আমিনুর রহমান বলেন- প্রশ্নপত্র ফাঁস ও দায়িত্বে অবহেলার দায়ে দুই শিক্ষককে কারাদ- অপর পাঁচ শিক্ষককে অর্থদ- এবং অভিযুক্ত পরীক্ষার্থীর বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রশ্নপত্র ফাঁস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ