Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯, ১৩ আষাঢ় ১৪২৬, ২৩ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

তেঁতুলিয়ায় পিকনিকের বাস খাদে : এক শিশু নিহত : আহত কমপক্ষে ২৫ শিশু

পঞ্চগড় জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯, ৬:৫৫ পিএম

পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় পিকনিকের বাস খাদে পরে ৬ষ্ঠ শ্রেণীর এক শিক্ষার্থী নিহত এবং কমপক্ষে ২৫ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। সোমবার সকালে তেঁতুলিয়া উপজেলার শালবাহানহাট ইউনিয়নের রওশনপুর এলাকায় দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত শিক্ষার্থীর নাম সজিব কুমার সিংহ (১৩)। নিহত সজিব আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নে রসেয়া এলাকার দিলীপ কুমার সিংহের একমাত্র ছেলে। সে আটোয়ারী রসেয়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

আহতদের মধ্যে এক শিক্ষকসহ দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। খবর পেয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তারা হাসপাতালে আহতদের দেখতে যান। ঘটনা তদন্তে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানিউল ফেরদৌসকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে জেলা প্রশাসন। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে। 
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আটোয়ারী উপজেলার রসেয়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ শিক্ষার্থীদের নিয়ে পিকনিক করতে তেঁতুলিয়ার বাংলাবান্ধায় যায়। সকাল সাড়ে ১১ টায় বাসটি নিয়ে শিক্ষকরা রওশনপুর এলাকায় চা বাগান এবং আনন্দ ধারা রিসোর্ট দেখতে যাচ্ছিলেন। বাসে ৬ষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর ৬৫ শিশু শিক্ষার্থীসহ কমপক্ষে ৮০ জন যাত্রী ছিল। রওশনপুর এলাকায় কাঁচা রাস্তায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি রাস্তার পাশে খাদে উল্টে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ ও দমকল বাহিনীর সদস্যরা আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে তেঁতুলিয়া উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্র ভর্তি করে। এ সময় চিকিৎসক ৬ষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থী সজিবকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে আহতদের পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদের মধ্যে এক শিক্ষকসহ দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে চিকিৎসক জানায়। ঘটনার পর বাসের চালক পালিয়ে যায় বলে পুলিশ জানায়।
রসেয়া দ্বিমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক বিনয় চন্দ্র বর্ম্মণ বলেন, বাসটিতে প্রায় ৬৫ জন শিক্ষার্থী এবং ১০/১২ জন শিক্ষক ছিলাম। বাংলাবান্ধা ঘুরে রওশনপুর এলাকায় চা বাগান দেখতে যাচ্ছিলাম। কাঁচা রাস্তায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাসটি খাদে পরে যায়।
পঞ্চগড় ফায়ার সার্ভির্সের স্টেশন অফিসার নিরঞ্জন সরকার বলেন, খবর পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে যাই। আহতদের মধ্যে প্রায় ২৪ জনকে প্রথমে তেঁতুলিয়া হাসপাতাল এবং পরে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো ব্যবস্থা করি। এদের মধ্যে চিকিৎসক এক শিশুকে মৃত ঘোষণা করেন।
তেঁতুলিয়া থানা পুলিশের ওসি জহুরুল ইসলাম বলেন, বাসটি উদ্ধারের চেষ্টা চলছে। ঘটনার পর চালক পালিয়ে যায়। রওশন নামে এক চালক বাসটি চালাচ্ছিলেন বলে আমরা জেনেছি।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহম্মদ গোলাম আজম বলেন, বাসটিতে ৭০ জনের বেশি শিক্ষার্থী ছিল। বাসটি রওশনপুর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে একটি খাদে পরে যায়। ঘটনাটি তদন্তে তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানিউল ফেরদৌসকে প্রধান করে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন