Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মার্চ ২০১৯, ১১ চৈত্র ১৪২৫, ১৭ রজব ১৪৪০ হিজরী।

সরছে না কেমিক্যাল কারখানা পুরান ঢাকায় শিগগিরই অভিযান : সাঈদ খোকন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

রাজধানীর পুরান ঢাকা থেকে আপতত সরছে না কেমিক্যাল কারখানা। নিমতলী ট্রাজেডির পর এতোদিন কারখানাগুলোর ট্রেডলাইসেন্স নবায়ন বন্ধ থাকলেও এখন সে বাধা তুলে নিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন। তবে এক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ কোন কেমিক্যাল কারখানা বা গুদামে রাখা যাবে না। যারা এ নির্দেশ মানবে না তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে যাচ্ছে ডিএসসিসি। পাশাপাশি যে সব কেমিক্যাল কারাখানা জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি নয় বা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর নয়, সেসব কারখানাকে ‘অন দ্যা স্পটে’ ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করা হবে। গতকাল মঙ্গলবার নগর ভবনের ব্যাংক ফ্লোরে ‘ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন ও কেমিক্যাল পল্লীতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্থানান্তর’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় ডিএসসিসি’র মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন এ কথা বলেন। মেয়র বলেন, আমরা ব্যবসা বাণিজ্যের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চাই না। সেই সাথে নাগরিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্বও আমাদের। নাগরিকদের জানমালের নিরাপত্তা কোনোক্রমেই যেন হুমকিতে না পড়ে, সেই ব্যবস্থাপনার সার্বিক দায়িত্ব নগর কর্তৃপক্ষের।

ব্যবসায়ী নেতাদের দাবির প্রেক্ষিতে মেয়র আরো বলেন, আপনারাই বলেছেন ২০টি কেমিক্যাল দাহ্য পদার্থ। এসব কেমিক্যালের উপর নজরদারি করার দাবি আপনাদের। এজন্য আগামী সপ্তাহে পুরান ঢাকার কেমিক্যাল কারখানাগুলোতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে। এছাড়া ডিএসসিসি’র আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা, রাজস্ব কর্মকর্তা, এফবিসিসিআই’র প্রতিনিধি, ফায়ার সার্ভিসের প্রতিনিধি, পরিবেশ অধিদফতরের প্রতিনিধি, স্থানীয় ব্যবসায়ীদের প্রতিনিধিদের নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হবে।
তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকে পুরান ঢাকায় এই কমিটি অভিযান পরিচালনা করবে। অভিযানে যদি কোনো কেমিক্যাল গোডাউনে পাওয়া যায়, যেগুলোতে পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর, জনস্বাস্থ্যের জন্য হুমকি বা অগ্নিকাÐের ঝুঁকি আছে, সেসব কারখানার বিরুদ্ধে যাথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে মেয়র বলেন, যে সব কারখানা জনস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ নয় বা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকর নয় এবং অভিযানের সময় যদি ওই টিম মনে করে কারখানাটির ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করা যায়, তাহলে অন দ্যা স্পটে ট্রেড লাইসেন্স দেওয়া হবে। আগামী দুই সপ্তাহব্যাপী এই অভিযান চলবে।
মতবিনিময় সভায় এফবিসিসিআই সভাপতি শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন বলেন, যতদিন পর্যন্ত পুরান ঢাকার কেমিক্যাল কারখানা কেমিক্যাল পল্লীতে স্থানান্তর না হয়, ততদিন ব্যবসা করার সুযোগ দিন। তাদের ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করার সুযোগ দিন। ব্যবসায়ীরা যেন পুলিশি হয়রানির শিকার না হয় সেদিকটা খেয়াল রাখুন।
ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা মেয়রের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, নিমতলীর ঘটনার পর আমরা ট্রেড লাইসেন্স নবায়ন করতে পারছি না। ট্রেড লাইসেন্সই আমাদের রুটি রুজি, এটা বন্ধ হয়ে গেলে আমাদের আয়ের পথ বন্ধ হয়ে যাবে। তাই ২০টি ঝুঁকিপূর্ণ কেমিক্যাল গোডাউন ছাড়া অন্যদের ব্যবসা করার সুযোগ দিন। তা নাহলে আমাদের পুরান ঢাকার ব্যবসা অন্যত্রে চলে যাচ্ছে। ডিএসসিসি’র প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় আরও বক্তব্য দেন ডিএসসিসি’র প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সরদার প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সাঈদ খোকন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ