Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৫ চৈত্র ১৪২৫, ১১ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

কাশ্মির হামলায় বৈশ্বিক নিন্দা, পাক-ভারত সম্পর্কে উত্তেজনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৩:৩৭ পিএম

ভারতের আধাসামরিক বাহিনী সিআরপিএফ জওয়ানদের ওপর দেশটি নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মিরে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলায় হতাহতের ঘটনায় জাতিসংঘ এবং বিভিন্ন দেশ তীব্র নিন্দা জানিয়েছে। হামলার ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতিতে পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করতে শুক্রবার জরুরি বৈঠকে বসেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটি। এদিনই পাটনায় দলীয় নির্ধারিত সভা বাতিল করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংয়ের কাশ্মির সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে সামরিক বহরে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলায় কমপক্ষে ৪২ জন জওয়ান নিহত ও ৩৮ জন আহত হয়েছে। জৈশ-ই-মুহাম্মদ গোষ্ঠী ওই হামলার দায় স্বীকার করেছে। কর্মকর্তারা বলছেন, চার চাকার স্করপিও গাড়িতে কমপক্ষে ৩৫০ কেজি বিস্ফোরক ছিল। ভয়াবহ ওই বিস্ফোরণের তীব্রতা এতো বেশি ছিল যে ১০ থেকে ১২ কিলোমিটার দূর থেকেও মানুষজন শব্দ পেয়েছেন।
হামলাকারীদের উদ্দেশে শুক্রবার চরম হুঁশিয়ারি দিলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, ‘যারা এই হামলা চালিয়েছে, শাস্তি তাদের পেতেই হবে। কোনও ভাবেই ছাড় দেওয়া হবে না ওদের।’ প্রতিবেশী দেশ ভারতে চরম অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে। ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু তাদের মনস্কামনা পূর্ণ হতে দবে না ভারত। হামলা হলে তার পাল্টা জবাব দেওয়া হবেই। নাম না করে পাকিস্তানকেও এ দিন কড়া বার্তা দেন মোদী। বলেন, ‘প্রতিবেশী রাষ্ট্র ষড়যন্ত্র করে ছাড় পাবে না।’ এটা একটা সংবেদনশীল মুহূর্ত। এই সময় রাজনীতি থেকে দূরে থাকাটাই শ্রেয় বলে মনে করেন মোদী। বরং এই সঙ্কট মুহূর্তে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করা উচিত। মোদী বলেন, ‘এই সংবেদনশীল মুহূর্তে রাজনৈতিক বিরোধিতা থেকে দূরে থাকা দরকার। আমাদের একজোট হয়ে মোকাবিলা করতে হবে।’
তবে সেনাদের মৃত্যু যে কোনও ভাবেই বিফলে যাবে না সে কথাও মনে করিয়ে দেন প্রধানমন্ত্রী। জঙ্গি সংগঠনগুলোর উদ্দেশে মোদীর হুঁশিয়ারি, এই হামলা চালিয়ে তারা চরম ভুল করেছে। আর এই ভুলের মাসুল অনেক বড় আকারে চোকাতে হবে তাদের। বলেন, ‘দেশকে ভরসা দিচ্ছি, এই হামলার পিছনে যে শক্তি কাজ করছে তাদের শাস্তি হবেই।’
অন্য দিকে, এই হামলায় কড়া বিবৃতি দিয়েছে সিআরপিএফ। টুইটে তারা জানিয়েছে, ‘আমরা ভুলব না। আমরা ক্ষমা করব না। পুলওয়ামার হামলায় নিহত জওয়ানদের পরিবারের পাশে আছি। এই জঘন্য হামলার বদলা নেবই।’
ভারতের নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের ওপর সন্ত্রাসী হামলার নিন্দা করে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও আহতদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করা হয়েছে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে। ভয়াবহ ওই হামলার ঘটনার ঘটনার নিন্দা করে ভারতের প্রতিবেশী বিভিন্ন দেশ ভারতের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। ভারতের পাশে থেকে বাংলাদেশ, ভুটান, শ্রীলঙ্কা, মালদ্বীপসহ বিভিন্ন দেশ সন্ত্রাসবাদের বিপদ মোকাবিলার সংকল্প ব্যক্ত করেছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, ফ্রান্সসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ওই হামলার নিন্দা করেছে।
পাকিস্তান সরকার এক বিবৃতিতে ঘটনাটিকে ‘গভীর উদ্বেগের বিষয়’ বলে অভিহিত করে বলেছে, ‘কোনও তদন্ত ছাড়াই ভারত সরকার এবং ভারতীয় গণমাধ্যম যেভাবে পুলওয়ামার ঘটনার সঙ্গে পাকিস্তানের নাম জড়ানোর চেষ্টা করছে, আমরা দৃঢ়ভাবে সেই অভিযোগ অস্বীকার করছি।’ তারা সব সময়েই কাশ্মির উপত্যকায় সব ধরনের সহিংসতার নিন্দা করে আসছে বলেও পাকিস্তানের পক্ষ থেকে মন্তব্য করা হয়েছে। সূত্র: টিওআই।



 

Show all comments
  • jack ali ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৫:৪৬ পিএম says : 0
    May Allah eliminate all the enemy barbarian soldiers from Kashmir--Ameen
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

১৯ মার্চ, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন