Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

গার্মেন্টস শ্রমিকদের অবদানের স্বীকৃতি রাজনীতিতে নেই : সম্মেলন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সাইফুল হক

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন, জাতীয় অর্থনীতিতে গার্মেন্টস শ্রমিকদের যে বিশাল অবদান দেশের রাজনীতিতে তার তেমন কোন স্বীকৃতি নেই। তাদের অধিকার ও মর্যাদার ক্ষেত্রেও তার কোন প্রতিফলন নেই। অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধিতে এককভাবে গার্মেন্টস শ্রমিকদের ভূমিকা শীর্ষস্থানীয় হলেও অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক নীতি-নির্ধারণে তাদের তেমন কোন ভূমিকা নেই। গতকাল জাতীয় প্রেসক্লাবের সাৃমনে বিপ্লবী গার্মেন্টস শ্রমিক সংহতির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
সংগঠনের সভাপতি মীর মোফাজ্জল হোসেন মোশতাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলন উদ্বোধন করেন শ্রমজীবী নারী মৈত্রীর সভাপতি বহ্নিশিখা জামালী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী শ্রমিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, শ্রমিক নেতা মাহমুদ হোসেন, সাইফুল ইসলাম। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী পাদুকা শ্রমিক সংহতির সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন, সংহতি সংস্কৃতি সংসদের আহŸায়ক এ্যাপোলো জামালী, মো. সুমন, সেলিম সরদার, নাইম খান, মোহাম্মদ আলী প্রমুখ। সমাবেশে বহ্নিশিখা জামালী অধিকার ও ইনসাফ প্রতিষ্ঠায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের লড়াকু সংগঠন গড়ে তোলার আহŸান জানান।
সাঈফুল হক বলেন, সরকার ও ধনীকশ্রেণীর দলসমূহ ক্ষমতায় থাকতে বা ক্ষমতায় যেতে শ্রমিকশ্রেণীর সমর্থন চায়, কিন্তু তাদের মানবিক ও গণতান্ত্রিক অধিকার দিতে চায় না। সরকার ও মালিকপক্ষ বাস্তবে শ্রমিকদেরকে জীবন্ত উৎপাদনযন্ত্রের বেশী কিছু মনে করে না। বরং শ্রমিকদের বাঁচার ন্যায্য আন্দোলনকে তারা ষড়যন্ত্র হিসেবে আখ্যা দেয় এবং যুক্তিসঙ্গত আন্দোলন দমনে হয়রানি, মিথ্যা মামলা, গ্রেফতার ও চাকুরীচ্যুতির কৌশল অবলম্বন করে। শ্রম আইনেরও তারা কোন তোয়াক্কা করে না। তিনি বলেন, গত জানুয়ারি মাসেই কেবল আন্দোলনে নামার কারণে ৭/৮ হাজার গার্মেন্টস শ্রমিককে চাকুরীচ্যুত করা হয়েছে। তিনি এই পরিস্থিতি পরিবর্তনে অনতিবিলম্বে গার্মেন্টস শ্রমিকদের মজুরী ১৬ হাজার টাকা পুনঃনির্ধারণ, পূর্ণ ট্রেড ইউনিয়ন চালু করে শ্রমিক স্বার্থবিরোধী অগণতান্ত্রিক শ্রম আইন বাতিলের আহŸান জানান।
আবু হাসান টিপু শ্রমিক আন্দোলনে সুবিধাবাদী ও আপোষকামীতা প্রতিরোধ করে গার্মেন্টস শ্রমিকদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন জোরদার করার আহŸান জানান।উদ্বোধনী সমাবেশ শেষে গার্মেন্টস শ্রমিকদের র‌্যালী ঢাকার রাজপথ প্রদক্ষিণ করে। দুপুরের পর সেগুনবাগিচায় সংহতি মিলনায়তনে সংগঠনের কাউন্সিল অধিবেশন শুরু হয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গার্মেন্টস শ্রমিক
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ