Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৯, ০২ কার্তিক ১৪২৬, ১৮ সফর ১৪৪১ হিজরী

রোজার আগেই ছোলা রসুনে আগুন

প্রকাশের সময় : ১৫ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কর্পোরেট রিপোর্ট : গত বছর রমজানে ছোলা বিক্রি হয়েছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকা কেজি দরে। আর এবার রমজান আসার এক মাস আগেই তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯০ থেকে ৯৫ টাকায়। একইভাবে রসুনের অস্বাভাবিক দামে অস্বস্তিতে ক্রেতারা। পাশাপাশি পেঁয়াজ, ব্রয়লার মুরগি, গরুর মাংস, ডাল, মাছসহ অধিকাংশ পণ্যের উচ্চমূল্যে বাজার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে। তবে সবজির দাম কিছুটা কম। প্রতিবছর রমজান এলেই পণ্যমূল্য নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন ক্রেতা সাধারণ। আর সরকারের তরফে বলা হয় উদ্বিগ্ন হওয়ার কোনো কারণ নেই। বড় ব্যবসায়ীরা মন্ত্রণালয়ে হাজিরা দিয়ে জানান, বাজারে পণ্যের কোনো ঘাটতি নেই। সুতরাং দাম বাড়ারও কারণ নেই। কিন্তু বাজারে গিয়ে ক্রেতার চোখে-মুখে সেই একই হতাশা চোখে পড়ে প্রতিবছর। তবে গত দুই-তিন বছর ধরেই একটি প্রবণতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে- রমজান আসার দুই মাস আগেই পণ্যমূল্য বাড়িয়ে দেন ব্যবসায়ীরা। যাতে রোজা শুরুর হওয়ার সময়ে কোনো বিতর্ক না হয়। এবারো সেই কৌশলই নেয়া হয়েছে বলে মনে করছেন ক্রেতারা। রমজান আসতে আরো প্রায় এক মাস দেরি। এর মধ্যেই দাম বাড়ছে পণ্যের। স¤প্রতি রাজধানীর বাসাবো, মালিবাগ, শান্তিনগরসহ কয়েকটি বাজারে গিয়ে এবং খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, রোজার ইফতারির অন্যতম অনুষঙ্গ ছোলা বিক্রি হচ্ছে ৯০ থেকে ৯৫ টাকা কেজি দরে। কোথাও কোথাও এটি ১০০ টাকাতেও বিক্রি হতে দেখা যায়। এক সপ্তাহ আগে এটি ৮০ থেকে ৮৫ টাকা, এক মাস আগে ৭৫ থেকে ৮০ টাকা এবং এক বছর আগে বিক্রি হয়েছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে। অন্যান্য ডালের দামও বেশ চড়া। চিকন দেশি মসুর ডাল গত রমজানের আগে বিক্রি হয়েছে ১০০ থেকে ১১০ টাকা কেজি দরে। এবার তা বিক্রি হচ্ছে ১৪০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে। প্রতিবছর রমজান ও কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বেড়ে যায় মসলা জাতীয় পণ্যের দাম। এরই অংশ হিসেবে বাড়ছে পেঁয়াজ ও রসুনের দাম। এর মধ্যে রসুনের দাম বাড়াটা অস্বাভাবিক বলেই মনে করছেন ব্যবসায়ী ও ক্রেতারা। আমদানিকৃত রসুন কয়েক মাস ধরেই চড়া দামে বিক্রি হয়। এর মধ্যে দেশি রসুন বাজারে আসার পরে বিদেশিটার দামও কিছুটা কমে এসেছিল। তবে ফের দামের ঊর্ধ্বমুখী যাত্রা শুরু করেছে রসুন। সপ্তাহের ব্যবধানে চীনা রসুনের দাম কেজিতে ২০-৩০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ২৫০ টাকায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন