Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ মার্চ ২০১৯, ০৭ চৈত্র ১৪২৫, ১৩ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ নিয়ে মাথাব্যথা নেই

সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৩ এএম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে সবাইকে অংশগ্রহণের আহ্বান জানানো হয়েছে। এরপরে বিএনপি এতে অংশ নিলো কি নিলো না, তা নিয়ে আওয়ামী লীগের কোনও মাথাব্যথা নেই।
গতকাল সচিবালয়ে নিজ দফতরে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বিএনপি জামায়াতকে কিংবা জামায়াত বিএনপিকে ছাড়বে না। বিএনপির এবং জামায়াতের চিন্তা ভাবনা, তারা যেই চেতনা ধারণ করে সেক্ষেত্রে তারা অনেক কাছাকাছি। দু’টির চেতনা একই। কোনটা উদার, আবার কোনটা উগ্রপন্থী।
বিএনপি উপজেলা নির্বাচনে অংশ না নেওয়ার সিদ্ধান্তের বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনে কারা আসল, আর কারা বয়কট করল এটা নিয়ে আসলে খুব একটা দুশ্চিন্তা বা মাথাব্যথার কোনো কারণ নেই। স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনেকে দলীয় প্রতীকে না করলে স্বতন্ত্রভাবেও করতে পারে। তিনি বলেন, আমাদের কাছে যতটা খবর তারা স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে অনেক জায়গায় নির্বাচন করবে। এর কোনো প্রভাব প্রতিক্রিয়া আছে বলে মনে করি না। আসলে ভালো, না আসলেও স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রতিদন্ধিতার অভাব হবে না।
ডাকসু নির্বাচনে বিএনপির ছাত্র সংগঠন অংশ নিচ্ছে না- এ বিষয়ে তিনি বলেন, অংশ নেবে না, এটা তারা এখনও ঘোষণা দেয়নি। দেখা যাক, মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার এখনও তো অনেক সময় বাকি আছে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পর এ কথাটা বলা যাবে। আপাতত দাবি-দাওয়ার প্রশ্নে কিছু কিছু স্ট্যান্ড তো দলগতভাবে থাকতেই পারে। তিনি বলেন, আমার মনে হয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান এখনও যা বলবে ছাত্রদল সেটাই মেনে নেবে। ছাত্রদল তারেক রহমান অনুগত শুরু থেকেই। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসনের কথাই তারা শুনবে বলে আমি মনে করি।
বিএনপি বলছে ডাকসু নির্বাচনও সরকার এক তরফাভাবে করবে কি না- এ বিষয়ে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ডাকসু নির্বাচনে একতরফা বা ইন্টারফেয়ারেন্সের সুযোগটা কোথায়? এখানে কি কেউ কেন্দ্র দখল করবে? এখানে কি সূ² কারচুপির কোনো সুযোগ আছে? কীভাবে হবে? ডাকসুর ইলেকশনে তো প্রকাশ্যে ভোটাভোটি হবে।
সড়ক দুর্ঘটনাকে সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা উল্লেখ করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের বৈঠক ডেকে কিছু পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করব। দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনতে যারা বিশেষজ্ঞ আছেন, তাদের নিয়ে কমিটি করে দেবো। এর লাগাম টেনে ধরতে হবে। কারণ, সড়ক দুর্ঘটনা এখন সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা। ওবায়দুল কাদের বলেন, মেট্রো রেল, পাতাল রেলসহ যেসব কাজ হচ্ছে এতে অনেক সমস্যাই সমাধান হয়ে যাবে। বিভিন্ন সড়কে কাজ চলছে, সেগুলো হলে অনেক সমস্যাই কমে যাবে। এখন দুর্ঘটনার সংখ্যা কম, কিন্তু নিহতের সংখ্যা বেশি।
সড়কে শৃঙ্খলা না ফেরার বিষয়ে জানতে চাইলে মন্ত্রী নিজের দায় স্বীকার করেন বলেন, সড়কে শৃঙ্খলা ফেরাতে বিআরটিএ’র কার্যক্রম ঢেলে সাজানো হবে। এ বিষয়ে আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠিতব্য সড়ক নিয়ন্ত্রণ কাউন্সিলের সভায় সুপারিশ চাওয়া হবে। এ সময় সড়কে ছোট যান চলাচল বন্ধ করা রাতারাতি সম্ভব নয় বলে জানান মন্ত্রী। তিনি এর জন্য অনেক ক্ষেত্রে জনপ্রতিনিধিদের দায় রয়েছে বলেও অভিযোগ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯
১৩ জানুয়ারি, ২০১৯
২২ অক্টোবর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন