Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৮ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৪ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

সাত দিন জাহান্নামে ছিলাম : সেরিক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলমানদের ক্যাম্পে আটক রাখার কথা বরাবরই অস্বীকার করে আসছে চীন। দেশটির কর্মকর্তারা এটিকে বলছেন বিনামূল্যে ভকেশনাল টেনিং সেন্টার। কিন্তু সেখান থেকে যারা ফিরে আসতে পেরেছেন- তারা বলছেন এটা আসলে একটা বন্দিশালা। সেখান থেকে ফিরে আসা কাজাখ বংশোদ্ভূত আইবোটা সেরিক তার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করতে গিয়ে বলেন, ওই ক্যাম্পে আমি ৭দিন ছিলাম। আমার মনে হয়েছে ওই ক’টা দিন আমি জাহান্নামে ছিলাম। সেখানে আমার হাতে হাতকড়া, পা এবং চোখ বাঁধা অবস্থায় অন্ধকার কক্ষে আটক রাখা হয়েছে। আমাকে হাত উপরের দিকে তুলতে বলে গরম পানি ঢেলে দেয়া হতো। আমি তখন শুধু চিৎকার করতাম। এ সময় আমি অজ্ঞান হয়ে পড়তাম। আমার আর কিছু মনে পড়ে না। তারা বলতো আমরা দৈত নাগরিকরা দেশের শত্রæ বিশ্বাসঘাতক। আইবোটা সেরিকের বাবা কুদায়বেরগেন সেরিক ছিলেন চীনের পশ্চিমাঞ্চলীয় ঝিজিয়ান প্রদেশের তেচেং এলাকার একটি মসজিদের ইমাম। ২০১৮ সালের ফেব্রæয়ারিতে তাকে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন ধরে নিয়ে যাওয়ার পর থেকে তার আর কোন হদিস পায়নি পরিবার। পুলিশ বলছে, তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। কিন্তু গত এক বছরেও বাবার সন্ধান পাননি মেয়ে। কাজাখস্তানের আদালত প্রাঙ্গণে বাবার একটি ছবি দেখিয়ে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, আমি জানি না আমার বাবার কী দোষ ছিল। আমার জানা মতে, আমরা এ দেশের কোন আইন ভঙ্গ করিনি। এ কথা বলতে বলতে তিনি কাঁদতে থাকেন। মানবাধিকার কর্মীরা উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছেন, সেখানে আটক বন্দিরা কোন আইনি সহায়তা তো পানই না। তাদের সঙ্গে পরিবার পরিজনদেরও দেখা করতে দেয়া হয়না। বছরের পর বছর ধরে বিনা করণে শুধু মুসলমান হওয়ার ‹অপরাধে› তাদের আটক রাখা হচ্ছে। বিবিসি।

 

 



 

Show all comments
  • Wakar Ahmed ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৩ এএম says : 0
    Allah save her life
    Total Reply(0) Reply
  • Zakir Hossain Rasel ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৩ এএম says : 0
    Go to heal china....
    Total Reply(0) Reply
  • Susanta Saha ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৩ এএম says : 0
    আসুন আমরা চীনা পন্য বর্জন করি!
    Total Reply(0) Reply
  • গন্ধ বিধুর ধুপ ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৩ এএম says : 0
    জাতি সংঘ,হাতী সংঘ,গোড়া সংঘ,ইত্যাদি এসব সংঘগুলোর নাম শুনলে মনের মধ্যে কোন ভালোবাসা আসে না। এদের কোন বিবৃতি শুনলে মনে হচ্ছে কোন নিউজের সম্পাদকীয় মন্তব্য দেখতেছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Hasan Shahed ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    নিন্দা এবং প্রতিবাদ।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Mazid Babu ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    বলার ভাষা নাই ।
    Total Reply(0) Reply
  • Moin Ahmed ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    চীনের দালাল ফাকিস্তান এখন কোথায়? চীনের শিনজিয়াং-এ মুসলমানদোর উপর নির্যাতন হচ্ছে। এই জায়গাটা পাকিস্তানের পাশেই, অথচ পাকিরা কাশ্মীর নিয়ে ভারতের বিরুদ্ধে সোচ্চার কিন্তু নির্যাতিত চীনা মুসলমান নিযে কানে তুলো গুজে আছে!
    Total Reply(0) Reply
  • পথিক আজাদ ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    শান্তি চাই। প্রতিবাদ চাই। আল্লাহ আছেন সাথে।
    Total Reply(0) Reply
  • SY Radoan ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৪ এএম says : 0
    Sob jail khana Jahannamer motoi Mone hoe.
    Total Reply(0) Reply
  • Burhan U Rabbani ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    আল্লাহ সহায়ক
    Total Reply(0) Reply
  • সাদিয়ার রহমান ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    আল্লাহ্ পরিক্ষা নেচ্ছেন,পাশ করলে জান্নাত দিবেন। আমিন।
    Total Reply(0) Reply
  • Oliullah Oil ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:৫৫ এএম says : 0
    আল্লার কাছে বিচার দিলাম
    Total Reply(0) Reply
  • jack ali ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৯:১২ পিএম says : 0
    Al-Nu’man ibn Bashir reported: The Messenger of Allah, peace and blessings be upon him, said, “The parable of the believers in their affection, mercy, and compassion for each other is that of a body. When any limb aches, the whole body reacts with sleeplessness and fever.” According to the above Hadith------do we feel pain---?????? we the muslim Ummah is committing sin 24 hours a day as such each and every muslim is suffering every corner in the World--Oh Muslim give up sin-----------
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন