Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২৩ মার্চ ২০১৯, ০৯ চৈত্র ১৪২৫, ১৫ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

মিয়ানমারে বিক্ষোভকারীদের ওপর পুলিশের গুলি

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০৪ এএম

মিয়ানমারের পশ্চিমাঞ্চলে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারীর ওপর রাবার বুলেট ছুড়েছে দেশটির পুলিশ। মিয়ানমারে একটি নতুন ও বিতর্কিত ভাস্কর্য নিয়ে জনরোষ তৈরি হওয়ায় মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। চলতি মাসের শুরুতে প্রবল বিরোধিতা সত্তে¡ও মিয়ানমারের ডি ফ্যাক্টো নেতা অং সান সু চির পিতা অং সানের একটি ব্রোঞ্জের মূর্তি কায়াহ রাজ্যের রাজধানীতে উন্মোচন করা হয়। ব্রিটিশ ঔপনিবেশিক শাসনের বিরুদ্ধে সংগ্রামে তার ভূমিকার জন্য মিয়ানমারের সংখ্যাগরিষ্ঠ জাতি বামার জনগোষ্ঠীর কাছে সম্মানিত ব্যক্তিত্ব অং সান। কিন্তু দেশটির অন্যান্য সংখ্যালঘু জাতিগোষ্ঠীর কাছে অং সান ততটা জনপ্রিয় নন। বরং তাকে বার্মিজ আধিপত্যের প্রতীক হিসেবে দেখা হয়। মঙ্গলবার কয়েক হাজার জনতা কায়াহর প্রাদেশিক পার্লামেন্ট অভিমুখে মিছিল করে। এ সময় দাঙ্গা পুলিশ তাদের বাধা দেয়। বিক্ষোভকারী নেতা মায়ো হ্লাইং উইন জানান, নিরস্ত্র জনতার ওপর পুলিশ রাবার বুলেট ছুড়লে অন্তত ১০ জন আহত হয়। এ ধরনের ঘটনা একটি গণতান্ত্রিক দেশে ঘটা উচিত নয় বলে জানান তিনি। পুলিশ জানিয়েছে, কারেনি গোষ্ঠীর সদস্যরা লোইকোতে মিয়ানমারের স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতা জেনারেল অং সানের একটি ভাস্কর্র্য স্থাপনের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ করছে। সংগঠকরা জানিয়েছেন, বিক্ষোভ প্রদর্শনের অনুমতি না থাকা সত্তে¡ও জাতীয় ছুটির দিন ‘সংযুক্ত দিবসে’ অন্তত তিন হাজার লোক লোইকোর ওই সমাবেশে হাজির হয়েছিল। একটি ঘোড়ার ওপর বসা সোনায় মোড়ানো জেনারেলের ভাস্কর্যটি চলতি মাসেই উদ্বোধন করার কথা রয়েছে। এতে স্থানীয়রা ফের প্রতিবাদে নেমেছে। গত বছরের মাঝামাঝি রাজ্য কর্মকর্তারা এই ভাস্কর্র্য স্থাপনের ঘোষণা দেওয়ার পর থেকেই প্রতিবাদে নামে স্থানীয়রা। কারেনি রাজ্য যুব বাহিনীর নেতা খুন টমাস প্রতিবাদ সমাবেশে বলেছেন, “আমরা জেনারেলের ভাস্কর্যের বিরোধিতা করছি না, আগে তার প্রতিশ্রæতি বাস্তবায়ন করা হোক, এটাই আমাদের দাবি।” স্মার্টফোন ব্যবহার করে ফেইসবুকে প্রতিবাদ সমাবেশটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। প্রতিবাদে অংশগ্রহণকারীরা তাদের সঙ্গে মধ্যস্থতায় ব্যর্থ হওয়ার জন্য রাজ্যের শীর্ষ কর্মকর্তা ও অর্থমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করেছেন। প্রতিবাদ ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশের নেওয়া উদ্যোগে অন্তত ১০ জন সামান্য আহত হয়েছেন বলে রয়টার্সকে জানিয়েছেন খুন টমাস। ফাঁকা রবার বুলেট ছুড়ে পুলিশ বিক্ষোভকারীদের ভয় দেখানোর কৌশল নিয়েছিল বলে দাবি করেছেন পুলিশ প্রধান উয়িন হতাই। “এখন পরিস্থিতি স্থিতিশীল রয়েছে। বাচ্চারা শুধু তাদের মতামত তুলে ধরছে,” বলেছেন তিনি। অননুমোদিত সমাবেশ, উস্কানি ও মানহানির অভিযোগে এখান থেকে ৫৪ জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে সন্ধ্যার দিকে কর্মকর্তারা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে নিতে রাজি হলে সমঝোতার মধ্য দিয়ে বিক্ষোভ শেষ হয়। দুপক্ষের মধ্যে মধ্যস্থতা চলাকালীন প্রতিবাদ স্থগিত রাখা হবে বলে জানিয়েছে রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম ও খুন টমাস। রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ