Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৪ মার্চ ২০১৯, ১০ চৈত্র ১৪২৫, ১৬ রজব ১৪৪০ হিজরী।

তদন্তে আইসিসির সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানালেন প্রধানমন্ত্রী

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃসংশতার ‘প্রাথমিক পরীক্ষা’র জন্য একটি টিম পাঠাতে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালত (আইসিসি)’র সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন।
গতকাল আইসিসি প্রধান কৌঁসুলি ড. ফাতু বেনসুদার সঙ্গে জার্মানিতে মিউনিখ নিরাপত্তা সম্মেলনের সাইড লাইনে প্রধানমন্ত্রীর এক বৈঠকের পর পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী আইসিসিকে আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে এলে আইসিসি টিমকে সম্ভাব্য সকল সহযোগিতা দেয়ার আশ্বাস দেন।
পররাষ্ট্র সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী আগামী মার্চের শুরুতে বাংলাদেশ সফরে আসতে যাওয়া আইসিসি টিমকে নীতিগতভাবে স্বাগত জানিয়েছেন এবং এ ক্ষেত্রে তাদের সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। শহীদুল হক বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও আইসিসির প্রধান কৌঁসুলি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে পাকিস্তানি সেনাবাহিনী গণহত্যা এবং মিয়ানমারের রোহিঙ্গা নাগরিকদের ওপর নৃসংশতার বিচারের বিষয়ে আলোচনা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৭১ সালে বাংলাদেশে গণহত্যা চালানো পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সদস্যদের বিচারে সম্মুখীন করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
রোহিঙ্গাদের ওপর নৃসংশতার বিচার প্রসঙ্গে আইসিসির প্রধান কৌঁসুলি বলেন, আইসিসি ইতোমধ্যে রোহিঙ্গা ইস্যু আমলে নিয়েছে এবং দায়ীদের বিচারের জন্য একটি আদালত প্রতিষ্ঠা করেছে। ফাতু বেনসুদা বলেন, এ প্রসঙ্গে মামলা দাঁড় করানোর লক্ষ্যে আইসিসি টিম ‘প্রাথমিক পরীক্ষা’র জন্য বাংলাদেশ সফর করবে। প্রধানমন্ত্রী আইসিসি প্রধান কৌঁসুলিকে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের হত্যাকান্ডের ঘটনা অবহিত করেন। সেই সাথে বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলার বিচার সম্পর্কে তাকে জানান।
গামবিয়ার নাগরিক ও আন্তর্জাতিক আইনজীবী ফাতু বেনসুদা বলেন, জার্মানস্থ বাংলাদেশের হাইকমিশনার বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের হত্যাকান্ড সম্পর্কে অবহিত করেছেন। যে কারণে তিনি বিষয়টি জানেন।
ড. বেনসুদা প্রধানমন্ত্রীকে আইসিসি পরিদর্শন করে ১৯৭১ সালের গণহত্যার বিচারের বিষয় নিয়ে কথা বলতে আহবান জানান। বাংলাদেশ আইসিসিতে জোরালো ভূমিকা রাখার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। পররাষ্ট্র সচিব বলেন, আইসিতে বাংলাদেশ সাম্প্রতিককালে যোগদান করে জোরালো ভূমিকা রাখছে।
অপরদিকে সম্মেলনের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক পারমাণবিক অস্ত্র নিবারণ প্রচারণা কর্মসূচির নির্বাহী পরিচালক নোবেল পদকপ্রাপ্ত বেট্রিক ফিন প্রধানমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎ করেন। পরমাণু অস্ত্র বন্ধ করার উদ্যোগের সাথে বাংলাদেশ কাজ করায় তিনি প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানান। সেই সাথে তিনি ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক দক্ষিণ এশিয়াকে পারমাণু অস্ত্রমুক্ত অঞ্চল করার প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • Abadul Aziz Abadul ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
    অস্ত্র চাই যুদ্ধ চাই, আরাকান স্বাধীন চাই,,
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ariful Islam Sajeeb ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৮ এএম says : 0
    সব ইহুদীর বাচ্চারা এক
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ আলহাজ খন্দকার ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:১৯ এএম says : 0
    সব চেয়ে শক্তিধর দেশ মিয়ানমার
    Total Reply(0) Reply
  • Mahbubul Alam ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১:২০ এএম says : 0
    আল্লাহ তায়ালা আমাদের মমতাময়ী মা বঙ্গ কন্যা দেশ রত্ন জননেএী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কে হাজার বছর বেচে থাকার নেক হায়াত দান করুন আমিন।
    Total Reply(0) Reply
  • Rajon Patwary ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৬:৫৬ এএম says : 0
    লাভ নেই, কিছুই হবে না। এদেশে রোহিঙ্গারা স্খায়ী হলে গেল
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন