Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২০ মার্চ ২০১৯, ০৬ চৈত্র ১৪২৫, ১২ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

বিরল রোগে ‘নেকড়ে মানব’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৬:৫৩ পিএম

ভারতের কিশোর ললিত পটিদরের কোনো শারীরিক প্রতিবন্ধকতা না থাকলেও তার মুখ ও শরীর জুড়ে রয়েছে অজস্র পশম। ১৩ বছর বয়সের এই কিশোরের জন্য এটি একটি কঠিন অভিজ্ঞতা। সমবয়সীদের অনেকেই তাকে ‘বানর’ বলে। তবে, বন্ধুরা তাকে সবসময় দেখে রাখে বলেই সে বাসার বাইরে স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে পারে।
গত ৮ ফেব্রুয়ারি, ডেইলি মিররের এক বিশেষ প্রতিবেদনে ললিতের বিষয়টি উঠে আসলে তাকে নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় ভারতজুড়ে। তার এ ভিন্নতার পেছনে রয়েছে হাইপারট্রাইকোসিস নামক এক রোগের ভূমিকা। এই ধরনের রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে অনেকটাই নেকড়ের মত লাগে।
ললিতের মা পার্বতী বাই বলেন, ‘ললিত যখন জন্ম নেয়, সেসময় খুব অবাক হয়েছিলাম। এরপরই হাসপাতালের স্থানীয় শিশুরোগ বিশেষজ্ঞদের দেখাই, তখন জানতে পারি এই রোগের কোনো সমাধান নাই।’
ললিতের স্কুলে প্রধান শিক্ষক বাবুলাল মাকোয়ানা বলেন, ‘অন্য কোনো ছাত্রের তুলনায় পড়াশোনা ও খেলাধুলায় মোটেও পিছিয়ে নেই ললিত। দুইবছর আগে যখন ললিত স্কুলে ভর্তি হয়, তখন অনেকেই তাকে দেখে অস্বাভাবিক আচরণ করলেও ক্রমেই সবাই তাকে স্বাভাবিকভাবেই মেনে নিয়েছে। এমন, পুরো স্কুল ও বন্ধুদের মাঝে অত্যন্ত জনপ্রিয় ললিত।’
তবে শরীরে পশমের পরিমাণ বেড়ে যাওয়া বাদে আর তেমন কোনো সমস্যা নেই ললিতের। দিব্যি খেলছে, স্কুলে যাচ্ছে, সবই করছে। ললিত নিজেই বলে, ‘মাঝে মাঝে মনে হয়, কেনো আমি সবার চেয়ে আলাদা, এমন না হলে কেউ আমাকে বিরক্ত করতো না।’
তবে, এখন বিষয়টায় অনেকটাই স্বাচ্ছন্দ্য বলেও জানায় ললিত। ললিত তার নিজের স্বপ্নের কথা জানিয়ে বলে, ‘আমি চাই, খুব বড় পুলিশ অফিসার হতে। তাহলে মা-বাবা, দাদিকে দেখাশোনা করতে পারবো।’ সূত্র: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

১৯ মার্চ, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ