Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ১১ বৈশাখ ১৪২৬, ১৭ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

গণআদালতে ২৪ তারিখ গণশুনানি হবেই

সাংবাদিকদের আ স ম রব

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ১২:০২ এএম

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শীর্ষ নেতা জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, পূর্বঘোষণা অনুযায়ী ২৪ ফেব্রুয়ারিই গণশুনানি হবে। সরকার যতই বাধা দিক তাতে আমাদের গণশুনানি বাতিল হবেনা। সব হল বন্ধ রাখলেও যেখানেই পারি ২৪ তারিখ ইনশাআল্লাহ ঢাকায় গণশুনানি করবোই করবো। গতকাল জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং ও সমন্বয়ক কমিটির যৌথসভার পর সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।
আ স ম আবদুর রব বলেন, গণশুনানির কথা শুনে তারা (সরকার) ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ঢাকা শহরের সবগুলো হল বুক করে রেখেছে। এরপরেও আমরা করব। যত প্রতিবন্ধকতা আসুক, যত হল বন্ধ করুক, গণশুনানি করবোই। সকল বাঁধা বিপত্তি অতিক্রম করে আল্লাহর আকাশের নিচে জায়গা আছে, যেখানেই জায়গা পাই আমরা গণশুনানি করবো।
গণশুনানির জন্য জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জাতীয় প্রেস ক্লাব মিলনায়তন, রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়ন, গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চ, কাকরাইলের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনের কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেছিলো। কিন্তু কোথাও থেকে তারা অনুমতি পায়নি।
আ স ম আবদুর রব বলেন, তারা (সরকার) বিভিন্ন হল কর্তৃপক্ষকে বলছে, পুলিশের অনুমতি ছাড়া তোমরা হল বুকিং দেবা না। পুলিশের অনুমতি ছাড়া টাকা নেবা না। ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তারা আমাদের গণশুনানির কথা শুনে অনেক হল বুক করে রেখেছে।
গণশুনানিতে অংশ গ্রহনের জন্য ক্ষমতাসীন জোট ছাড়া বিভিন্ন গণতান্ত্রিক দলের গ্রার্থী ও ঐক্যফ্রন্টের তিন‘শ আসনের প্রার্থী ও ভোটের সহিংসতায় নিহতদের স্বজন ও আক্রান্তদের চিঠি দিয়ে শুনানিতে আমন্ত্রণ জানানো গতকাল থেকে শুরু হয়েছে বলে তিনি জানান।
রব বলেন, জনগণ কী ৩০ তারিখ ভোট দিতে পেরেছে? সারা পৃথিবীতে ভোট হয় দিনের বেলা, বাংলাদেশে ভোট হয়েছে ২৯ তারিখ রাতে। ঘটনাটা এমন ধরনের নাটক যে ভোটাররা হলো দুলাভাই আর যারা ভোট ডাকাতি করেছে তারা হলো শ্যালক। দুলা ভাইয়ের সাথে শ্যালকরা তামাশা নাটক করেছে, ভেলকিবাজী করেছে। এটার জবাব আমরা দিতে চাই।
ঐক্যফ্রন্ট নেতা বলেন, সারা দেশের মানুষ জানে, যারা এই অপকর্ম করেছে, তাদের সরকারি দলের নেতারা ভোট দিতে পারে নাই বিভিন্ন জেলায়। বঙ্গবন্ধুর গোপালগঞ্জ ছাড়া অন্য ৬৩ জেলার যেকোনো একটি আসনের একটি কেন্দ্রে লটারি করে এই সরকার যদি প্রতীক নিয়ে ধানের শীষের বিপক্ষে জিততে পারে তাহলে আমরা রাজনীতি থেকে বিদায় নেবো।
বিকাল ৪টায় মতিঝিলে গণফোরামের কার্যালয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের স্টিয়ারিং ও সমন্বয় কমিটির এই বৈঠক হয়। বৈঠকে জেএসডির আসম আবদুর রব, আবদুল মালেক রতন, শহিদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী, হাবিবুর রহমান, বিএনপির আবদুল মঈন খান, আবদুস সালাম, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, গণফোরামের এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু, জগলুল হায়দার আফ্রিক, মোশতাক আহমেদ, রফিকুল ইসলাম পথিক, নাগরিক ঐক্যের মাহমুদুর রহমান মান্না, শহিদুল্লাহ কায়সার, বিকল্পধারার নুরুল আমিন ব্যাপারী, শাহ আহমেদ বাদল, গণদলের এটিএম গোলাম মওলা চৌধুরী, গণস্বাস্থ্য সংস্থার ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ