Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২০ মে ২০১৯, ০৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬, ১৪ রমজান ১৪৪০ হিজরী।

অচলাবস্থা এড়াতে নতুন সমঝোতায় ট্রাম্প

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৪:৫৪ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রে নতুন করে আরও একটি অচলাবস্থাকে পুরোপুরি এড়িয়ে যেতে এক কৌশলগত নতুন পথ অবলম্বন করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন আইন প্রণেতাদের নিয়ে তিনি ইতোমধ্যে এ সঙ্ক্রান্ত একটি চুক্তিতে পৌঁছেছেন। 

মার্কিন ডেমোক্রেট এবং রিপাবলিকানদের মতে, তারা ওয়াশিংটনে একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠকের মাধ্যমে সরকারের আরেকটি অচলাবস্থা এড়াতে সীমান্ত নিরাপত্তায় তহবিলের বিষয়ে একটি চুক্তিতে পৌঁছেছেন। মার্কিন কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্যের বরাতে করা প্রতিবেদনে এই চুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছে দেশটির সংবাদমাধ্যম সিএনএন।
প্রতিবেদনে বলা হয়, যদিও এই চুক্তি সম্পর্কে এখনই কোনো বিস্তারিত জানানো হয়নি। এর আগে নথিভুক্ত নয় এমন অভিবাসীদের আটক করা এবং প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের প্রস্তাবিত সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণ ইস্যুতে তহবিল বরাদ্দকে কেন্দ্র করে আলোচনা পুরোপুরি স্থগিত হয়ে গিয়েছিল। প্রথম থেকেই মেক্সিকো সীমান্তে প্রাচীর নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দ চেয়ে আসছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তবে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের ডেমোক্রেট সদস্যরা ট্রাম্পের এই প্রস্তাবিত ৫৭০ কোটি ডলার অনুমোদন দেওয়ার বিষয়টি সরাসরি প্রত্যাখ্যান করে দেন।
অভিবাসন প্রত্যাশীদের আটকের বিষয়ে মার্কিন ডেমোক্রেটরা চায় যুক্তরাষ্ট্রের ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এনফোর্সমেন্টের (আইসিই) ডিটেনশন সেন্টারগুলোতে যে পরিমাণ বিছানা আছে তা কমিয়ে আনা হোক এবং ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার পরও দেশটিতে যারা অবস্থান করছে তাদের মধ্য থেকে যেসব অভিবাসীর বিরুদ্ধে অপরাধের রেকর্ড আছে তাদের আইনের আওতায় আনা। যদিও তাদের এই প্রস্তাবে ট্রাম্পের কোনো ধরনের সম্মতি ছিল না।
এ সময় টেক্সাস রাজ্যের এল পাসো শহরে সমর্থকদের উদ্দেশে ট্রাম্প বলেন, ‘চুক্তিপত্র পড়ার এতো সময় আমার কাছে নেই। তবে আমি জোর দিয়ে বলতে চাই, সহিংস অপরাধীদের গণমুক্তির বিষয়ে কোনো চুক্তিতে আমি স্বাক্ষর করবো না।’
উল্লেখ্য, মার্কিন সরকারের ফেডারেল এজেন্সিগুলো চালিয়ে নেওয়ার জন্য আগামী শুক্রবার গত তিন সপ্তাহের চুক্তির সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই এ সঙ্ক্রান্ত একটি বিলের অনুমোদন প্রয়োজন। এর আগে টানা ৩৫ দিন অচলাবস্থা কাটাতে হয়েছে ট্রাম্প সরকারকে। যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে সেটাই ছিল সবচেয়ে বড় ধরনের অচলাবস্থা। সূত্র: বিবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন