Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

নামফলক মুছে দিল ছাত্রলীগ

জিয়া স্মৃতি জাদুঘর

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

নগরীর কাজির দেউড়িতে ‘জিয়া স্মৃতি জাদুঘরের’ নামফলক থেকে জিয়ার নাম কালি দিয়ে মুছে দিয়েছে ছাত্রলীগ। মন্ত্রিসভার বৈঠকে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জিয়া স্মৃতি জাদুঘরকে ‘মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘরে’ রূপান্তরের প্রস্তাব দেয়ার একদিনের মধ্যেই এই দাবিতে মাঠে নেমেছে ছাত্রলীগ। গতকাল মঙ্গলবার ‘মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের ছাত্র ফোরাম’ সংগঠনের ব্যানারে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জাদুঘরের অদূরে মানববন্ধন করেন। এতে সংহতি জানিয়ে যোগ দেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর কমান্ডার মোজাফফর আহমেদের নেতৃত্বে একদল মুক্তিযোদ্ধাও।
জিয়া স্মৃতি জাদুঘরকে ‘মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি জাদুঘরে’ রূপান্তরের প্রস্তাব মন্ত্রিসভায় উত্থাপন করায় শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এবং তাতে নীতিগত সমর্থন দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা ও ছাত্রলীগের নেতারা। মানববন্ধন শেষে মোজাফফর আহমেদের উপস্থিতিতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জাদুঘরের নামফলকের একাংশে ‘জিয়ার’ নামের উপর কালি লাগিয়ে দেন। ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য আব্দুর রহিম শামীমের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সহকারী কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাস ও হেলাল উদ্দিন, প্রশান্ত সিংহ, নগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি একরামুল হক রাসেল, নগর ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক রাহুল দাশ প্রমুখ।
উল্লেখ্য, ১৯৮১ সালের ৩০ মে চট্টগ্রাম সফরে এসে সার্কিট হাউজের চার নম্বর কক্ষে উঠেছিলেন তৎকালীন শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান। ভোরের দিকে এক সামরিক অভ্যুত্থানে তিনি নিহত হন। ওই বছরের ৩ জুন সার্কিট হাউসকে একটি জাদুঘরে রূপান্তরের জন্য সরকারি প্রস্তাব গৃহীত হয়। এরপর ১৯৯১ সালে জিয়াউর রহমানের পত্মী খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বিএনপি রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে। ১৯৯৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর এটি জিয়া স্মৃতি জাদুঘর নামে উদ্বোধন করা হয়।



 

Show all comments
  • Omar Faruk Ctg ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪০ এএম says : 0
    একটি গরু জঙ্গলে ঘাস খাচ্ছিল। হঠাৎ তাকে একটি বাঘ আক্রমণ করল। গরুটি অনেকক্ষন দৌড়ানোর পর উপায় না পেয়ে পুকুরে ঝাপ দিল। মাত্র শুঁকিয়ে যাওয়া পুকুরটিতে কাঁদা ছাড়া কোন পানি ছিল না। গরুর পেছন পেছন বাঘটিও ঝাপ দিল। বাঘ ও গরু কাঁদায় গলা পর্যন্ত আটকে গেল। বাঘ রেগে মেগে বলে, "কিরে হারামী তুই আর লাফ দেয়ার জায়গা পেলি না? ডাঙায় থাকলে তোকে না হয় একটু কুড়মুড় করে খেতাম। এখনতো দুজনেই মরব রে।" গরু হেসে বলে, "তোমার কি মালিক আছে? বাঘ রেগে বলে, বেটা আমি হলাম বনের রাজা। আমার আবার মালিক কে। আমি নিজেইতো বনের মালিক। গরু বলে তুমি এখানেই দুর্বল। একটু পর আমার মালিক আসবে। এসে আমাকে এখান থেকে তুলে নিয়ে যাবে। আর তোমাকে পিটিয়ে মারবে। বাঘ বড় বড় চোখ করে তাকিয়ে রইল। ঠিকই সন্ধ্যা বেলায় গরুটির মালিক এসে বাঘটার মাথায় বাঁশ দিয়ে কয়েকটা বাড়ি দিয়ে মেরে গরুটিকে টেনে তুলল। গরু হাসতে হাসতে বাড়ি চলে গেল আর বাঘটি মরে একা একা পড়ে রইল। মূলকথাঃ আমরা যারা মালিকের উপর ভরসা করি আমাদের উপর যত অত্যাচার নির্যাতনই হোক না কেন, আমাদের মালিক ঠিকই আমাদের রক্ষা করবে। হয়তো সন্ধ্যা পর্যন্ত একটু অপেক্ষা করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Islam ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    শহীদ জিয়া ১৬ কোটি মানুষের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। তোরা ১৬ কোটি মানুষের হৃদয় থেকে জিয়া নাম মুছে ফেলতি পারবি না।
    Total Reply(0) Reply
  • Shaminur Rahaman Saam ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪১ এএম says : 0
    আজ ক্ষমতায় তোরা, যা ইচ্ছা তা করতে পারবি, প্রতিবাদ করলে প্রশাসন দিয়ে তার চোদ্দগোষ্টির নাম ভূলাতে পারবি। খবরের কাগজে প্রচার পাবি, অনেকেই তোদের অপকর্মের বাহাবা দিবে, কিন্তু! মনে রাখিস! জিয়া নামটি ১৬ কোটি মানুষের হৃদয়ের অন্তস্থলে তা মুছবি কি দিয়ে রে....পাগলা?
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Shafiqul Islam ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
    আমিও সাবেক ছাত্রলীগের নির্যাতিত কর্মী,,,, তারপরও বলবো এসব অতিরিক্ত বাড়াবাড়ি
    Total Reply(0) Reply
  • MD Hazrat Ali ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪২ এএম says : 0
    জিয়া পরিবারের নাম লেখতে যে সমস্ত অক্ষর গুলো লাগে আমি জোর দ্বাবী জানাচ্ছি এই অক্ষর গুলো বাংলা ইংরেজি সহ সবগুলো মুছে ফেলা হোক এত হিংসা ভালো না সময় তার আপন গতিতে চলে
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Ullah ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    এর সুষ্ঠ তদন্ত করে বিচার করা হোক ! একটি কথা সরকারকে ভুলে গেলে চলবে না যে জিয়াউর রহমান এই দেশের সাবেক রাষ্ট নায়ক ছিলেন যে জায়গায় একদিন আপনাদেরকেও যেতে হবে অপেক্ষা শুধু সময়ের! তখন যদি কেও আপনার বাবার নামে কালি লেপন করে আপনাদের কেমন লাগবে? এই অনুযায়ি সিদ্ধান্ত নেন! এটা নুংরা মনের পরিচায়ক আর একটি কথা না বললেই নয়! যে (আমি কিন্তু বি এন পির সাপোটার না)
    Total Reply(0) Reply
  • Tamim Hossain ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    তিনি যেমনই থাকেন, এক সময় এই দেশের প্রেসিডেন্ট ছিলেন, তাই ন্যুনতম সম্মান তিনি পেতেই পারেন। সম্মান দেখালে সম্মান পাওয়া যায়। প্রতিহিংসার রাজনীতি কে উষ্কানি আমরাই দিয়ে যাচ্ছি। আমার জানামতে তিনি বীরপ্রতীক খেতাপ প্রাপ্ত একজন মুক্তিযুদ্ধা
    Total Reply(0) Reply
  • Kazi Mahabub Milon ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৩ এএম says : 0
    এগুলো কুৎসিত মনের পরিচয়। জিয়া, শেখ মুজিব, খালেদাজিয়া, শেখ হাসিনা এরা সবাই বাংলার ইতিহাস। এদের নামকে কেটে দেওয়া মানে বাংলার ইতিহাসকে ভুলে যাওয়া। দয়া করে এমন মনের পরিচয় কেউ দিবেন না। এরকম কাজ শুধু মানুষের মধ্যে নৈরাজ্য পরিবেশ সৃষ্ট করতে পারে।
    Total Reply(0) Reply
  • Khorshed Alam ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    রাজনীতির মাঠে আলোচনা সমালোচনা থাকবে তাই বলে এত নোংরা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা অগ্রহণযোগ্য। বাংলাদেশের ইতিহাসের দিকে তাকালো দেখা যাবে যেখানে একজন রাজনৈতিক নেতৃত্বের ব্যর্থতার শুন্য স্থান মেজর জিয়াই পূরণ করেছিলেন এবং বাকশাল প্রসূত গণতান্ত্রিক বন্দিদশা থেকে জিয়াউর রহমানই বাংলাদেশকে সংবাদপত্রের স্বাধীনতাসহ বহুদলীয় গণতন্ত্র উপহার দিয়েছিলেন। সর্বোপরি স্বাধীনতার ঘোষণা, রণাঙ্গনের মুক্তিযুদ্ধের দিকপাল হিসেবে জিয়াউর রহমান অবশ্য সম্মান পাবেন, পেয়ে আসছেন গণ মানুষের অন্তর থেকেই...! ভোট ডাকাতির ন্যাক্কারজনক ঘটনা আড়াল করতেই এসব অপরিমেয়দর্শী অপকর্মের কৌশল নেওয়া হয়েছে বলে সচেতন নাগরিক সমাজ মনে করে।
    Total Reply(0) Reply
  • Khorshed Alam ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    রাজনীতির মাঠে আলোচনা সমালোচনা থাকবে তাই বলে এত নোংরা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা অগ্রহণযোগ্য। বাংলাদেশের ইতিহাসের দিকে তাকালো দেখা যাবে যেখানে একজন রাজনৈতিক নেতৃত্বের ব্যর্থতার শুন্য স্থান মেজর জিয়াই পূরণ করেছিলেন এবং বাকশাল প্রসূত গণতান্ত্রিক বন্দিদশা থেকে জিয়াউর রহমানই বাংলাদেশকে সংবাদপত্রের স্বাধীনতাসহ বহুদলীয় গণতন্ত্র উপহার দিয়েছিলেন। সর্বোপরি স্বাধীনতার ঘোষণা, রণাঙ্গনের মুক্তিযুদ্ধের দিকপাল হিসেবে জিয়াউর রহমান অবশ্য সম্মান পাবেন, পেয়ে আসছেন গণ মানুষের অন্তর থেকেই...! ভোট ডাকাতির ন্যাক্কারজনক ঘটনা আড়াল করতেই এসব অপরিমেয়দর্শী অপকর্মের কৌশল নেওয়া হয়েছে বলে সচেতন নাগরিক সমাজ মনে করে।
    Total Reply(0) Reply
  • এম. আর রানা ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    এইভাবে পোষ্টার, সাইনবোর্ড থেকে নাম মুছতে পারবেন কিন্তু কোটি মানুষের মন থেকে সেটা মুছতে পারবেন না।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammod Ullah Riyaz ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৪ এএম says : 0
    শহীদ জিয়ার নাম মুছে দিয়ে বাহবা পেতে পারো ,,শহীদ জিয়া এমন একজন মানুষ জিনি মারা যাওয়ার এতদিন পরেও মানুষ তাকে ভূলেনি ভূলবেনা,,,, বাঙ্গালি জাতি আজিবন মনে রাখবে তাকে,,,, তবে মনে রেখো তোমার নাম ও একদিন মুছে যাবে'''' আজ মারা যাও পরশু সবাই তোমাকে ভূলে যাবে,,,,,!
    Total Reply(0) Reply
  • Mehrab Ahmed Palash ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৫ এএম says : 0
    এ ধরনের কর্ম একটা দেশকে গৃহযুদ্ধের উষ্কানি দেয়।ক্ষমতা বদলের সাথে সাথে অস্থিতিশীল হয়ে পরে দেশ। আর ভুক্তভুগি হয় সাধারন জনগন। একটা মানুষ যতই খারাপ হোক না কেন,তার কিছু ভালো কর্ম থাকে। যা আমরা বুঝেও না বোঝার ভান করি। দেশের সাধারন মানুষ ও উন্নতি নিয়ে ভাবুন,,,,বিকৃত ইতিহাস মুছে ফেলা যায়,কিন্তুু সঠিক ইতিহাস আপনার হৃদয়েও অবস্থান করছে,মানুন বা না মানুন!!! এসব অপসারন না করে দেশের উন্নয়ন হয় সেগুলো করুন। তাতে আমরা সাধারন জনগন উপকৃত হতাম বা হবো.......
    Total Reply(0) Reply
  • Md Javed Hossen ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৫ এএম says : 0
    অসুস্থ রাজনীতি মানুষকে কত নোংরা পথে নিয়ে যায় তা এসব দেখলেই বোঝা যায়।শহীদ জিয়াউর রহমানের মত একজন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে এভাবে অপমান করা মোটেও ঠিক হচ্ছে না।এসব নোংরা রাজনীতি দেশ ও জাতির জন্য কোনোভাবেই কাম্য নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • S M Razzaqul Hayder ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৬ এএম says : 0
    এই পাল্টাপাল্টির কালচার কবে শেষ হবে এদেশ থেকে জানিনা।স্বাধীনতার প্রায় পন্চাশবছর পূর্তির কাছাকাছি এসেও এ ব্যাধি থেকে আমাদের সমাজ এর মানুষগুলোকে বের করা গেল না, তা আমাদের মত স্বাধীনতায় সামান্য-অংশ নেয়াদের জন্যও দূঃখজনক বৈকি।
    Total Reply(0) Reply
  • নিভৃতে যাত্রী ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৬ এএম says : 0
    এগুলো বাড়াবাড়ি ছাড়া আর কিছু না। এখানে যা কিছু আছে সব কিছু জিয়াউর রহমানের স্মৃতি বিজড়িত। আমি মেয়র সাহেব ও প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টি আর্কষন করছি এই ধরনের ন্যাক্কারজনক কাজ থেকে ছাত্রলীগকে বাধা দিন,না হয় আপনাদের প্রতি সাধারন মানুষের ভালোবাসা চিরতরে মুছে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Kamrul Hasan ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৬ এএম says : 0
    আমাদের দেশে হিংস বিদ্বেষ বাড়িয়েই চলেছে আওয়ামীলীগ।তবেএটা নিশ্চিত হিংসার আগুনে তাঁরাই জ্বলে পুরে ছাই হবে একদিন।এতো অহংকার ভালো না।কালকে মারা গেলে ২দিন পর থেকে আপনার নাম কেউ আর নিবেনা ।আল্লাহকে ভয় করুন আল্লাহ একজন আছেন।
    Total Reply(0) Reply
  • এফ আই সোহেল ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৭ এএম says : 0
    মৃত জিয়াকে এত ভয় পাস কেন। এই কাজটি অত্যন্ত নিকৃষ্ট। মানুষের অবদানকে অস্বীকার করা যায় না তোমরা তো পারলে একদিন তোমাদের তো পারবে। তখন তোমাদের কে চেয়ে থাকতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Shahed ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৭ এএম says : 0
    ঘৃণা মত প্রকাশের স্বাধীনতা খুব ভালো একটা ব্যাপার। কিন্তু মতের প্রকাশ মানে কুকর্ম নয়।দিনের ভোট রাতে প্রয়োগ করলে জানবে বা কি ? জনসমর্থন তলানিতে বলেই, অন্যকে ছিঁড়ে খুঁড়ে খাবো তা তো নয়। অথচ এটাই হচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Lokman Sami ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৮ এএম says : 0
    এভাবে মুছতে চাইলে অন্তত ৮/১০ কোটি অন্তর হত্যা করা লাগবে। কি কারিশমা মানুষের মন আইন করেও জিয়ার নাম মুছতে পারে না বাকশাল।আবার আইন করে জোর করে এক নাম জপাতে পারে না।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohsin Kazi ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৪৮ এএম says : 0
    জিয়ার প্রতি কোটি মানুষের ভালোবাসা অাছে বলেই তোদেরকে রাতে ভোট ডাকাতি করতে হয়। এটিই বাস্তবতা। নাম ফলক মুছে দেয়াটা তোদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বের লক্ষণ।
    Total Reply(0) Reply
  • Habib Rahman ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১০:৫৯ এএম says : 0
    আব্দুল্লাহ ইবনে মাসউদ (রাঃ) হইতে বর্ণিত আছে যে, নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলিয়াছে- কোন মোসলমান অপর মোসলমানকে গালি দিলে, সে ফাসেকের কাজ করিল বলিয়া সাব্যস্ত হয় এবং কোন মোসলমান অন্য মোসলমানের সঙ্গে যুদ্ধ-বিগ্রহ, মারামারি, কাটাকাটি করিলে সে কাফেরের কাজ করিল বলিয়া সাব্যস্ত হয়। বোখারী শরীফ - ১ম খণ্ড - হাদিস নং -৪৪
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ছাত্রলীগ

২৫ জানুয়ারি, ২০১৯
২৩ জানুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন